অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ও শুরুর দিকের কিছু কথা

sunny

আমি সৈয়দ মোহাম্মদ আল ফে সানি। শিখতে ভালোবাসি তাই শেখা টাকেই পেশা হিসেবে নিয়েছি। বর্তমানে সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজার ( এস,ই,ও প্রফেসনাল ) তথা ইন্টারনেট মার্কেটার হিসেবে জীবন যাপন করছি। সময়ে সময়ে ব্লগিং এর মাধ্যমে নিজের শিক্ষার বিভিন্ন অংশ গুলো আপনাদের মাঝে তুলে ধরতে পছন্দ করি !
টিউন করেছেন sunny | June 21, 2015 12:59 | পোস্টটি 1,634 বার দেখা হয়েছে

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং !!! বিষয়টা বাংলাদেশে দেশে তেমন পুরানো নয়, তবে বিগত  কয়েক বছরে এদেশের আউটসোরসিং জগতে অনেক খানি জায়গা করে নিয়েছে এটি। বলতে গেলে বর্তমানে আউটসোরসার তথা ইন্টারনেট মার্কেটার দের প্রথম কয়কটি পছন্দের মধ্যে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং একটি।

Affiliate Marketing

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কি?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হচ্ছে একটি মার্কেটিং প্রসেস যার মাধ্যমে আপনি কোন কোম্পানির নিদ্রিস্ট কিছু পণ্যকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রচার প্রসার কোরে বিক্রি করিয়ে দিবেন এবং এতে করে সেই কোম্পানির বিক্রিত পণ্যের লভ্যাংশ থেকে একটি নিদ্রিস্ট পরিমান অংস আপনি পাবেন।আর এটাই হচ্ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে ইনকামের রাস্তা।

উদাহরণ দিয়ে বলতে গেলে, ধরুন এক জনের জায়গা অন্য একজন বিক্রি করে দিলে জায়গার মালিক বিক্রেতাকে জায়গায় বিক্রয় ক্রিত মুল্লের উপর কিছু কমিশন দিয়ে থাকেন। আর সেই কমিশন হচ্ছে বিক্রয় কারির আয়, ঠিক এমন টাই হচ্ছে অ্যাফিলিয়েশন।

সহজ কথায়, ইন্টারনেটের দ্বারা অন্যের পণ্য বিক্রয় করিয়ে দেওার মাধ্যমে আয় করার উপায় হোল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।

বিঃদ্রঃ অনেক দিন ধরে আপনি আউটসোরসিং করে আয় করতে আগ্রহী, আর এখন আপনি জেনেও গেছেন যে অ্যাফিলিয়েশন থেকে ভালো পরিমানে আয় করা যায়। তাই এখনি আপনি অ্যাফিলিয়েশন সুরু করে দিতে চান এবং ইতিমধ্যে এটা নিয়ে বিভিন্ন স্বপ্ন বোনা সুরু ও করে দিয়েছেন! তাহলে ভাই একটু থামেন, আপনার শাথে কিছু কথা আছে। এখানে আসেন ……………….

listen-to-me

শুরুর দিকের কিছু কথা

যদি আপনি সুনে থাকেন অ্যাফিলিয়েশন থেকে ভাল পরিমানে আয় করা যায় এবং এই কারনেই আপনি এখান থেকে আয় করতে ইচ্ছুক তাহলে আমি বলবো আপনি ভুল দিকে পা বারাচ্ছেন !

আপনি হয়তো ভাবছেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে শুরুর দিক থেকেই আয় এর রাস্তা চালু তাহলে জেনে রাখুন, এর পরিনাম শুধুই হতাশা।এটি শুরু করার আগে আপনাকে অবশ্যই কিছু ব্যাপার নিয়ে ভাবতে হবে এবং এর পর কিছু ধাপ পারি দিতে হবে, তারপর আপনি আয় এর কথা ভাবতে পারেন। কারন এটা এমন কোন জিনিস না যা আপনাকে রাতারাতি কোটিপতি করে দিবে। তবে আপনি যদি সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে সেই ধাপ গুলো পারি দিতে পারেন তাহলে অবশ্যই এখান থেকে আপনি আপনার কাংখিত লক্ষে পওছাতে পারবেন। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে আমার লিখা এই অংশে সেই সব ধাপের কথাই আলোচনা করা হয়ছে যা আপনাকে হতাশা থেকে মুক্তির পথে নিয়ে এসে সফলতার দিকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে!

বিঃদ্রঃনিম্মক্ত কথা গুলো সুধু বিগিনার দের জন্য নয় বরং তাদের জন্য ও যারা এই রাস্তায় অনেক সময় পার করেও আশার আলো দেখতে পারেনি!

Staircase and red carpet

ধাপ সমূহ

  • এখান থেকে ক্যারিয়ার শুরু করার আগে আপনাকে নিজের তথা এই ক্যারিয়ার সম্পর্কে সিরিয়াস হতে হবে।আপনাকে বুঝতে হবে আসলে আপনি কি করতে যাচ্ছেন।
  • টাকা আয় করা যায়, শুধু এটা যেনেই মাঠে নেমে যাওয়া যাবেনা। আগে আপনাকে এই বিষয়ে যথেষ্ট নলেজ রাখতে হবে।কারন, আপনার কাজ সম্পর্কে নলেজ না থাকলে ঐ কাজ দিয়ে আপনি করবেন কি!আপনাকে এই বিষয়ে শিখতে হলে যা যা করতে হবে………
  1. বিভিন্ন ব্লগ বা আউটসোরসিং সাইটের আর্টিকেল স্টাডি করতে পারেন।
  2. নেট থেকে বিভিন্ন ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখতে পারেন।
  3. অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে এমন(বিশ্বস্ত) কারো সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।
  4. দেশের বিশ্বস্ত আউটসোরসিং ট্রেনিং সেন্টারে যোগাযোগ করতে পারেন।
  • শিক্ষার কোন শেষ নাই। আপনি যদি এটাকেই আপনার ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চান তাহলে শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত শিখার মানুষিকতা তইরী করে ফেলুন।
  • কাজ শিখার পাশাপাশি আপনার ভবিষ্যতের লক্ষ্য তৈরি করে ফেলুন! লক্ষ্যই এমন একটা জিনিস যা আপনাকে দ্রুত সামনের দিকে এগুতে সাহায্য করবে।
  • ভুল হবেই তাই বলে হতাশ হলে চলবেনা, ভুলথেকে নতুন কিছু শিখার মানুষিকতা রাখতে হবে। মনে রাখবেন, যতই ভুল করবেন ততোই আপনি অভিজ্ঞ হবেন!
  • ভুল করা এবং এগিয়ে জাওয়ার সাহস রাখতে হবে।
  • সময়ের সাথে থাকুন, সময় কে আপনার কাছ থেকে এগিয়ে যেতে দিবেন না।
  • স্বপ্ন দেখুন ও কাজ করুন।

start_up+lampadina_03

কাজ শুরু

অনেক তো ধাপ পারি দিলেন। এবার তাহলে কাজে আসা যাক, কি বলেন? তবে কাজ সুরু করার আগে আপনাকে বলে রাখি, আপনি কিন্তু ইতোমধ্যে ৫০% কাজ শেষ করে ফেলেছেন! কি অবাক হচ্ছেন? অবাক হবার কিছু নেই! আপনি যখন উপরোক্ত ধাপ গুল পারি দিয়ে এসেছেন তখনি আপনার ৫০% কাজ শেষ। এখন শুধু আয় করার জন্য ৫০% কাজই যথেষ্ট। কি, বিশ্বাস হচ্ছেনা? ওকে, আসেন বুঝিয়ে বলি…………

ধরেন আপনি একজন কাঠুরে। আপনার কাজ কাঠ কাটা। আপনি কুরালের সাহায্যে গাছ থেকে কাঠ কাটেন। এখন গাছ কাটার আগে আপনাকে একটা কাজ করতে হয় সবসময় আর তা হলো কুরালে ধার দেওয়া। কারন, আপনার সরিলে যত শক্তি-ই থাকুকনা কেন কুরালে যদি ধার না থাকে তাহলে গাছ থেকে কাঠ সহজে কাটতে পারবেন না। এই কারনে কুরালে ধার দিয়ে আপনি আপনার কাজকে সহজ করে ফেলেন। ঠিক তেমনি, উপরোক্ত ধাপ গুল পারি দেওয়া মানে আপনার কুরালে ধার দেওয়া । এখন আপনি নিয়ম মেনে ড্রাইভ দিলেই ৫০% এ ১০০% অউটপুট পাবেন যা আপনাকে খুব দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাবে। এখন কিভাবে ড্রাইভ দিবেন তা সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হোল।

কাজের প্রাথমিক ধাপ সমূহ

  1. নিস বাছাইঃপ্রথমে আপনাকে একটি নিস টপিক বাছাই করতে হবে। নিস বলতে সাধারনত ক্যাটাগরি কে বুঝায়।আপনি কাজের জন্য যে ক্যাটাগরির পণ্য বাছাই করবেন সেই কেতাগরি-ই হচ্ছে আপনার পণ্যের নিস। নিস বাছাই করার সময় অবশ্যই আপনাকে সতর্ক হতে হবে।ভুল নিস বাছাই করে কখনই ওখান থেকে আপনি ভালভাবে আয় করতে পারবেন না। নিজেকে কতোগুলো প্রশ্ন করলেই আপনি আপনার জন্য উপযুক্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন। প্রশ্ন গুলো হোল…

i)       বর্তমানে এই ক্যাটাগরির পণ্যের চাহিদা কেমন?(দেশ,কাল,সময় ভেদে পণ্যের চাহিদা নির্ভর করে)

ii)    সার্চ ইঞ্জিনে এই নিস বা এই ক্যাটাগরির জন্য কেমন সার্চ পরে?

iii)  যদি এই নিসে কোন সমস্যা থাকে তাহলে কি আমি তা সমাধান কোরতে পারব?

iv)  এই নিস টপিক টা কি আমার নলেজের মদ্ধে আছে?বা এই নিস সম্পর্কে আমার যতটুকু ধারনা আছে তা দিয়ে কি আমি এখানে লাভবান হতে পারব?

v)     এই নিসের কম্পিটিসন হাই থাকা অবস্থায় আমি কি কোয়ালিটি কন্টেন্ট দিয়ে ভালো করতে পারব?

  1. পণ্য বাছাইঃ নিস বাছাই করার পর সেই নিস ক্যাটাগরির থেকে পণ্য বাছাই করতে হবে যা দিয়ে আপনি অ্যাফিলিয়েশন করতে চান। আপনি বিভিন্ন ই-কমার্স সাইট এবং বিভিন্ন অ্যাফিলিয়েশন মার্কেট প্লেস থেকে আপনার নিস ক্যাটাগরির পণ্যের লিঙ্ক নিতে পারবেন। নিচে কিছু অ্যাফিলিয়েট নেটওয়ার্ক সাইটের নাম দেওয়া হল………
  • Clickbank
  • JVZoo
  • Commission Junction
  • Linkshare
  • Shareasale
  1. জমি তৈরিঃ এখন আপনার জন্য কনফিউসিং এবং কঠিন একটা ধাপ অপেক্ষা করছে আর তা হোল অ্যাফিলিয়েশন এর জন্য নিজের সাইট তৈরি। প্রথমে আপনি ব্লগ এর মাধ্যমে ফ্রি তে কাজ চালিয়ে নিতে পারেন তবে এটি লং টাইমের জন্য লাভ জনক হবেনা। সবথেকে ভালো হয় প্রাথমিক ভাবে ওয়ার্ড প্রেস এর মাধ্যমে নিজের জন্য সাইট তৈরি করলে।
  2. কন্টেন্ট তৈরিঃ সাইত তৈরি হয়ে গেছে? তাহলে এবার আপনার সাইটের জন্য নিস এর ক্যাটাগরি অনুযায়ী কন্টেন্ট তৈরি করুন। কন্টেন্ট অবশ্যই সাইট রিলেভেন্ট এবং নিয়মিত হতে হবে।
  3. মার্কেটিং / প্রমোটঃ যখন আপনার সাইট সম্পূর্ণ হোয়ে যাবে তখন আপনার সাইট কে প্রমোট করা শুরু করুন যাতে রিলেভেন্ট কন্টেন্টের মাধ্যমে আপনার সাইটে ভিসিটর আসে এবং তা হতে পারে আপনার সম্ভাব্য কাস্টমার।
  4. প্রমোট & প্রমোটঃ প্রতিনিয়ত আপনার সাইট কে সার্চ ইঞ্জিনে অপ্টিমাইজ করুন এবং বিভিন্ন রিলিভেন্ট যায়গায় প্রমোট করতে থাকুন।

 Keep Trying

এতো সব কিছুর পর যদি এখনো কোন বিষয়ে কনফিউসন থাকে তাহলে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। প্রথম থেকে আবার ধাপ গুলো সচেতন ভাবে আনুশরন করুন এবং করতে থাকুন। কারন, সফলতার একটাই রাস্তা আর তা হোল সঠিক রাস্তায় চেস্টা চেস্টা এবং চেস্টা!

  • http://www.facebook.com/shamim.draft Shamim Gypsy

    Informative! thx but take care of spelling. Go ahead.

    • Alfa Sunny

      ধন্যবাদ আপনার মূল্যবান মন্তব্যের জন্য :)