প্রফেশন হিসাবে ফরেক্স ট্রেডিংঃ পর্ব ৩

Sadi Al Mamun

সাদি আল মামুন সাধারণত ব্লগে লেখালেখি করতে পছন্দ করেন। তারা লেখার উল্লেখযোগ্য অংশ জুড়ে রয়েছে ফরেক্স ট্রেডিং এবং ঢাকা শেয়ার বাজার। যদি কেউ অগ্রহি থাকেন তাহলে তার ব্লগে ঘুরে আসতে পারেন। http://www.forexing24.com/
টিউন করেছেন Sadi Al Mamun | September 2, 2014 09:46 | পোস্টটি 1,015 বার দেখা হয়েছে

প্রফেশন হিসাবে ফরেক্স ট্রেডিংঃ পর্ব ৩


বর্তমানে বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় অনলাইন কারেন্সি বিজনেস- ফরেক্স ট্রেডিং এর ৩য় পর্বে আপনাকে স্বাগতম। আপনি যদি আমাদের ১ম ও দ্বিতীয় পর্ব না পড়ে থাকেন  তাহলে নিচের লিঙ্ক থেকে ঘুরে আসুন।

১ম পর্বঃ ফরেক্স কি?

২য় পর্বঃ ফরেক্স আলোচনা।

 

আজকের পর্বে ফরেক্স এর ফান্ডামেন্টাল পার্ট নিয়ে আলোচনা করব এবং পরবর্তী পর্বে  টেকনিক্যাল পার্ট নিয়ে আলোচনা করব। ত চলুন শুরু করা জাক।

 

ফান্ডামেন্টাল এবং টেকনিক্যাল এনালাইসিসঃ পার্থক্য এবং গুরুত্ব

ফান্ডামেন্টাল এবং টেকনিকাল এনালাইসিস ফরেক্স এর অতি পরিচিত একটি টার্ম বা বিষয়। যারা ফরেক্স এ নতুন ট্রেড শুরু করেন, তারাও একেবারে প্রথম দিকেই এই টার্মদ্বয় এর কথা শুনে থাকেন। অনেকে বুঝেন, অনেকে আবার ঠিকমত বুঝে উঠতে পারেন ন। কিন্তু, ফরেক্স এ ট্রেড করতে হলে এই দুটো জিনিস সম্পর্কে আপনার অবশ্যই খুব ভাল ধারণা থাকা দরকার।

প্রথমেই আসুন ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস কি তা বুঝার চেষ্টা করি।

 

Fundamental analysis

ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিসঃ

সহজ কথায় ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস বা বিশ্লেষণ দ্বারা কোন দেশের ওভারঅল অর্থনৈতিক পরিস্থিতি বা অবস্থার উপর ভিত্তি করে ঐ দেশের মুদ্রার ভবিষ্যৎ মান বা দর কেমন হবে সেটা বুঝার চেষ্টা করা হয়। আর একটি দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা অনেক কিছুর উপর নির্ভর করে। যেমনঃ ঐ দেশের বেকারত্বের হার, সুদ এর হার, অর্থনীতি, উৎপাদনশীলতা, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার মান, জলবায়ু বা আবহাওয়া ইত্যাদি। কোন দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর কার্যক্রম বা সিদ্ধান্ত ঐ দেশের মুদ্রার দর এর ক্ষেত্রে ব্যপক পরিবর্তন এনে থাকে। কারণ, এসব ব্যাংক সুদ এর হার, মুদ্রাস্ফীতি, জিডিপি, ট্রেড ব্যাল্যান্স ইত্যাদির ব্যপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে থাকে।

তাই, এসব অর্থনৈতিক নিউজ এর উপর খবু ভাল খেয়াল থাকতে হবে। কারণ, এসব কিছুই একটি দেশের অর্থনৈতিক অবস্থাকে প্রভাবিত করে, যার প্রভাব একইসাথে ঐ দেশের মুদ্রার মানের উপর পড়ে থাকে। তাই, কোন ফান্ডামেন্টাল নিউজ এ বড় ধরনের পরিবর্তন হলে মার্কেট খুব অল্প সময় এ বিশাল ধরনের মুভমেন্ট করতে পারে। এটা এমনকি সেকেন্ডের মধ্যে ১০০ পিপ ও উঠানামা করতে পারে। তাই, সবসময় ই ফান্ডামেন্টাল নিউজ গুলোর দিকে সতর্ক নজর রাখাটা খুব দরকার।

টেকনিক্যাল এনালাইসিসঃ

ইতিহাস যেমন পরিবর্তন হয়, তেমনি এর পুনরাবৃত্তিও অনেক হয়। ফরেক্স মার্কেট এর ক্ষেত্রে এই কথাটা যেন আরও বেশি প্রযোজ্য। টেকনিক্যাল এনালাইসিস হচ্ছে মার্কেট এর পূর্ববর্তী অবস্থার বিশ্লেষণ করে পরবর্তী অবস্থান সম্পর্কে অনুমান করা। এটার বিভিন্ন ধাপ বা উপায় আছে। এগুলো আপনি ট্রেড করতে করতে পর্যায় ক্রমে শিখতে পারবেন। এটার মূলত তিনটি ধাপ রয়েছে। সেগুলো হলঃ

ক) চার্ট এনালাইসিস

খ) ক্যান্ডলসটীক এনালাইসিস

গ) ইনডিকেটর এনালাইসিস

 বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ ফান্ডামেন্টাল এবং টেকনিক্যাল এনালাইসিস

 

 

কেন্দ্রীয় ব্যাংক এ কার কতটা ভূমিকা বা প্রভাব?

আমরা জানি, সুদ এর হার প্রক্রিতপক্ষে অর্থনীতি এবং মূল্যের স্থিরতার উপর কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর ভিউ বা মতামত দ্বারা প্রভাবিত হয়, যা অর্থনৈতিক নীতিকে প্রভাবিত করে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের মতই পরিচালিত হয়; তাদেরও একজন চেয়ারম্যান বা প্রেসিডেন্ট থাকেন। কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর সেই ব্যক্তির কথা দ্বারাই মার্কেট এর অর্থনীতি কোন দিকে যাবে তা নির্ধারিত হয়। এবং স্বাভাবিকভাবেই যখন স্তিভ জবস অথবা মাইকেল ডেল কথা বলেন তখন প্রত্যেকেই তা শুনে থাকে।

তাই, পিথাগোরাসের সূত্র দ্বারা কি এটাই বোধগম্য হয় না যে, কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর ঐ সব কর্তারা কে কি বলছেন তা ভালভাবে শুনা উচিৎ? কমপ্লেক্স অনুবন্ধী রুট সূত্রমতে, উত্তর টা হল, হ্যাঁ!

হ্যাঁ, এটা জানা জরুরী যে সম্ভাবনাময় আর্থিক পরিবর্তনের ক্ষেত্রে সামনে কি আসছে। এটা আপনার জন্য সৌভাগ্যের যে, কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর মার্কেট এর সাথে আরও ভাল যোগাযোগ রয়েছে।

যদি আপনি সত্যিই বুঝতে পারেন যে তারা কি বলছেন তাহলে সেটা ভিন্ন কথা।

তাই, পরবর্তীতে বেন বারনেংকা বা মারিও দ্রাঘি যখন বক্তব্য দেন, তখন আপনার কান পেতে রাখুন। আরও ভাল হয়, যদি আপনি আসল বক্তব্যের আগেই নিজেকে প্রস্তুত রাখতে পারেন। এজন্য যেসব ওয়েবসাইট গুলো আগে থেকেই আপ কামিং নিউজ গুলোর সময় সূচি উল্লেখ করে থাকে সেগুলো নিয়মিত ভিজিট করাটাই ভাল।

 বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস

Fundamental analysis

মনেটারি পলিসির(অর্থনৈতিক নীতি) বিভিন্ন দিক

আমরা পূর্বেই উল্লেখ করেছি যে, সরকারি কর্মকর্তারা এবং তাদের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর মুখপাত্ররা অর্থনৈতিক লক্ষ্য বা এজেন্ডা অর্জন করার জন্য মনেটারি পলিসি বা অর্থনৈতিক নীতি তৈরি করেন।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং অর্থনৈতিক নীতি একে অপরের সাথে খুব ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কযুক্ত, তাই, আপনি একজনকে বাদ দিয়ে আরেকজনের কথা বলতে পারেন না।

যদিও ওয়ার্ল্ড সেন্ট্রাল ব্যাংক এর এসব ম্যান্ডেট বা লক্ষ্য এর কিছু কিছু একইরকম হয়ে থাকে, তারপরও তাদের প্রত্যেকেরই নিজস্ব অর্থনীতির উপর ভিত্তি করে মৌলিকতা রয়েছে।

প্রকৃতপক্ষে, মনেটারি পলিসি মুল্যের স্থিরতা এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ধরে রাখা এবং এর উন্নতির জন্য কাজ করে থাকে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক তাদের লক্ষ্য পূরণ করতে নিম্নলিখিত জিনিসগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে মনেটারি পলিসি ব্যবহার করেঃ

1. টাকার মূল্যের এর সাথে সম্পর্কিত সুদ এর হার
2. মুদ্রাস্ফীতির বেড়ে উঠা
3. মানি সাপ্লাই
4. ব্যাংক গুলোর মধ্যে রিজার্ভ এর প্রয়োজনীয়তা
5. এবং বাণিজ্যিক ব্যাংক গুলোকে উইন্ডো ধার(window lending) এর ডিসকাউন্ট

মনেটারি পলিসির প্রকারভেদ

মনেটারি পলিসি বা অর্থনৈতিক নীতি একাধিক উপায়ে বর্ণনা করা যায়। Contractionary অথবা restrictive মনেটারি পলিসির আগমন ঘটে যদি মানি সাপ্লাই এর পরিমাণ কমে যায়। সুদ এর হার বাড়লেও এমনটা হতে পারে।

এখানে আইডিয়া টা হল উচ্চ সুদ এর হারে ধীর গতির অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি। টাকা ধার করা আরও কঠিন এবং ব্যয়বহুল হয়ে যায়, যা ভোক্তা এবং ব্যবসায়ী উভয় পক্ষের-ই খরচ এবং বিনিয়োগ কমিয়ে দেয়।

বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ মনেটারি পলিসি

 

Monetary-Policy

নিউজ এবং মার্কেট ডাটা

ইন্টারনেট এ কোন সার্চ ইঞ্জিন এ (যেমনঃ yahoo. Google, plus bing etc.) “ফরেক্স +নিউজ” বা “ফরেক্স + ডাটা” লিখে সার্চ দিলে মুহূর্তেই আপনি প্রাই ৩০ মিলিয়ন রেজাল্ট পেয়ে যাবেন!

৩০ মিলিয়ন!! হ্যাঁ, এটা সত্যি! আপনি এখানে কিছু শিখতেই এসেছেন! কোন নতুন ট্রেডার এত বেশি তথ্য বা অপ্রয়োজনীয় অনেক তথ্যের ভাণ্ডার দেখে ঘাবড়েই যেতে পারেন। কিন্তু, সফল ট্রেড করতে হলে তথ্য হচ্ছে রাজার মত।

বিভিন্ন রকম তথ্য, যেমনঃ অর্থনৈতিক, কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর নতুন চেয়ার-পারসন নিয়োগ, সুদ এর হার পরিবর্তন ইত্যাদির জন্যই প্রাইস আসলে মুভ করে থাকে।

নিউজ মৌলিক বা ফান্ডামেনটালকে মুভ করায় এবং ফান্ডামেনটাল মুদ্রার পেয়ার বা জোড়াকে মুভ করায়।

সফল ট্রেড করার আপনার লক্ষ্য এবং এই কাজটা তখনই সহজ হয়ে যায় যখন আপনি জানবেন প্রাইস কেন এভাবে মুভ করে। সফল ট্রেডারদের জন্ম হয় না, তারা শিখে নিজেদের তৈরি করে।

সফল ট্রেডারদের অপার্থিব কোন ক্ষমতা নেই (দুই একটা ব্যতিক্রম থাকতে পারে!), এবং তারা ভবিষ্যৎ ও দেখতে পারে না।

তারা ফরেক্স নিউজ এবং ডাটা দেখে সেখান থেকে জরুরী গুলো বাছাই করে সে অনুযায়ী ট্রেড করে থাকেন।

কোথায় মার্কেট এর তথ্য পাবেন?

মার্কেট নিউজ এবং ডাটা পাওয়ার বিভিন্ন উৎস রয়েছে।

ইন্টারনেট এক্ষেত্রে নিশ্চিতভাবেই সবচেয়ে এগিয়ে। কারণ, এটার অপশন অনেক বেশি, প্রায় আলোর গতিতেও কাজ করতে পারে, এবং আপনি দুনিয়ার যেখান থেকে ইচ্ছা এটা ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু, এর সাথে প্রিন্ট মিডিয়া এবং আপনার অতি পরিচিত টেলিভিশন এর কথাও ভুলবেন না।

 বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ ফরেক্স নিউজ 

মার্কেট এর প্রতিক্রিয়া

মার্কেট কোন ডাটা রিপোর্ট বা মার্কেট ইভেন্ট গুলোতে ঠিক কি রকম প্রতিক্রিয়া করবে বা কেন এমন করে থাকে এটা অনুমান বা ভবিষ্যৎবাণী সফলভাবে করার জন্য কোন নির্দিষ্ট একটি নিয়ম বা সূত্র নেই।

সাধারনত, এক্ষেত্রে স্বল্প সময়ের একটি প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া হয়ে থাকে যেটি অনেক ঘটনাবহুল।

কিছুক্ষন পর, দ্বিতীয় প্রতিক্রিয়া হয়, যখন বর্তমান মার্কেটে নিউজ বা রিপোর্ট এর উপর ভিত্তি করে তার প্রভাব অনুসারে ট্রেডাররা ঐ অনুযায়ী কাজ করতে কিছু সময় পান।

এটা হল সেই সময় যখন মার্কেট এই ব্যপারে সিদ্ধান্ত নেয় যে যদি এটি ঠিকভাবে প্রতিক্রিয়া করে থাকে, তাহলে এটি কি স্বাভাবিক প্রত্যাশা অনুযায়ী মুভ করেছে না করে নি।

রিপোর্ট এর ফল কি প্রত্যাশিত না কি অপ্রত্যাশিত? এবং মার্কেট এর প্রাথমিক রিস্পন্স বৃহত্তর পরিসরে কি বুঝাচ্ছে?

এইসব প্রশ্নের উত্তর আমাদের প্রাইস অ্যাকশান এর মুভমেন্ট সম্পর্কে বিশ্লেষণ করার সুযোগ দেয়।

 বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ মার্কেট সেন্টিমেন্ট 

 

কট ট্রেডিং স্ট্র্যাটেজী (কৌশল)

যেহেতু কট ওয়িকলি আসে, মার্কেট সেন্টিমেন্টের ইন্ডিকেটর হিসেবে এর উপকারিতা লং-টার্ম ট্রেডের জন্য আরও বেশি ভাল হবে।

আপনি এখন এই প্রশ্ন করতে পারেনঃ

আপনি কিভাবে জটিল কিছু লেখা কে একটি সেন্টিমেন্ট ভিত্তিক ইন্ডিকেটর বানাবেন যেটা আবার পিপ অর্জন করতেও সাহায্য করবে?!?

আপনার ট্রেডিং এ কট রিপোর্ট ব্যবহার করার একটি উপায় হচ্ছে এক্সট্রিম নেট লং(বাই) অথবা নেট শর্ট(সেল) পজিশন খুঁজে বের করা।

এমন পজিশন খুঁজে পাওয়া মানে মার্কেট যে কোন মুহূর্তে রিভার্স করতে পারে; কারণ, সবাই যদি কোন কারেন্সি তে লং (বাই) এ থাকে, তাহলে সেটা বাই করার আর কে বাকি আছে?

কেউ না!

আর, সবাই যদি কোন কারেন্সি তে শর্ট (সেল) এ থাকে, তাহলে সেল করার আর কে বাকি আছে?

এটা কি?

খুবই স্বাভাবিক…

হ্যাঁ, এটাই ঠিক যে…কেউ নেই!

এখানে একটি মনে রাখার ব্যপার হচ্ছে আপনি যদি কোন রুটে চলতে চলতে একেবারে শেষ মাথায় চলে যান, তাহলে স্বাভাবিকভাবেই আপনি আর সামনে এগুতে পারবেন না। কারণ, সামনে আর কোন রাস্তা নেই। তাই, বাধ্য হয়েই আপনাকে উল্টা ঘুরে পিছনে যেতে হবে।

টাইমিং চার্ট থেকে ইউরো/ ইউএসডি এর এই চার্টের দিকে একবার খেয়াল করুনঃ

 বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ কট ট্রেডিং স্ট্র্যাটেজী

 

তিন গ্রুপ এর ব্যাখ্যা

ফিউচার মার্কেট বুঝার জন্য প্রথমে আপনাকে এর ভিতরের লোকগুলোকে বুঝতে হবে যারা এখানে বিভিন্ন পর্যায়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। এই খেলোয়াড় গুলোকে তিনটি মূল ভাগে ভাগ করা যায়ঃ

১। কমার্শিয়াল ট্রেডাররা (হেজার)

২। নন- কমার্শিয়াল ট্রেডাররা ( লারজ বা বড় স্পেকিউলেটরস)

৩। খুচরা বা রিটেইল ট্রেডাররা (স্মল বা ছোট স্পেকিউলেটরস)

কমার্শিয়াল বা হেজার দের(যারা হেজিং করে) এড়িয়ে যাবেন না

হেজার বা কমার্শিয়াল ট্রেডাররা হল সেসব ব্যক্তি যারা মার্কেট এর অপ্রত্যাশিত মুভমেন্ট এর বিরুদ্ধে নিজেদের রক্ষা করতে চান। ফসল উৎপাদনকারী অথবা কৃষকরা যারা দ্রব্যের মুল্যের পরিবর্তনের জন্য তাদের ঝুঁকিকে হেজ করতে চান বা কমাতে চান তারা এই গ্রুপ এর অংশ।

যেসব ব্যাংক অথবা অন্যান্য বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান গুলো মুদ্রা অথবা অন্য এসেট বা সম্পদের আচমকা/ অপ্রত্যাশিত প্রাইস চেঞ্জ এর বিরুদ্ধে নিজেদের রক্ষা করতে সচেষ্ট থাকে তাদেরকেও কমার্শিয়াল ট্রেডার হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

হেজার দের একটি মূল বৈশিষ্ট্য হল তারা মার্কেট এর বোটম বা একেবারে তলানিতে সবচেয়ে বেশি বুলিশ (বাই) থাকে, এবং মার্কেট এর টপ বা একেবারে উপরে সবচেয়ে বেশি বিয়ারিশ (সেল) থাকে।

 বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

Cropped image of group of business people working together

অন্যতম প্রধান নিউজ: FOMC এবং উন্মত্ত মার্কেট

ফরেক্স মার্কেট এ অনেকে এমন আছেন যারা শুধু নিউজ এর সময় ট্রেড করেন। অনেকেরই দেখা যায় এক রাতেই ব্যাল্যান্স ২০০ থেকে ২০০০ হয়ে যায়, আবার একইসাথে অনেকের ৫০০ থেকে ০ হয়ে যায়। তাই, যারা সবসময় এমন ট্রেড করেন, অথবা যারা মাঝে মাঝে এ সময় ট্রেড করেন তাদের অবশ্যই কিছু ব্যপারে খুব সতর্ক থাকতে হবে। যেমনঃ কিছু কিছু নিউজ এর ক্ষেত্রে মার্কেট অধিংকাংশ সময়েই পাগলা আচরণ করে। এর মধ্যে, ECB প্রেস কনফারেন্স, NFP, FOMC ইত্যাদি বেশি উল্লেখযোগ্য। বিশেষ করে FOMC এর কথা আলাদাভাবেই বলতে হয়।

 

FOMC এর সম্পূর্ণ রূপ হছে“Federal Open Market Committee”.নাম থেকেই কিছুটা বুঝা যায় যে, এখানে আমেরিকার ফেডারেল ব্যাংক এর মার্কেট কমিটির সিদ্ধান্ত, কাজ, বা পদক্ষেপের কারণে মার্কেট খুব বেশি ভোলাটাইল হয়ে যায়। এসব মিটিং এ সাধারনত অর্থনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন ব্যপারে পদক্ষেপ নেয়া হয়ে থাকে।

উইকিপিডিয়া অনুযায়ী, ফেডারেল ওপেন মার্কেট কমিটি আমেরিকার আইন অনুযায়ী ফেডারেল রিজার্ভ সিস্টেম এর অন্তর্গত এমন একটি কমিটি যা দেশটির ওপেন মার্কেট অপারেশন দেখাশুনা করে। এটি সুদ এর হার, মানি সাপ্লাই, এবং বন্ড বায়িং সেলিং  এর ব্যপারে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে থাকে। এটা বছরে সাধারনত ৮ বার বসে। এখানকার কর্মকর্তারা মানি সাপ্লাই কে সাবলীল করেন না কঠিন করে দেন তার উপর নির্ভর করে সুদের হার এ ভাল পরিবর্তন আসতে পারে। এসব কারণে মিটিং এর সময় মার্কেট উন্মত্ত আচরণ করে। মিটিং এর পরে সাধারনত প্রেস কনফারেন্স হয়। তখন মার্কেট কোন নির্দিষ্ট দিকে মুভ করতে পারে। অথবা একই জায়গায় স্থির থাকতে পারে (যদি কোন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত না নেয়া হয়)।

 বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুনঃ FOMC 

 

পরবর্তী পোষ্টের আমন্ত্রন জানিয়ে আজ এখানেই শেষ করছি। সবার জীবন পিপ্স ময় হয়ে উঠুক। :)