কোয়ালিটি কন্টেন্ট লিখার অসাধারণ কিছু টুলস অ্যান্ড টিপস

Bns Bahar

Online Marketing Executive Manager at Civin Tech
লেখালেখি করতে ভালো লাগে তাছাড়াও লেখালেখি টাকে খুব উপভোগ করি ।সবার সাথে অভিজ্ঞতা শেয়ার করার চেষ্টা করি।
টিউন করেছেন Bns Bahar | March 29, 2016 02:47 | পোস্টটি 2,241 বার দেখা হয়েছে

যারা অ্যামাজন এফিলিয়শন কিংবা গুগল অ্যাডসেন্স নিয়ে কাজ করতে চায় অনেকেই কন্টেন্ট লিখার জন্য কাজে নামতে ভয় পায়।ভয়কে জয় করার জন্য যেভাবে হোক আপনাকে কন্টেন্ট লিখতে হবে। আপনি হয়ত জানেন কন্টেন্ট হল কিং(রাজা) কিন্তু আমি এটা বিশ্বাস করি না।আমার কাছে কোয়ালিটি কন্টেন্ট হল কিং (রাজা) । কন্টেন্ট  লিখতে হলে আপনাকে একটা ধারা মেইনটেইন করতে হবে। যেমন ঃ কোন বিষয়ের উপর আর্টিকেল লিখতে চাচ্ছেন সেই বিষয় খুঁজে বের করা অর্থাৎ কিওয়ার্ড রিসার্চ , কম্পিটিটর এনালাইসিস, সার্চ ভলিউম , সাজেসটেড বিড ইত্যাদি দেখে কিওয়ার্ড বাছাই করতে হবে।

শুধু  আর্টিকেল লিখলেই হবে না। আর্টিকেলে গ্রামার ভুল,বানান ভুল এগুলো অবশ্যই সংশোধন করতে হবে। এগুলো সংশোধন করার জন্য অনেক ফ্রি সফটওয়্যার আছে। আর্টিকেলটি কত পারসেন ইউনিক তা অবশ্যই চেক করতে হবে। আমার কাছে ৯০% ইউনিক হলে আর্টিকেলটি বেস্ট মনে হয়। ওভারআল আপনার কন্টেন্ট যাতে এঙ্গেজমেণ্ট হয় সেদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে। কিওয়ার্ড রিসার্চ করে টপিকস খুঁজে পেলেন। এখন এই টপিকস এর গুগল ট্রেন্ড অবশ্যই দেখে নিবেন। ট্রেন্ড যদি নিচের দিকে নামে তাহলে এই কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ না করাটাই ভাল। যেগুলোর ট্রেন্ড উপরের দিকে উঠে সেই কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ করা উচিত।

001

যেই টপিকস খুঁজে পেয়েছেন সেই টপিকস নিয়ে আপনি কিছুই জানেন না।কিন্তু কিভাবে লিখবেন ১০০০ ওয়ার্ডের আর্টিকেল ? আমরা আর্টিকেল লিখানোর জন্য রাইটার খুঁজি এবং টাকা ইনভেস্ট করি। আমি সাজেস্ট করব আপনার ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগ সাইটের জন্য কিছু আর্টিকেল নিজে লিখেন এবং কিছু রাইটার দিয়ে লিখিয়ে নিন এতে করে ইংরেজির উপর আপনার দক্ষতা বাড়বে সেই দক্ষতাটা অ্যামাজন এফিলিয়েশন কিংবা মার্কেটিং সেক্টরে অবশ্যই কাজে লাগবে। তাছাড়া  আপনার ইংরেজি স্কিল ডেভেলপ করার জন্য এই ওয়েবসাইটগুলো নিয়মিত ফলো করতে পারেন।

  1. http://www.bbcjanala.com/
  2. http://www.englishfor2day.com/
  3. http://www.englishgrammarsecrets.com/
  4. http://www.elearnenglishlanguage.com/blog/

আপনাকে আর্টিকেল লিখতে হলে অবশ্যই সেই বিষয়ের উপর ধারনা তৈরি করতে হবে প্লাস স্টাডি করতে হবে। বিষয়ভিত্তিক লেটেস্ট আর্টিকেলগুলো সম্পর্কে ধারনা পেতে আপনাকে ব্রাউজারের সার্চবারের “সার্চ টুলস” থেকে সময়টা সিলেক্ট করতে হবে। সময় সিলেক্ট করে দিলে এই সময়ের মধ্যে এই টপিকসের যতগুলো আর্টিকেল পাবলিশ হয়েছে সবগুলো দেখাবে এবং আপনি সহজেই ধারনা পেতে পারেন।

কিছু সফটওয়্যার যা আপনার কাজে লাগতে পারে 

১) হেডলাইন চেকার ঃ একটা আর্টিকেলের হেডলাইন বলে দেয় আর্টিকেলটি কতটা এঙ্গেজমেণ্ট । আপনি খুব ভাল করে একটা আর্টিকেল লিখলেন কিন্তু এমন একটা হেডলাইন দিলেন যা দেখে কেউ ক্লিক করল না । তাতে আপনার লাভ হল না।হেডলাইনে কমনওয়ার্ড (২০–৩০%) , আনকমন ওয়ার্ড (১০–২০%) , ইমোশনাল ওয়ার্ড (১০–১৫%)এবং পাওয়ার ওয়ার্ড ইউজ করলে হেডলাইন বেশি ইফেক্টটিভ হয়। ভিজিটর সহজেই ধরে রাখা যায়।

common

২) গ্রামারলিঃ ফ্রিতে সবচেয়ে মজার একটি টুলস। আর্টিকেলের গ্রামার ও বানান ঠিক করতে পারবেন সহজে।গ্রামারলি ব্যাবহার করার জন্য ব্রাউজারে গ্রামারলি এক্সটেনশনটি অ্যাড করে নিন এবং গ্রামারলিতে ফ্রি তে একটা অ্যাকাউন্ট করে নিন। ইচ্ছামত ব্যাবহার করেন।

৩) ইউনিকঃ গুগল ডুপ্লিকেট কন্টেন্ট পছন্দ করে না।ডুপ্লিকেট কন্টেন্ট ব্যাবহার করলে ভাল সাইটও রেঙ্ক হারাতে পারে। কন্টেন্ট এর ইউনিক চেক করার জন্য অনেক টুলস আছে । যেমন ঃ স্মল এসইও টুলস , কপি স্কেইপ, ডুপ্লিচেকার ইত্যাদি। কন্টেন্ট ৯০% ইউনিক হলে সাইটে সহজেই ব্যাবহার করা যাবে।

৪) রিডাবিলিটি টেস্ট ঃ আপনার আর্টিকেলের ভাষাটা কতটা সহজ । কোন কোন বয়সের মানুষ আপনার আর্টিকেল টা সহজেই গ্রেব করতে পারবে।রিডাবিলিটি টেস্টে যদি স্কোর ৯০-১০০% আসে তাহলে আপনার আর্টিকেলটা পড়ে সহজে সবাই বুঝতে পারবে। রিডাবিলিটি স্কোর বেশি হওয়া ভাল। একচুয়ালি যখন লাইভ প্রজেক্টে কাজ করবেন তখন সহজেই বুঝতে পারবেন। সবগুলো ক্রাইটেরিয়া ফলো করে কন্টেন্ট লিখলে আশা করি ভালো হবে।

কমেন্টে আপনার মতামত জানাতে ভুলবেন না । ভালো লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন।
ফেইসবুকে আমি ……

  • Golam Sarwar Jewel

    artical ti khob valo legese. affiliation somporke darona paoa gelo

  • Saleh Ahmed

    Article Spinner use করলে কেমন হয়। তা কি গুগল গ্রহণ করবে অনুগ্রহ করে জানালে কৃতার্থ থাকব।