Microsoft Edge এর আগমন আর Internet Explorer এর বিদায়

টিউন করেছেন moinul sohag | May 2, 2015 05:29 | পোস্টটি 1,228 বার দেখা হয়েছে

আপনি আপনার কম্পিউটারে কি ব্রাউজার ইউস করেন? অথবা আপনার মোবাইলের ইন্টারনেট ব্রাউজার কোনটি? এমন প্রশ্নের জবাবে আমার উত্তর সবসময়ই , কম্পিউটারের জন্য ফায়ারফক্স আর মোবাইলে অপেরা মিনি। এই উত্তর সাধারনত ফায়ারফক্স,গুগল ক্রোম বা অপেরার মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে। খুবই কমই শুনেছি যে কেউ ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ব্যবহার করেন বা পছন্দ করেন। এই ঘটনা শুধু আমাদের দেশেই নয়, সারা বিশ্বেই ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার’ একটি অজনপ্রিয় ও অব্যবহৃত ব্রাউজারের নাম।
Browser Usage২০০২-০৩ সনে যেখানে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরের ব্যবহার মাত্রা ছিল ৯৫% ;সেখানে ২০০৪ সনে ফায়ারফক্সের আবির্ভাব আর ২০০৮ সনে গুগল ক্রোম এসে সকল হিসেব উল্টে দেয়, যার ফলে IE’এর অবনতি ছাড়া আর কোন চিত্র আমাদের সামনে এসে হাজির হয়নি। সর্বশেষ উইন্ডোজ ৮’ অপারেটিং সিস্টেমের জন্য ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ১১’ আপডেটটি এই করুন অধঃপতনের কোন রকমফের বা পরিবর্তন ঘটাতে পারেনি।এই বাস্তবতাতেই,২০১৫ সালের জানুয়ার‍ীতে “প্রোজেক্ট স্পার্টান” এর মাধ্যমে শুরু হয়েছিলো মাইক্রোসফটের নতুন ব্রাউজার ডেভেলোপমেন্টের কার্যক্রম; যা অবশেষে গত সপ্তাহে এসে আলোর মুখ দেখলো। নতুন ব্রাউজারটির ডেভেলোপমেন্টে ব্যবহৃত অপারেটিং সিস্টেম “মাইক্রোসফট ১০” এর রেন্ডারিং ইন্জিন EdgeHTML এর নাম অনুসারেই এর নাম রাখা হয়েছে Microsoft Edge.
Microsoft Edge
ইন্টারনেট এক্সপ্লোরের উত্তসূরী মাইক্রোসফট এজ এখন হতে উইন্ডোজ ১০’এর ডিফল্ট ব্রাউজার হিসেবে পাওয়া যাবে। নতুন ফিচার হিসেবে এতে যুক্ত হয়েছে- ডিজিটাল ইঙ্ক এনোটেশন,করটানা ইনটেগরেশন ও বিল্টইন রিডিং লিস্ট।

মাইক্রোসফট এর এই নতুন ব্রাউজার তৈরির পিছনে উদ্দেশ্য ছিল ইন্টারনেট এক্সপ্লোরের ত্রুটি ও অক্ষমতাগুলোকে অতীত ইতিহাসে পরিনত করে একটি দ্রুতগতির অত্যাধুনিক ব্রাউজার উপহার দেয়া; কিন্তু এই লক্ষ পুরনের পথে ব্রাউজারটির নাম আমূল পরিবর্তন হলেও মাইক্রোসফট এজ’এর লোগোটা ইন্টারনেট এক্সপ্লোরের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণই থেকে যাচ্ছে। ছোটঅক্ষরের “e” চিহ্ন সম্বলিত মাইক্রোসফট এজ’এর লোগোটা যেন এর পূর্বের লোগোটিরই যৎসামান্য পরিবর্তন।
Explorer to Edgeমাইক্রোসফট এজ’ শুধু উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেমেই ব্যবহার করা যাবে। নানা ধরনের উইন্ডোজ ১০’ ডিভাইস যেমন ডেস্কটপ,ল্যাপটপ,স্মার্টফোন,ট্যাবলেট বা হাইব্রিড ডিভাইসের উপযোগী করেই একে তৈরি করা হচ্ছে। এ বছরের শেষ নাগাদ উইন্ডোজ ওয়েব ষ্টোরে ডাউনলোডের জন্য পাওয়া যাবে এই যুগান্তকারী ব্রাউজারটি।

এখন শুধু দেখার বিষয় মাইক্রোসফটের এই নতুন ব্রাউজারটি কতটুকু জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারে। সময়ই বলে দিবে মাইক্রোসফট এজ টিকে থাকবে নাকি ইন্টারনেট এক্সপ্লোরের পরিনতি বরন করে মুখ থুবড়ে পরবে। আমরাও তা দেখার অপেক্ষায় রইলাম।