ছেলেরা বউ হিসেবে যেমন মেয়েদের খোঁজে

টিউন করেছেন jahangira69 | April 5, 2014 09:38 | পোস্টটি 2,748 বার দেখা হয়েছে

ছেলেরা বউ হিসেবে যেমন মেয়েদের খোঁজে


ছেলেরা বউ হিসেবে যেমন মেয়েদের খোঁজেভারতীয় উপমহাদেশের ছেলেরা বিয়ের সময় কেমন মেয়ে খোঁজেন তা জানতে একটি জরিপ চালায় ভারতীয় প্রতিষ্ঠান শাদি ডট কম। এই জরিপের শেষে প্রতিষ্ঠানের চিফ অপারেটিং অফিসার গৌরভ রক্ষিত বলেন, অনলাইনে করা এই জরিপে সাড়ে আট হাজারের মতো পুরুষ তাদের মত দিয়েছেন। তাদের যার যার দৃষ্টিকোণের সম্মিলন করে একটি চিত্র ফুটিয়ে তুলেছে প্রতিষ্ঠানটি। এই উপমহাদেশের সংস্কৃতি অনুযায়ী নিজের বউ হিসেবে যে ধরনের মেয়েদের স্বপ্ন দেখেন ছেলেরা তার ধারণা তুলে দেওয় হলো।

ক্যারিয়ার সচেতন মেয়ে :

জরিপের সাড়ে তিরাশি শতাংশ পুরুষ মত দিয়েছেন যে, তারা ক্যারিয়ার সচেতন মেয়ে চান বউ হিসেবে। তাদের মতে, আমার বউকে কাজ করতে দেওয়া যাবে না এমন শর্ত আমি চাপিয়ে দিতে পারি না। প্রতিদিন সকালে কাজে বের হয়ে আমি ১২/১৩ ঘণ্টা বাইরে থাকবো। এই দীর্ঘ সময় মেয়েটি কতোই আর ঘরের বা নিজের কাজ করে কাটাবে। সে নিশ্চয়ই বাইরে যাবে বা শপিংয়ে যাবে। এতে বরং অর্থনাশ ঘটবে। তারচেয়ে সে কাজ করুক। এতে সংসারের আয় দ্বিগুণ পরিমাণ হবে।

খেলা পছন্দ করবে কিন্তু সুদর্শন খেলোয়াড়কে নয় :

খেলা বিশেষ করে ক্রিকেট ব্যাপক জনপ্রিয় আমাদের সংস্কৃতিতে। বর্তমানে মেয়েদের ক্রিকেটপ্রীতিকে পছন্দ করেন ছেলেরা। কিন্তু খেলার চেয়ে সুদর্শন খেলোয়াড়ের প্রতি বেশি আগ্রহ আবার ভালো লাগবে না জামাইয়ের। তাই দুজন মিলে স্টেডিয়ামে গিয়ে মজা করে খেলা দেখতে যাবো, খেলোয়াড় দেখতে নয়, এমনই মত অধিকাংশের।

খবর রাখবেন এবং মতামত দিবেন :

জরিপের ৭৩.৮ শতাংশ পুরুষ এমন নারী পছন্দ করেন যারা দেশের ও বিশ্বের খবর রাখেন। শুধু খবর রাখলেই চলবে না, তাদের আধুনিক যুগের মেয়ে হিসেবে নিজের মতামত থাকতে হবে। অর্থাৎ শিক্ষিত এবং জ্ঞানী মেয়েদের পছন্দ করেন ছেলেরা। ছেলেরা মত দিয়েছেন, তার মানে এই নয় যে মেয়েটি কোন আসনে সে ভোটে জিতল তার আপডেট খবর রাখবে। তবে কোন দলের কর্মসূচি ভালো বা কোন দলটি এখন দেশের জন্য ভালো করছে তার জ্ঞান থাকতে হবে।

অফিসের সহকর্মী জীবনসঙ্গী হতে পারে না :

অফিসের টুকটাক ভালোবাসাবাসি কিছু চললেও তা গভীর পর্যায়ে যেতে পারে না। হালকা রোমান্স প্রেম এবং তা থেকে জীবনসঙ্গী বানানোর স্বপ্ন দেখাতে পারে না বলেই বিশ্বাস করেন জরিপের ৬৬.১ শতাংশ পুরুষ। তারা নিজের সহকর্মীদের মধ্য থেকে জীবনসঙ্গিনী খুঁজে পেতেও আগ্রহী নন।
এদিকে, মেয়েদের মধ্যে যেসব অভ্যাস রয়েছে সেগুলো মধ্যে গোটা তিনেক সবচেয়ে বিরক্তিকর অভ্যাস চিহ্নিত করা হয়েছে একই জরিপে। এগুলো হলো-

রিয়েলিটি টিভি অনুষ্ঠানপ্রীতি :

জরিপের ৮০ শতাংশ পুরুষ নারীদের রিয়েলিটি শোয়ের প্রতি আকর্ষণে বেজায় বিরক্ত। বাস্তবজীবন যে রিয়েলিটি শোয়ের নাটকের চেয়ে কম নাটকীয়তাপূর্ণ নয় তা কী মেয়েরা বোঝে না? তা ছাড়া অন্যান্য অনুষ্ঠানের চেয়ে এসব রিয়েলিটি শো বেশি মাত্রায় বিরক্তিকর। অথচ এসবের প্রতি দারুণ আসক্ত মেয়েরা।

মোবাইলে আঠার মতো লেগে থাকা :

মোবাইল তো কথা বলার জন্যেই। কিন্তু সব সময় ওটাকে কানের সঙ্গে আঠার মতো লাগিয়ে রাখার বিপক্ষে মত দিয়েছেন ৭৮.২ শতাংশ পুরুষ। এদের মতে, অতিরিক্ত সময় ধরে ফোনে লেগে থাকা সত্যিই বিরক্তিকর। এতে একে তো অর্থের অপচয়, তারওপর অন্য ছেলেদের বিরক্তি করার সুযোগ বেড়ে যায়। কাজেই মোটামুটি সহনীয় পর্যায়ে মোবাইল ব্যবহার করাটা মেনে নেওয়া যায় বলেই মত দিয়েছেন পুরুষরা।

সামাজিক মাধ্যমে খাবারের ছবি দেওয়া :

এ বিষয়টিকে অবশ্য ছেলে-মেয়ে উভয়ই বেজায় অপছন্দ করে। বিগত এক জরিপে ৩৬.৬ শতাংশ মেয়েরা মত দেয় যে, ছেলেরা খাবারের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দিলে তা ব্যাপক বিরক্ত লাগে। এবারের জরিপে ৭৪.৭ শতাংশ পুরুষ মেয়েদের একই কাজকে বাজে বিষয় বলেই মনে করেন। এসব ছবিতে একদমই লাইক দিয়ে মন চায় না বলে জানান তারা।
সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া