আমার ফ্রিলেন্সিং জীবনের কিছু ইতি কথা।

টিউন করেছেন sayemshikder | April 9, 2014 01:29 | পোস্টটি 1,263 বার দেখা হয়েছে

আমার ফ্রিলেন্সিং জীবনের কিছু ইতি কথা।


নতুনরা পরতে পারেন এবং পুরাতন রাও পরতে পারেন। অনেক কষ্ট হইলো লিখতে।
1004958_10202497294626858_378154582_nআমার সম্পূর্ণ নাম “ জুবায়ের রহমান সায়েম“। আমার ডাক নাম সায়েম। আমি সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং এর একজন নিয়মিত ছাত্র। এতো কিছু বলতে পারবো না মেইন পয়েন্টে এ আসি। :P আমার ফ্রিলেন্সিং জীবন শুরু হয় ২০১২ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে। ফ্রিলেন্সিং করার আগে আমি ডুলেন্সার এর মত কিছু পিটিসি সাইট এ কাজ করতাম। কিন্তু দুঃখের বিষয় ২ মাস ক্লিক করার পরেও কোন টাকা ক্যাশ করতে পারি নাই। আমার ৩১০০ টাকা জলে গেলো আর কি। প্রথম কাজ করতে গিয়েই ছেকা খেলাম। :D এর পরে ঢুকলাম অডেস্ক এ। অডেস্ক প্রোফাইল এর পূর্ণতা কিভাবে করা লাগে জানতাম না। অনেক বড় ভাই এর কাছে সাহায্য চেয়েছি কিন্তু অধিকাংশই ব্যস্ততা দেখাইছে। যাই হোক এইটা ব্যপার না ব্যস্ত থাকতেই পারে। J শুরুতে আমি কারো কাছে সাহায্য পাই নাই বললেই চলে। আমার খালাতো ভাই এবং আমি পরে একসাথে পরামর্শ করে প্রোফাইল বানাইলাম।  অডেস্ক এ আমি প্রথম কাজ পাই ১৪ ডিসেম্বর ২০১২ সালে।  প্রথম কাজের ইনকাম ছিলো ১ ডলার। J তখন কোন কাজ পারতাম না কিন্তু ইন্টারনেট ভালোই চালাইতে পারতাম। আমি ক্লাস ৬ কি ৭ থেকে মোবাইল এ ইন্টারনেট চালাই ২০০৬  কি ২০০৭ সাল থেকে। আমার প্রথম ফেসবুক একাউন্ট খুলি ৩০ অক্টোবর ২০০৮ সালে।

আমার আবার কম্পিউটার বেসিক সম্পর্কে ভাল জ্ঞান ছিলো। আলহামদুলিল্লাহ্‌। ছোট বেলা থেকেই আমি কাজিনদের কম্পিউটার  চালাতাম। একটা কথা বলে রাখি আমার কম্পিউটারের প্রতি নেশা ছিলো ছোট বেলা থেকে। যাই হোক সেই দিকে না যাই। প্রধান পয়েন্ট এ আসি।

আমি ল্যাপটপ কিনি ২০১২ সালে। আমি অডেস্ক এ কাজ করার জন্য প্রথমে SEO (Search Engine Optimization) শিখা শুরু করছিলাম টিউটোরিয়াল দেখে এবং বিভিন্ন আর্টিকেল পরে। কিছুটা জ্ঞান অর্জন করে ছিলাম কত দিন ঘাটা ঘাটি করার পর। এর পর আমি ফোরাম পোস্টিং এর কাজ শুরু করি। ঘন্টায় প্রথমে ২ ডলার ছিলো। পরে ১ মাস কাজ করার পর ৪ ডলার এ করি। আমি MS OFFICE এর কাজেও এপ্লাই করতাম। MS OFFICE সম্পর্কে বেসিক ছিলো। MS OFFICE এর ও কাজ করলাম কতদিন। ভালো লাগলো না দুইটার একটাও।

এর কিছুদিন পরে ধরলাম Graphic Design শিখা টিউটোরিয়াল দেখে দেখে। অনেক টিউটোরিয়াল দেখেছি Graphic Design এর। আমি পারলে ১৮ ঘণ্টাই বসে থাকতাম ল্যাপটপের সামনে। ১ মাস কিছুটা শিখার পর কাজ শুরু করে দিলাম। রাস্তা দিয়ে হাটার সময় বড় বড় বিল বোর্ড গুলা দেখতাম এবং মনে মনে বলতাম হালায় এইডা বানাইছে কেমনে। হেহে।  আমার আবার একটা বদ অভ্যাস আছে। কোন কিছু সম্পর্কে মোটামুটি জ্ঞান অর্জন করার পর সেইটার কাজ না পাওয়া পর্যন্ত আর কিছু শিখতাম না। আস্তে আস্তে আস্তে ভালই Graphic Design পারতাম। কিছুদিন Graphic Design শিখার পাশা পাশি কাজ করতে থাকলাম Odesk এ। এইভাবেও গেলো কিছুদিন। পরে দেখলাম Graphic Design এর কাজ করে মজা পাচ্ছিনা। একটা কথা আছেনা “তোমার যেই কাজ করতে ভালো লাগে সেইটাই কর”।  কিন্তু কি যে ভালো লাগে সেইটাই বুঝে উঠতে পারতে ছিলাম না।  তখন করতে থাকলাম জগা খিচুড়ি মার্কা কাজ। Google Adsense, Infolink PTC System, Affiliate marketing ইত্যাদি  গুলা নিয়াও গুতা গুতি করলাম কিছুদিন। পরিশ্রমের কথা আর নাই বললাম। J

এই সব জগা খিচুড়ি মার্কা কাজ নিয়াই বিভিন্ন Market Place (oDesk, Elance, Freelancer.com, Fiverr etc) এ Account খুলে ফেললাম। কিন্তু কাজ করতাম শুধু oDesk এ। oDesk থেকে ইনকাম করলাম ৫২৭.১৪ ডলার ১৪ ডিসেম্বার ২০১২ থেকে ২৭  ফেব্রুয়ারি ২০১৩ এর মধ্যে। এর পর আমার oDesk Account Suspend হইলো কোন এক কারনে। পরে নিয়ত করলাম কাজ ভালো মত শিখে তার পর আবার oDesk এ Account খুলবো। কিন্তু তার এক সপ্তাহ পরেই আরেকটা Account খুলি। কাজ শুরু করি নাই আবার তখন।

সব কিছু বিস্তারিত বললাম না উপরে যা আলোচনা করলাম। তাহলে অনেক বড় আর্টিকেল  হয়ে যাবে।

এখন আসি আমার বর্তমান কাজের আলোচনায়। এখন কাজ করি Web Development এর। কিভাবে শিখা শুরু করলাম Web Development নিচে সামান্য আলোচনা করতেছি।

বিভিন্ন ব্লগ ফোরাম রিসার্চ করে দেখলাম Web Development এ ভালো চাহিদা। শিখা শুরু করে দিলাম বিভিন্ন ব্লগ ফোরাম এবং কিছু বড় ভাই এর পরামর্শ অনুসারে। প্রথমে শিখা শুরু করলাম HTML। HTML শিখা শুরু করছি webcouchbd.com থেকে। পরে আর্টিকেল দেখতে থাকলাম অন্যান্য সাইট গুলায় w3schools, w3resource আরো অনেক সাইট থেকে দেখে চর্চা শুরু করে দিলাম। HTML and CSS এইভাবে কিছুদিন আর্টিকেল পরে দেখতে থাকলাম কিন্তু কিভাবে Layout  তৈরি করে ব্যাপারটা ধরতে পারতেছিলাম না। পরে ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখা শুরু করি lynda.com, tutplus, udemy, al-hera bd, BD geeks আরো অনেক টিউটোরিয়াল। Youtube ঘেটে চর্চা করতে থাকলাম কিছুদিন। কিন্তু Layout তৈরির আইডিয়া টা পাইতেছিলাম না ভালো মত। Layout তৈরি করতে পারতাম কিন্তু অনেক বেসিক লেভেলের। আমি এই Web Development শিখার পিছনে অনেক সময় ব্যয় করেছি এবং অগনিতো টিউটোরিয়াল দেখেছি।
পরে টিউটরিয়ায়ল দেখা শুরু করলাম RRfoundation এর। যার প্রতিষ্ঠাতা রাসেল আহমেদ ভাই। আমার শ্রদ্ধেয় গুরুজন। আমি তার কাছে বলতে গেলে অনেক বেশী ঋণী। আমার ইচ্ছা আছে RRfoundation এর জন্য কিছু করার এবং আমি কিছু করবোই ইনশাআল্লাহ্‌। J রাসেল ভাই এর টিউটোরিয়াল দেখে দেখে প্র্যাকটিস করা শুরু করে দিলাম। আমার HTML and CSS সম্পর্কে মুটামুটি জ্ঞান থাকায় আমি অনেক তাড়াতাড়ি ওয়েব সাইট বানানো শিখে গেলাম। এর পর থেকে আমি রাসেল ভাই এর সব টিউটোরিয়াল দেখা শুরু করি। যেইটাই নতুন রিলিস করে সেইটাই দেখে ফেলতাম। রাসেল ভাই এর টিউটোরিয়াল দেখার পর থেকে আমার কাছে সব কিছু অনেক সহজ মনে হওয়া শুরু করলো। পরে মনে মনে বললাম “হাইরে এতো সহজ জিনিস। যাই হোক আরো দেখতে থাকি” । পরে রাসেল ভাই টিউটোরিয়াল দেখার পাশা পাশি আরো অনেক ধরনের Advance Level এর Tutorial দেখা শুরু করলাম like Drupal, Magento, Prestashop, Ecommerce ইত্যাদির। এইভাবে চলতে থাকলো।

এখন oDesk  এ প্রোফাইল কমপ্লিট করলাম as a Web developer.  আমি Odesk এ প্রথম কাজ পাইলাম April 2013 সালে । “Revamping Website, and some PSD work” এই টাইটেল এর যব। ১৬ ডলার ঘন্টা প্রতি। কাজ টা শেষ করার পর বায়ার আমাকে Feedback দিলো ৫ স্টার এবং এই কমেন্ট “Zubayer was an absolute pleasure to work with.  He has excellent skills, is a wonderful comnunicator, works very quickly, and is always eager to go above and beyond what was asked.  I would have total confidence in hiring him again–in the several years of using Odesk, he is by far one of the best agents I have worked with.  Thank you for your great work–I look forward to hiring you many times in the future!” ।

পরে HTML/CSS দিয়াই Bigcartel,Magento, WordPess, Drupal, Paypal Integration ইত্যাদির কাজ করতে থাকলাম। Big Cartel, Magento and WordPress এর কাজ করতাম Google মামা এবং Youtube মামির সাহায্য নিয়ে। সার্চ করে বাইর করে ফেলতাম কেমনে কি করা লাগবে। পরে দেখা শুরু করলাম রাসেল আহমেদ ভাই এর WordPress টিউটোরিয়াল। এবং এর পাশা পাশি আরো অনেক টিউটরিয়াল দেখা শুরু করলাম WordPress নিয়ে।  অনেকদিন দেখলাম  JavaScript and Jquery. তার পরে দেখা শুরু করলাম PHP and MySQL নিয়ে টিউটোরিয়াল lynda, thenwbotson, Udemy, W3schools, w3resource আরো অনেক কোম্পানির টিউটরিয়াল। JavaScript, Jquery, PHP and MySQL নিয়ে ভালই ঘাটা ঘাটি করলাম। মুটামুটি ধারনা আসলো এইসব ল্যাংগুয়েজ সম্পর্কে।

রাসেল ভাই এর টিউটোরিয়াল দেখার পাশা পাশি Freelancer.com, Elance, Fiverr, Seoclerk, Peopleperhour কাজ পাওয়ার জন্য চেষ্টা করতে থাকলাম। আমার চেষ্টা থামায় কে। হেহে । oDesk, Freelancer.com, Fiverr, Elance এ কয়েকটা কাজ করলাম।  আলহামদুলিল্লাহ্‌ সব গুলায় ভালই Feedback অর্জন করতে পারছি।

এর পরে কাজ শুরু করালাম Peopleperhour এ। প্রথম কাজ পাইলাম 29 Oct 2013 সালে। peopleperhour মার্কেট প্লেসের কাজের Rate ভালো দেখে এইখানেই কাজ করা শুরু করে দিলাম অন্যান্য সাইট বাদ দিয়ে।

এইসব শিখার পর ইচ্ছা হইলো Hacking শিকবো। ব্যাস শুরু করে দিলাম গুতা গুতি। কয়েকদিন ভালই দেখলাম কিন্তু পরে বুজলাম Hacking শিখাটা একার পক্ষে সম্ভব না। তাই বাদ দিলাম।

কিছু টাকা ইনকাম করার পর ইচ্ছা হইলো PHP Codeigniter Framework শিখার। এইটা নিয়াও গুতা গুতি শুরু করে দিলাম। Youtube দেখে দেখে কিছুটা ধারনা নেওয়ার পরে দেখি একা শিখা সম্ভব না। পরে BDjobs নামে একটা ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হলাম। ১ মাসের কোর্স ছিলো। PHP and MySQL সম্পর্কে কিছুটা ধারনা থাকার ফলে আমার বুজতে সমস্যা হইলো না। পরে কিছুদিন এইটা নিয়ে চর্চা করলাম। এবং Peopleperhour এ একটা Hourlie সেল করলাম Codeigniter Framework নিয়ে ২০০ ডলারের। পরে দেকলাম Codeigniter এ সময় বেশী লাগে কাজ করতে, পরে ভাবলাম Codeigniter বাদ দেই । যেই কথা সেই কাজ। পরে ভালো মত কাজ করা ধরলাম WordPress নিয়ে।  আস্তে আস্তে অনেক কাজ করে ফেললাম like Responsive Design, WordPress theme development, WP theme customization, Stripe Payment gateway integration, PHP site development ইত্যাদির।

Peopleperhour এ 29 Oct 2013 থেকে কাজ শুরু করে এখন এপ্রিল মাসে আমার অবস্থান ৭ নাম্বারে। এবং CERT 4 এ আছি। কিছুদিনের মধ্যে ইনশাআল্লাহ্‌ CERT 5 এ জাবো আশা রাখি। দুয়া করবেন সবাই।

অনেক বড় আর্টিকেল হয়ে গেছে। তাই অল্পতেই আলোচনা করলাম আমার ফ্রিলেন্সিং জীবনদের ইতি কথা নিয়ে।

বিঃ দ্রঃ আমি অনেক কিছুই বলিনাই আমার কাজ শিখার বেপারে। কতটুকু খাটছি এবং কতটুকু সময় দিছি কাজ শিখার পিছনে। বলতে গেলে ২৪ ঘন্টাই লেপ্টপের সাথে ফেবিকলের আঠার মত লাইগা থাকতাম এবং থাকিও হেহে।  কারন আমার কাছে প্রোগ্রামিং করতে ভালো লাগে। তাই কখনো হতাশ বা নিজেকে ক্লান্ত মনে করি না। মানুষ তো কতকিছুই বলে কিন্তু সবাই তো আর আইনস্টাইন নিউটন না যে সবার কথা গুরুত্ব দিতে হবে নিজে কিছু অর্জন করতে পারলে এবং কাউকে কিছু শিখাইতে পারলে আত্মতিপ্তি পাওয়া যায়।  আমার ভালো লাগে আমি করতেছি। এবং সব থেকে বড় কথা আমি আমার বাবা মা এর কাছে থেকে সাপোর্ট পাই বা পেয়ে আসতেছি ভালো জিনিস যেকুনো কিছুতেই আল্লাহ্‌ তাদের শান্তিতে রাখুক।

আল্লাহ্‌ হাফিজ

আমার ফেসবুক লিঙ্কঃ https://www.facebook.com/kingsayem