আন্তর্জাতিক SEO স্পেশালিষ্ট হবেন কিভাবে? কিছু কৌশল, কিছু কথা (পর্ব ১)

ব্লগার রিফাত

খাওয়া, ঘুম আর ফেসবুকে আড্ডা । সারাদিন সব ইজি কাজ নিয়ে বিজি। বর্তমানে সিভিন লি: এর জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে আছি। ব্যাবসা বানিজ্য নিয়েটুকটাক সাধনা। লেখাপড়া করছি সাংবাদিকতা বিভাগে।
ফেসবুকে অাড্ডা দিলে এড হতে পারেন আমার সাথে--- https://www.facebook.com/JuniorRefath
টিউন করেছেন ব্লগার রিফাত | December 23, 2013 07:24 | পোস্টটি 702 বার দেখা হয়েছে

আন্তর্জাতিক SEO স্পেশালিষ্ট হবেন কিভাবে? কিছু কৌশল, কিছু কথা (পর্ব ১)


আমি এসইও এর কাজ টুকটাক করি কিন্তু লেখালেখির অতটা করি না । টেকটিনসে তো একদমই না ।কিন্ত নিয়মিত পড়ি। অনেক দিন যাবৎ ভাবছি লিখব লিখব লেখাই হয় না । কিন্তু শুক্রবার ক্রিয়েটিভ আইটিতে ইকরাম ভাইয়ের একটা সেমিনারে গিয়ে একটু Inspire হলাম কিছু লেখার জন্য তাই আজকের এই চেষ্টা । আশা করছি বৃথা যাবে না । যদি অপনাদের ভাল লাগে নিয়মিত লেখার চেষ্টা করব। অনেক বড় লেখা সব একত্রে লেখা সম্ভব নয় তাই দুই পর্বে লিখতে হবে।

আন্তর্জাতিক মানের এস ই ও স্পেশালিষ্ট হওয়ার আগে নিজেকে ব্রান্ড করতে হবে । প্রথম পর্বে শুধু আপনাকে ব্রান্ড করব ২য় পর্বে আপনাকে এসইও স্পেশালিষ্ট করব।
প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রঃ

  • একটা কম্পউটার :mrgreen:
  • নেট কানেকশন  :roll:
  • ইংরেজীতে পুরো পাক্কা 8-O
  • লেখালেখি করার মত সময় :-x

এ গুলো না থাকলে আপনি অনেক আগেই  SEO Specialist হয়ে আছেন  so নো টেনশন……………………. :lol:
১. স্যোসাল মিডিয়ায় আপনার একাউন্ট রাখুন পুরো স্বচ্ছ অবস্থায়ঃ

স্যোসাল মিডিয়ায় একাউন্ট নেই এমন মানুষ আধুনিক সমাজে নেই বললেই চলে। তবে কারো কারো একাউন্ট দেখে মনে হয় তারা সামাজিক না অসামাজিক । আপনি একজন আন্তর্জাতিক মানের এসই ও স্পেশালিষ্ট হবেন আন্তর্জাতিক ভাবে আপনার পেজ দেখবে সবাই সেখানে যদি কোন ধরনের নোংরা কিছু পায় তবে এটাই হতে পারে আপনার প্রধান বাধা । কারন ওরা কখনো আপনাকে খারাপ কোন মন্তব্য লিখবে না কিন্তু নিজেরা আপনার লেখা থেকে দুরে থাকবে। এটা সাধারনত আমাদের মধ্যও । আমরা যদি কোন খারা্প কাজ করি এর এটা যদি ঢালাও ভাবে প্রচার করি এটা কোন মানুষ মেনে নেবে না। আর ওরা কালচারের বিষয় খুব সেনসেটিভ। এমন হতে পারে আপনার পেইজে অশ্লীল কোন ছবি। বা এমন কিছূ পোষ্ট যা অনেক পুরানো । যে গুলো দেখে ওরা আপনাকে আপডেট মনে করতে পারবে না।আপনি যতগুলো ব্লগে আপনার আর্টিকেল সাবমিট করবেন প্রত্যেক আর্টিকেল লিংক যেন আপনার পেইজে থাকে ।
২. স্যোসাল মিডিয়ায় একটিভ থাকুন সব সময়ঃ

আপনি আন্তর্জাতিক মানের এস ই ও স্পেশালিষ্ট হবেন আর আপনি সোস্যাল মিডিয়ায় একটিভ থাকবেন না। এটা আসলেই লজ্জার ব্যাপার । আপনাকে সব সময় যথা সম্ভব সোস্যাল মিডিয়াতে থাকতে হবে। আর আপনি সব সময় যে স্যোসাল মিডিয়া নিয়ে থাকবেন আপনি সব যায়গায় সেটার লিংক বেশি ব্যবহার করবেন। আরেক টা ব্যাপার হচ্ছে আপনি যে ব্লগ গুলিতে লিখবেন খেয়াল রাখতে হবে ওই ব্লগের বেশির ভাগ পাঠক এবং অনান্য লেখক গন কোন মিডিয়া সাইট ব্যবহার করেন আপনিও সেটাতেই একটিভ হোন ।কোন পাঠক বা যে কেউ কোন প্রশ্ন করলে সাথে সাথে জবাব দিন । সব ধরনর স্যোসাল মিডিয়া সাইটে একাউন্ট করুন । প্রত্যেকটার সারকেল, ফ্রেন্ডস বাড়ান। কিছু সোস্যাল মিডিয়ার লিংক

৩. সার্কেল বা ফেন্ডস বাড়ানোর কৌশলঃ
আপনি অনেক বড় মানের এস ই ও স্পেশালিশ্ট হতে হলে আপনার সোস্যাল মিডিয়া সাইট গুলোতে অনেক সার্কেল বাড়াতে হবে  অনেক ফ্রেন্ডস বাড়াতে হবে। আর সার্কেল বাড়ানোর কৌশল হিসেবে আপনি প্রতিদিন সব সাইট গুলোতে বিভিন্ন ধরনে লেখা পোষ্ট করবেন সেটা আপনার লেখা হোক বা কোথা থেকে কালেক্ট করা হোক । প্রতিদিন আপনাকে পোষ্ট দিতেই হবে । আপনি কাউকে ফলো করলে চলবে না । আপনাকে ফলো করতে হবে। আর আপনাকে ফলো করবে এমন ব্যবস্থাই করতে হবে আপনাকে । আর সব ধরনের আর্টিকেল লেখার নিচে আাপনার দু একটা স্যোসাল মিডিয়া সাইটের লিংক অবশ্যই দিবেন। আমাদের দেশে ফেসবুক যেটাকে আমি গন এক্সপ্রেস বলি ওটার মত করবেন না । এখানে দেখি অনেকেই দুটো ছবি দিয়ে বলে একটা লাইক একটা কমেন্ট । এখন আপনি কোথায় যাবেন? আবার বলে এদুটোর মধ্য কোনটা সুন্দর। আবার তারকার ছবি দিয়ে বলে এর ফ্যান আছেন কে কে? তাড়াতাড়ি লাইক মারেন । আবার দুইটা স্টার  এর ছবি দিয়ে বলে এ দুটোর মধ্য কাকে আপনার পছন্দ? কোন কিছু একটা পোষ্ট করে বলে দয়াকরে লাইক দিন । দয়া করে কমেন্ট করুন। আমি আপনাদের বলছি দয়া করে আপনারা এগুলো করবেন না। এতে মানুষ আপনাকে ভাল তো মনে করেই না বরং মনে করে আপনি একজন লাইক কমেন্ট ভিক্ষারী । আপনার পোষ্ট যদি ভাল হয় তাহলে আমি লাইক কমেন্ট না দিয়ে কই যাব। ফেসবুকে যাই করেন বিশেষ করে ফেসবুক ছাড়া অন্য সাইট গুলোতে এগুলো করবেন না? তাহলে আপনি ভবিষ্যতে যত কিছু লিখবেন কোন রেসপন্স পাবেন না। আপনি ভাল ভাল পোষ্ট দিন দেখবেন আপনার লাইক কমেন্ট চাইতে হবে না । পাবলিক আপনাকে লাইক করবে কমেন্ট করবে। সুতরং এই বিষয় গুলো সাবধান থাকবেন?
৪. নিজের জন্য ব্যক্তি গত ব্লগ করুনঃ
নিজের ব্যক্তিগত একটা ব্লগ করুন । এটা ফ্রি সাইট বা নিজে ডোমেইন নিয়ে করতে পারেন। এটাকে সুন্দর ভাবে সাজাবেন । এখানে নিয়মিত পোষ্ট করুন। নিজের ভাল ভাল ব্লগারদের লেখা কালেক্ট করে পোষ্ট করুন।এবং কয়েকজন ভাল ব্লগারদের একটা টিম করে সবাই মিলে একটিতে লিখুন।

৫. আন্তর্জাতিক মানের ব্লগ গুলিতে লেখুনঃ
আপনি আন্তর্জাতিক মানের এস ই ও স্পেশালিস্ট হতে হলে আপনাকে অবশ্যই আন্তর্জাতিক ব্লগ গুলিতে লিখতে হবে। আমরা বাংলাদেশীরা সাধারনত বেশী সার্চ দেই না বা বিভিন্ন কোচিং সেন্টার গুলোতে কোর্স করেই এস ই ও শিখতে পারি বা শিখি ।বিদেশীরা সাধারন এই সব কোর্স বা কোচিং এ বিশ্বাসী না এদের কোন কিছু জানার দরকার হলে এরা সাথে সাথে ওয়েব সার্চ দিয়ে বের করে ফেলে। বিভিন্ন ধরনের ব্লগ ঘাটাঘাটি করে শিখে । আমাদের তো রাস্তার মোড় মোড়ে অনলাইন ইনকামের কার্যালয়। যার মধ্য থেকে শুধু টাকা আর টাকা আসে । ওদের এত টাকা আসেনা তাই ওরা কোন কিছু খুজে বের করায় বিশ্বাসী । এর মাধ্যমে নিজে যেমনি অনেক কিছু শিখতে পারে আবার তেমনি যা শিখে তা অনেক দিন ধরেও রাখতে পারে।সুতরং আপনাকে প্রতিনিয়ত আন্তর্জতিক ব্লগ গুলিতে লিখতে হবে। এবং এই লেখার মাধ্যমেই হবে আপনার ব্রান্ড এবং আপনার এস ই ও এর কাজ আপনি আপনার আর্টিকেলের মধ্য এমন ভাবে আপনার লিংক দিবেন যাতে বুঝতে না পারে আপনি আসলে এস ই ও করছেন। তারা যেন আপনাকে প্রফেসনাল ব্লগার মনে করে।কোন ব্লগে আপনাকে বুঝানো যাবেনা যে আপনি আর্টিকেল মার্কেটিং করছেন বা এস ই ও করছেন । আপনি এস ই ও স্পেশালিষ্ট কিন্তু  আপনি যে ওয়েব সাইটের এস ই ও করেন সেটি একটি রেস্টুরেন্ট তাহলে আপনি এস ই ও সংক্রান্ত আর্টিকেলে কিভাবে রেস্টুরেন্ট রিলেটেড সাইটের লিংক দিবেন। দেখুন এটা একটা মজার বিষয়। বা আপনার মার্কেটিং এর একটা কৌশল বলতে পারেন। আপনি এ ক্ষেত্রে এ ভাবে লিখতে পারেন যে, ওয়েব সাইটের বর্র্ননার মধ্য যাতে কি ওয়ার্ড থাকে সেটা খেয়াল করতে হবে। যেমন আপনি এই সাইট টা দেখতে পারেন এইটা বলে আপনার লিংক টা দিবেন পরে আপনার সাইট সম্পর্কে সামান্য বর্ননা দিবেন যেমন বলবেন এখানে এদের পিজা হাট কি ওয়ার্ড এবং এই পিজা হাট এদের ডিসক্রিপশন এর মধ্য ও আছে এবং আপনি খুজে দেখুন প্রত্যেকটা কন্টেন্টে কি ওয়ার্ড গুলো দেয়া আছে সুতরং আপনি এভাবে আপনার লেখা লিখবেন এবং মাঝখানে আপনার ওয়েব সাইটের প্রচার হয়ে যাবে । ওরা বাংলাদেশীদের মত না  যে ওয়েব সাইট দেখলাম তার মধ্য ঢুকে কমেন্ট শুরু করলাম । ভিজিট করা শুরু করলাম। এটা ওরা কখনো করে না। আপনি বাংলাদেশী ব্লগ গুলোর মত লিখলে আপনার আইডি সহ ব্লক করে দিবে । অতএব আপনাকে লেখার সময় এটা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে। আন্তর্জাতিক কিছু ব্লগের লিংক পেতে এখানে ক্লিক করুন
৬. আন্তর্জাতিক ব্লগ গুলিতে কমেন্ট করুন, কারো কোন প্রশ্ন থাকলে উত্তর দিনঃ
আপনি যে ব্লগগুলিতে লিখবেন । ওই সব্ ব্লগগুলিতে অন্য লেখক দের লেখার উপর আপনি কমেন্ট করবেন। লেখক দের প্রশংসা করবেন। কারন আপনি কোন লেখকের প্রশংসা করলে সে অবশ্যই আপনার প্রশংসা করবে। এবং একজন ভাল এবং নিয়মিত ব্লগারের প্রশংসা হতে পারে আপনার এগিয়ে যাওয়ার অন্যতম মুলধন। বেড়ে যাবে আপনার পাঠক, জনপ্রিয়তা পাবে আপনার লেখা।কোন পাঠক যদি তার কমেন্টে আপনাকে কোন প্রশ্ন করে তবে আপনি ভালভাবে প্রশ্ন বুঝে তার চাহিদা মত জবাব দিন।

৭. আপনার ব্যক্তিগত ব্লগের মার্কেটিং করুনঃ
আপনার ব্যক্তিগত ব্লগের প্রচুর মার্কেটিং করুন। মার্কেটিং এর জন্য অনেক মাধ্যম আছে যেমন, প্রথমেই আপনি সকল সোস্যাল মিডিয়া গুলোতে আপনার ব্লগের নিয়মিত শেয়ার দিন। বাহিরের ব্লগ গুলিতে যে আর্টিকেল গুলো লিখবেন ওর মধ্য কৌশলে আপনার ব্লগের লিংক বসিয়ে দিন। গুরুত্বর্পূন আর্টিকেল গুলো অসম্পূর্ন বা কিছু হাইড করে বিস্তারিত জানার জন্য আপনার ব্লগের লিংক দিয়ে দিন। ব্লগ কমেন্টে  কেউ যদি আপনার কাছে বিস্তারিত জানতে চায় তবে আপনার লিংক তাকে দিয়ে দেন। আপনার ব্লগে ওই বিষয়টা অবশ্যই স্পষ্ট করে থাকতে হবে।
ধন্যবাদ সবাইকে
লেখায় কোন ধরনের ভূল হলে ক্ষমা করবেন।

  • Faysal Yousuf

    আপনার সাথে সবসময় একটি নোটপ্যাড সঙ্গে রাখুন।
    আপনি যেখানেই যান
    কোন আইডিয়া মাথায় এলে সাথে সাথে তা নোটপ্যাডে লিপিবদ্ধ করুন। =D

  • Imtiaz Ahmed

    thank’s vaia……………………?