ই- কমার্স সাইটের অতিত বর্তমান ও ভবিষ্যৎ – বাংলাদেশ প্রেক্ষাপট

Sadi Al Mamun

সাদি আল মামুন সাধারণত ব্লগে লেখালেখি করতে পছন্দ করেন। তারা লেখার উল্লেখযোগ্য অংশ জুড়ে রয়েছে ফরেক্স ট্রেডিং এবং ঢাকা শেয়ার বাজার। যদি কেউ অগ্রহি থাকেন তাহলে তার ব্লগে ঘুরে আসতে পারেন। http://www.forexing24.com/
টিউন করেছেন Sadi Al Mamun | February 2, 2017 05:24 | পোস্টটি 844 বার দেখা হয়েছে

তথ্য প্রযুক্তির একটি অনন্য  অবদান  ই-কমার্স  । বিশ্ব বাজার জুড়ে বর্তমানে যার অবাধ বিচরণ । স্বা্ধীনতা  পরবর্তী সময় থেকে  ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষ পর্যন্ত  তথ্য প্রযুক্তির সংস্পশ থেকে  দূরে অবস্থান ছিল বাংলাদেশের । মূল্যবান  সময় অপচয় এবং অগ্রসমান বিশ্বের বাণিজ্যে  আমাদের পদচারণা  ছিল নিম্ন পযায়ের । অথনৈতিক  সূচক একটি দেশের উন্নয়নের  মাপকাঠি , আর তথ্য প্রযুক্তির উন্নতির মাধ্যমে ই-কমা র্স   জগতে আমাদের প্রবেশ আমেরিকা  প্রবাসী কিছু  বাংলাদেশীর মাধ্যমে ।  তাদের উদ্ভাবিত  ই-কমা র্স   সাইটির  নাম ছিল  www.topallbrand.com । পরবর্তী সময়ে সরকার  ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ  ই-কমার্স  উন্নয়নকে তরান্বিত করে । এনালগ সময় টাতে সবকিছু  ছিল সময়   সাপেক্ষ । স্বাভাবিক জীবনযাএায় কেনাকাটা , চলাফেরা র জন্য আমাদের  প্রচুর সময় ব্যয় করতে হত । দেশীয় বাজারে  পণ্যের  বৈচিএতায় ছিল অনেক অভাব । দেশীয় বাজারে আমাদের প্রয়োজনীয় অনেক কিছু আমরা পেতাম না  অথবা  উচ্চ  মূল্য আমাদের পরিশোধ করতে হত । আমরা  এই বাধা পেরিয়ে আসতে পেরেছি  ই-কমার্স  এ প্রবেশের মাধ্যমে ।  অতীতের অনুন্নয়নশীল বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে  অন্তৃভক্তির পেছনে  ই-কমার্স  এর  রয়েছে গুরুত্বপূণ  অবদান ।

 

আরব্য  উপন্যাসের আলাদীনের চেরাগের  আশ্চয ক্ষমতার মতই  ই-কমার্স   এর  মাধ্যমে আমরা আমাদের  যেকোন বিল পরিোশধ , খেলার  টিকেট , কেনাকাটা , বিভিন্ন প্রকার অথনৈতিক কম্রকান্ড  ই-কমার্স   এর  মাধ্যমে ঘরে বসেই  ডিভাইসের এক ক্লিকের মাধ্যমেই  সমাধা করতে পারছি । বতমান সমীক্ষা  অনুযায়ী বাংলাদেশে অনলাইন ব্যবহারকারীর সংখ্যা এক কোটির মত , যারা তাদের  অথনৈতিক কমকান্ড  ই-কমার্স  সাইটে অবস্হান করেই  সম্পন্ন করতে পারে । এত প্রচুর সংখ্যক জনগোষ্ঠীর  ই-কমার্স  ব্যবহারের মাধ্যমে লাভবান হতে পারে  সংস্হাগুলো , ক্রেতাসাধারণ এবং সবোপরি আমাদের সমাজ । আগামী দিনগুলোতে ক্রমবধমান ব্যবহারকারীর সংখ্যা  বিবেচনায় রেখে  ই-কমার্স  এর  ব্যবহার —– ব্যবসায় থেকে  ব্যবসায় , ব্যবসায় থেকে ভোক্তা , ভোক্তা থেকে ভোক্তা , ব্যবসায় থেকে  কর্মচারী , বাণিজ্যক দিক নিদ্রেশনায়  ই-কমার্স  এর   প্রয়োগ  ই-কমার্স  এর   যাএাপথকে মসৃণ করেছে । গার্মেন্টস সেক্টরের গুরুত্বপূ্র্ণ  এেতা  এবং সরবরাহকারীরা ই-কমার্স  এর   মাধ্যমে তারা  তাদের ভূমিকা  রাখেছে ।

 

ভবিষ্যত যাএাপথে ফেসবুক , টুইটারের মত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম দ্বারা  ই-কমার্স  আরও  প্রসারিত হবে । কারন  এসব সেবা ব্যবহারকারীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই  চলেছে ।  স্মার্ট ফোন ব্যবহারকারীর মাধ্যমেও  ই-কমার্স  এর ব্যবহার বাড়বে । বৈশ্বিক শিল্পায়নের যুগে নতুন উৎপাদনকারীরাও  তাদের উৎপাদিত পণ্য  অথবা সেবা  প্রদানকারী সংস্হাগুলো  তাদের  বাণিজ্য প্রসারেও  ই-কমার্স  সেবাই ব্যবহার করবে । আগামীদিনগুলোতে  ই-কমার্স   আরও নতুনভাবে  আবির্ভূত হবে তাদের মেধা এবং মননকে ব্যবহার করে ।  ই-কমার্স  সাইটগুলোর আধুনিকায়ন এবং পরিমার্জন আরও বাড়াতে হবে ।  কারণ তথ্যপ্রযুক্তির সাথে সম্পৃক্ত  নতুন প্রজ্ন্ম এর কাছে  ই-কমার্স   এর  গ্রহণযোগ্যতা  যেহেতু বাড়ছে ।  মাক্রেট রিসার্চ বাড়ানো এবং  নতুন বাজার কৌশল উদ্ভাবন  ই-কমার্স  ব্যবহারকারীর সংখ্যা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে ।