গুগল অ্যাডসেন্স এর সেরা ১০টি টিপস – কি করবেন কেন করবেন কিভাবে করবেন এই নিয়ে

ZubyTech

জুবিটেক ব্লগিং কমিউনিটি গড়ে উঠছে টেকনোলজি এবং ব্লগিংকে ঘিরে। সবসময় টেক, অ্যান্ড্রয়েড, প্রোগ্রামিং, টিউটোরিয়াল, ওয়ার্ডপ্রেস সহ আরও অনেককিছু সম্পর্কে আপডেটেড থাকতে ভিজিট করুন http://www.zubytech.com
টিউন করেছেন ZubyTech | February 13, 2015 10:46 | পোস্টটি 983 বার দেখা হয়েছে

সবাইকে স্বাগতম আরও একবার আমাদের ব্লগে। আজকে আমাদের আর্টিকেল গুগল অ্যাডসেন্স এর বিষয়ে। তাহলে চলুন আমরা শুরু করি।
 
আপনি কি আপনার সাইটের কন্টেন্ট থেকে অ্যাডসেন্স এর মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে চান? যদি তাই হয় তাহলে এখানে আছে কিছু গুরুত্বপূর্ণ টিপস যা আপনি কোনো মতেই করতে পারবেন না, পারবেন যদি হারাতে চান আপনার সাধের অ্যাডসেন্স একাউন্টটি ! ক্লিক জালিয়াতি গুগল সমর্থন করে না। ক্লিক জালিয়াতির কারণে গুগল টাকা হারায় এবং এটি এডওয়ার্ড গ্রাহকদের অর্থ নষ্ট করে। তাই যদি আপনি গুগলের রুলস নিয়ে খেলা করেন বা রুলস ভঙ্গ করেন তাহলে গুগল আপনাকে সতর্ক করবে বা আপনার একাউন্ট স্থগিত করবে বা আপনাকে নিষিদ্ধ করে দিতে পারে অ্যাডসেন্সথেকে। নিশ্চয় আমরা কেউই চাইনা আমাদের এত কষ্টের আরাধ্যের অ্যাডসেন্স একাউন্ট নিষিদ্ধ করে দেওয়া হোক তাই না? তো চলুন আজ জেনে নেই কি কি বিষয় আমাদের মেনে চলা উচিত অ্যাডসেন্স একাউন্ট নিষিদ্ধ হওয়া থেকে বাচাতে।
১.  জানা থাকা উচিত কি করা যাবে না: অ্যাডসেন্স থেকে নিষিদ্ধ হওয়ার জন্য যেসব কারণ দায়ী হতে পারে তা থেকে বেছে থাকুন।  কিওয়ার্ড স্টাফিং, এবং হেডিং ট্যাগ পূর্ণ কন্টেন্ট রাখা কোনো ক্রমেই ঠিক হবে না। এর জন্য গুগলে সার্চ থেকে আপনার সাইট সরে যেতে পারে এমনকি আপনার অ্যাডসেন্স একাউন্ট নিষিদ্ধ পর্যন্ত হতে পারে।
যখন আপনি অ্যাডসেন্স বিজ্ঞাপন আপনার সাইটে প্রকাশ করবেন তখন থেকে আপনার সাইটটি গুগলে সার্চ রেজাল্টে আগের চেয়ে অনেক বেশি দেখানোর প্রবণতা লক্ষ্য করবেন। তাই এতে করে আপনার সাইটে অ্যাডসেন্স এর রুল নষ্ট হচ্ছে কিনা তা আরো বেশি করে জানা থাকবে গুগলের।
২. বিজ্ঞাপন আড়াল করা: তাদের বিজ্ঞাপন আর আপনার সাইটের পেজের ব্যাকগ্রাউন্ড যদি একই কালারের হয়ে থাকে তাহলেও কিন্তু আপনি পেজভিউ হওয়ার কারণে টাকা পাচ্ছেন তাই না? কিন্তু এটি লঙ্ঘন করে Google’s Terms of Service। আর এটি ধরা গুগলের জন্য খুবই সহজ একটি কাজ। তাই এমন কাজ করা থেকে বিরত থাকুন।
৩. বিজ্ঞাপন আড়াল করা: তাদের বিজ্ঞাপন আর আপনার সাইটের পেজের ব্যাকগ্রাউন্ড যদি একই কালারের হয়ে থাকে তাহলেও কিন্তু আপনি পেজভিউ হওয়ার কারণে টাকা পাচ্ছেন তাই না? কিন্তু এটি লঙ্ঘন করে Google’s Terms of Service । আর এটি ধরা গুগলের জন্য খুবই সহজ একটি কাজ। তাই এমন কাজ করা থেকে বিরত থাকুন।
কন্টেন্ট থেকে অনেক দুরে আপনার বিজ্ঞাপন রাখতে যাবেন না। ক্লিক কিন্তু পেজভিউ থেকে বেশি টাকা পেতে সাহায্য করে। তাই দুরে দুরে না রেখে কন্টেন্টের কাছাকাছি রাখাই ভালো হবে।
৪. ক্লিকস ভিক্কা করা: বিজ্ঞাপন ক্লিক প্রতিযোগিতা করবেননা কখনই। যদি তারা ধরতে পারে যে আপনি তাদের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করার জন্য প্রচারণা চালাচ্ছেন তাহলে তারা নিষিদ্ধ করতে পারে আপনার একাউন্ট। “স্পনসর্ড লিঙ্কগুলি” ব্যবহার করায় সতর্ক হন। যে সব পেজে ক্লিকের জন্য উত্সাহিত করা হয় সেইসব পেজগুলো মানের দিকথেকে খুব একটা ভালো হয়না। আর তাছাড়া ঘন ঘন ক্লিক বিজ্ঞাপণদাতাকে কোনো ভাবেই লাভবান করে না।
নোট: তবে আপনি যদি আপনার সাইটে এমন কোনো প্রতিযোগিতা করেন যা তাদের আইন ভঙ্গ করবে না তা কিন্তু করতে পারেন খুব সাবলীল ভাবেই। যেমন ধরুন সবথেকে সুন্দর ফটো প্রতিযোগিতা বা সব থেকে ভালো কন্টেন্ট যা ইউজার কে সাহায্য করেছি, এমন প্রতিযোগিতা করাতে তাদের কোনো আপত্তি নেই।
৫. কোড পরিবর্তন: আপনার ওয়েব পেজের জন্য যে জাভাস্ক্রিপ্ট কোড তৈরি করে অ্যাডসেন্স তা এইচটিএমএল এর মধ্যে সরাসরি কপি ও পেস্ট করতে পারেন। যদি বিজ্ঞাপনের কালার বা অন্য কোনো কিছু পরিবর্তন করার প্রয়োজন পরে তাহলে আপনি অ্যাডসেন্স থেকে নতুন কোড জেনারেট করে নিবেন। কিন্তু কখনই তাদের জেনারেট করা কোডের ভেতর পরিবর্তন আনবেন না।
যদি আপনি Blogger এর জন্য অ্যাডসেন্স ব্যবহার করতে চান তাহলে গুগল ব্লগার থেকে আপনার জন্য কোড জেনারেট করবে।
৬. রোবট ব্যবহার: আপনার সাইটের পেজভিউ বা বিজ্ঞাপনে ক্লিক বাড়ানোর জন্য কখনই কোনো প্রকারের স্বয়ংক্রিয় হাতিয়ার ব্যবহার করবেন না। এটি ক্লিক জালিয়াতির সর্বোচ্চ পর্যায়। আপনার এমন জালিয়াতি ধরতে গুগল অত্যন্ত বুদ্ধিসম্পন্ন। তাছাড়া নিজের ভালো তো পাগলেও বুঝে তাই না ! এটি এমন একটি পদ্ধতি যা দ্বারা খুবই সহজে আপনি নিষিদ্ধ হতে পারেন।
অনুরূপভাবে, কাউকে টাকা দিয়ে আপনার সাইটের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করানোর পরিকল্পনা  করবেন না। আপনার অ্যাডসেন্স সাইটে কখনই বিজ্ঞাপন বানিজ্যের চিন্তা করাটা ঠিক হবে না, যদি না হারাতে চান আপনার অ্যাডসেন্স একাউন্ট। কারণ যদি বিজ্ঞাপনদাতা ক্লিক পাবার আশায় বিজ্ঞাপন দিত তাহলে তারা নিজেরাই ক্যাম্পেইন করে তা করতে পারত, গুগলকে দরকার হত না। আর গুগল তার ক্লিয়েন্টের স্বার্থ ঠিক রাখতে যা যা করার তাই করবে।
৭. ক্লিক প্রতি আয়ের হিসাব জানানো: আপনি বিজ্ঞাপন প্রকাশ করে কত আয় করছেন তা কিভাবে আপনি প্রকাশ করছেন সি বিষয়টিতে গুগল খুবই খুঁতখুঁতে স্বভাবের হয়ে থাকে। তারা আপনাকে এটি প্রকাশের অনুমতি দিবে না কারণ এতে adwords বিজ্ঞাপনদাতার আয় বিপন্ন হবার সুযোগ থাকে। অন্যের কাছে এমন তথ্য পাচার করা থেকে বিরত থাকুন। এই সম্পর্কে সতর্ক থাকুন সবসময়।
৮. বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করতে বিশেষ পেজ তৈরী: আপনি যখন আপনার সাইট তৈরী করবেন তখন আপনার চিন্তা থাকা উচিত আপনার সাইটের কন্টেন্টের দিকে, বিজ্ঞাপনের দিকে নয়। কীওয়ার্ড পাবার জন্য নিম্ন মানের কন্টেন্ট লিখা বা বড় বড় কন্টেন্ট কপি পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন। আপনার সাইটের প্রতিটি পেজ কন্টেন্ট নির্ভর হওয়া অত্যন্ত কার্যকরী।
৯. অলঙ্ঘনীয় বিষয় সম্পর্কিত কনটেন্ট: কন্টেন্ট কেমন হবে সে সম্পর্কে গুগলের যথাযথ মানদন্ড  আছে, গুগল কখনই সেসব পেজে তাদের বিজ্ঞাপন প্রচারের অনুমতি দেয় না। যেমন ধরুন যেসব সাইট প্রচার বা বিক্রয় করে: এলকোহল, নির্দিষ্ট অস্ত্র , আগ্নেয়াস্ত্র, তামাক, মাদকদ্রব্য ইত্যাদি। তাই আপনার কন্টেন্ট লিখার সময় বর্ণিত বিষয় গুলোর উপর করা নজর রাখবেন।
১০. যেকোনো ধরনের প্রতারণা: আপনার সাইটের মাধ্যমে যেকোনো ধরনের প্রতারণা করা থেকে বিরত থাকুন সেটা যাকেই হোক আপনার সাইটের ভিজিটর বা গুগল। এমনটা কখনই করা উচিত নয়। আমি নিশ্চিত যে কিছু পদ্ধতি আছে যা গুগল ধরতে পারে নি… এখনো। এটা হয়ত থাকবে না সবসময়। কারণ গুগল অ্যাডসেন্স প্রতিনিয়তই ক্লিক জালিয়াতি ধরতে নতুন নতুন পদ্ধতি আনছে। তাই হিত আজকে আপনার জন্য যেটা কাজ করছে কাল হয়ত সেটাই আপনার একাউন্ট নিষিদ্ধের কারণ হয়ে যেতে পারে কে জানে !
টাকা আয়ের জন্য ভুল পথে না হেটে সবথেকে ভাল হয় যদি আপনি উন্নত মানের কন্টেন্ট লাইক তা ভালো ভাবে প্রচার করতে পারেন। এতে আপনার সাইট দীর্ঘমেয়াদী ফল পাবে আর আপনার একাউন্ট থাকবে নিরাপদ। আপনাদের জন্য শুভো কামনা রইলো।

আরও পড়ুনঃ

  • http://www.megaupdate24.com/ luthfarrahman

    nice post for a Blogger.