কাভার লেটার নিয়ে কিছু শর্ট টিপস ও কিছু রিয়েল লাইফ এক্সপেরিয়েন্স

Sajib Mannan

ওডেস্কে প্রফেশনাল আর্টিকেল রাইটার ও ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে কাজ করছি। জেনেসিসব্লগে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার টিপস নিয়ে লিখে যাব। আশা করি সাথেই থাকবেন।
টিউন করেছেন Sajib Mannan | July 17, 2014 01:03 | পোস্টটি 942 বার দেখা হয়েছে

কাভার লেটার নিয়ে কিছু শর্ট টিপস ও কিছু রিয়েল লাইফ এক্সপেরিয়েন্স


TipTuesday_July30

 

কাজ পাওয়ার প্রথম ও প্রধান শর্ত হচ্ছে আকর্ষণীয় কাভার লেটার লেখা। কিন্তু নতুন ফ্রিল্যান্সাররা প্রায় কাজ পেতে পেতে পান না শুধু মাত্র আকর্ষণহীন কাভার লেটার লেখার জন্য। বায়ার প্রথমেই আপনার সম্পর্কে যা দেখে তা হল আপনার কাভার লেটার। আপনার আবেদন যদি সুন্দর হয়, আপনি যদি আপনার স্কিল, যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা সুন্দর করে গুছিয়ে লিখে ক্লায়েন্টকে আকৃষ্ট করতে পারেন তবেই সে আপনার ব্যাপারে আগাবে। আপনি নিজেই ক্লায়েন্টের জায়গায় নিজেকে চিন্তা করুন। ক্লায়েন্টের কাছে অনেক কাভার লেটার জমা পড়ে। এত খুঁটিয়ে দেখার মত সময় তো তার নেই। তাই আপনি ফার্স্ট ইম্প্রেশনেই যাতে তাকে আকৃষ্ট করতে পারেন, সেই ব্যবস্থা আপনাকে করতে হবে। আপনাদের এখন দেখাব কিছু শর্ট টিপস যাতে আপনি একটি সুন্দর, গোছানো কাভার লেটার লিখে সহজেই ক্লায়েন্টকে আকৃষ্ট করতে পারেন।

odesk-cover-letter

 

  • কাভার লেটার বেশি লম্বা করবেন না। সংক্ষেপে আপনার কথা গুছিয়ে লিখুন। ক্লায়েন্টের কাছে অনেক কাভার লেটার জমা পড়ে। এত লম্বা কাভার লেটার পড়ার সময় তার কাছে নাও থাকতে পারে। অনেক বড় কাভার লেটার দেখে প্রথম চার-পাঁচ লাইন দেখে পড়ে আর নাও পড়তে পারে। মানে আপনি নিজেকে পুরোপুরি উপস্থাপন করার আগেই আপনি রিজেক্টেড। লিখুন সংক্ষেপে, কিন্তু গুছিয়ে-সুন্দর করে।
  • ‘Hello sir’ ‘Dear sir’ অথবা ‘Sir’ বলে কখনই সম্বোধন করবেন না। আমাদের দেশে আমরা স্যার বলাকে কাউকে সম্মান দিয়ে সম্বোধন করা বোঝাই কিন্তু বাইরের দেশে বিশেষ করে ইংলিশ ভাষা-ভাষীর দেশগুলোতে এটাকে আনস্মার্ট ও আনপ্রফেশনাল হিসেবে ধরা হয়। ক্লায়েন্টের নাম দেওয়া থাকলে নাম দিয়ে সম্বোধন করুন। আর না থাকলে শুধু ‘Hello’ বা ‘Hi’ দিয়ে সম্বোধন করুন।
  • শুরুতেই আপনার পরিচয় দিন। এতে কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়। আপনিই ভাবুন, কেউ আপনার কাছে কোনো কাজের জন্য আসল। সে এসেই হড়বড় করে কথা বলা শুরু করে দিল। আরে, আপনার তো আগে তার পরিচয় জানতে হবে নাকি? সে কে, কিসের জন্য এসেছে, কি কাজ এগুলো তো বলতে হবে। তাই আগে নিজের পরিচয় দিন ও আপনি যে তার কাজের জন্য অ্যাপ্লাই করতে চাচ্ছেন তা বলেন।
  • তারপর আপনার স্কিল, কোয়ালিফিকেশন ইত্যাদি বলেন। আপনি কি কাজে পারদর্শী সেটা বলেন। আপনি কি কি কাজ করতে পারেন, কি কি কাজে আপনি এক্সপার্ট সব গুছিয়ে লিখুন।
  • আপনার স্কিলগুলো দিয়ে আপনি কিভাবে তার কাজটি সহজ ও সুন্দরভাবে করবেন তা ব্যাখ্যা করুন।
  • কি কি জিনিস আপনাকে অন্যন্য ফ্রিল্যান্সারদের থেকে আলাদা করে তোলে তা এক বা দুই বাক্যে লিখতে পারেন।
  • সবশেষে ধন্যবাদ দিয়ে শেষ করুন।

hire-me

 

♦ রিয়েল লাইফ এক্সপেরিয়েন্স

 

গতকাল রাতে ( ১৬ জুলাই ২০১৪, রাত ১১:৩০টা। এখন লিখছি ১৭ জুলাই, সকাল ০৮:৪০) দেখি একটা জব ইনভিটেশন আসল। দেখলাম ক্লায়েন্ট বলল সে আমার কাভার লেটার দেখে খুবই ইম্প্রেসড। এবং সে আমাকে হায়ার করতে চায়। স্কাইপে অ্যাড্রেস দিতে বলল। রাত ১২টার দিকে স্কাইপেতে ইন্টারভিউ দিলাম। কাজ হচ্ছে আর্টিকেল রাইটিং এর। রেট ঠিক হল 3.99$/per hour. ব্যাস, তখন থেকেই ইমিডিয়েটলি কাজ শুরু করে দিলাম। তার সাথে অনেকক্ষণ স্কাইপে চ্যাটে কথা হল, জব নিয়ে আলোচনা করলাম। এবং সে আমাকে বলল সে পর্যায়ক্রমে আমাকে পারমানেন্টলি রেখে দিবে এবং তার ব্যবসার প্রসারের সাথে সাথে আমার আয়ও বাড়বে এবং এই প্রোজেক্টে আমাকে বোনাসও দেবে। কাজ শেষ করে একেবারে ঘুমাতে গেলাম সেহরি খেয়ে। ৬:৩০টার দিকে ঘুম ভেঙ্গে গেল। ঘুম আসছিল না। কি করব…কাজ নিয়ে তার পাঠানো ইমেইল গুলো আবার দেখলাম। উল্লেখ্য, ক্লায়েন্ট আমার যে কাভার লেটারের কথা বলছিল সেটা অনেকটা উপরে আপনাদের দেখানো প্যাটার্নে লেখা।

 

ফ্রিল্যান্সিং টিপস নিয়ে সামনে আরও লিখব এবং কিছু রিয়েল লাইফ এক্সপেরিয়েন্সও শেয়ার করে যাব। আশা করি সেই পর্যন্ত আমার সাথেই থাকবেন। ফ্রিল্যান্স ক্যারিয়ার নিয়ে বিভিন্ন কার্যকরী টিপস পেতে আমার সাথে সংযুক্ত থাকতে পারেন:

logo_1google-plus-icontwitter_logo

পোস্টটি পূর্বে প্রকাশিত টিউনারপেজে

 

Sajib.mannan@gmail.com