আউটর্সোন্সিং যাদের শুরু করা মোটেও উচিত নয়।

Mostafizur Rahaman

I am Mostafizur Rahman,an excellent SEO and WEB Research Expert
টিউন করেছেন Mostafizur Rahaman | June 5, 2014 07:30 | পোস্টটি 1,089 বার দেখা হয়েছে

আউটর্সোন্সিং যাদের শুরু করা মোটেও উচিত নয়।


বর্তমানে সবচেয়ে বেশি আলোচিত ,আলোড়িত শব্দ হচ্ছে আউটসোর্সিং বা ফ্রিলেন্সিং।তৃতীয় বিশ্বের দেশ হিসাবে বাংলাদেশের বেকারত্বের ও দরিদ্র‌তার হার প্বার্শবর্তী দেশগুলো থেকেঅনেক বেশি।বেকারত্ব ও দরিদ্র‌তা লাঘবের জন্য বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা,সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শুনে বেকার, শিক্ষিত,অর্ধ-শিক্ষিত,চাকুরিজীবী,গৃহিনী এমন কি পেশাজীবীরা অন্ধের মতো ছুটছে আউটসোর্সিংয়ের বা ফ্রিলেন্সিংয়ের পিছনে।এখানে যারা আসছে তাদের সবার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এক নয়।

  • এখানে কেউ আসে শুধু টাকা ইনকাম করার জন্য
  • এখানে কেউ আসে সময় ব্যয় করার জন্য
  • এখানে কেউ আসে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে ইনকাম করা যায় কিনা তা পরীক্ষা করার জন্য।
  • এখানে কেউ আসে প্রফেশনালী নিজেকে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য দৃঢ় প্রত্যয় ও আত্মবিশ্বাস নিয়ে।

ফ্রিলেন্সিং বা আউটসোর্সিংয়ে সফল হওয়ার জন্য বিশেষ বিষয়ে দক্ষতা ও কিছু সুনির্দিষ্ট গুনাবলির প্রয়োজন আছে যা সবার পক্ষে অর্জন করা সম্ভব নয়, আর এই বিষয় কে সামনে রেখে আলোচনা করবো যাদের ফ্রিলেন্সিং বা আউটসোর্সিংয়ে আসা উচিত নয়।তবে একথা সত্য আমার মতামতের সাথে আপনি একমত না ও হতে পারেন।

কম্পিউটারেরবেসিক জানেনা :

অনেকেই আছেন যারা জানেন না কিভাবে কম্পিউটারের বেসিক কাজ গুলো ভালভাবে করতে হয় অর্থাৎ মাইক্রোসফট অফিস ওয়ার্ড, Excel, পাওয়ারপয়েন্টের কাজগুলো কিভাবে সম্পন্ন করতে হয়।এছাড়া ও ইন্টারনেট ব্রাউজিংয়ের মাধ্যমে কোন তথ্য খুজে বের করা, মেইল প্রেরণ ও গ্রহণ ইত্যাদি।এগুলো না জানলে আপনি কিভাবে আর্ন্তজাতিক মার্কেটে কাজ করে সফল হওয়ার কথা চিন্তা করবেন।

জানার আগ্রহ নেই এমন:

Businessman Sleeping on the Job

প্রযুক্তি সর্বদা পরিবর্তনশীল অর্থাৎ আজকে যেটা সবচেয়ে আধুনিক কালকে সেই প্রযুক্তিকে পেছনে ফেলে আরও আধুনিক প্রযুক্তির উদ্ভাবন হতে পারে।কিন্তু অনেকে আছেন যারা মোটে ও নতুন কিছু জানার জন্য আগ্রহী হয় না ফলে দ্রুত মার্কেট প্লেস গুলোতে তারা তাদের অবস্থান হারায়।এ জন্য জানার ক্ষেত্রে সর্বদা আপনাকে আপডেট রাখতে হবে।আর যারা এ কাজ করতে পারবেন না তাদের আউটর্সোন্সিংয়ে আসা উচিত নয়।

অলস প্রকৃতির:

myhc_12743

অলস মস্তৃক শয়তানের কারখানা। যেকোন কাজের জন্য প্রয়োজন সঠিক উপায়ে কঠোর ও নিয়মিত অনুশীলন।কিন্তু অলসরা কঠোর প্ররিশ্রমতো করেই না বরং তারা আজকের কাজ আগামি দিনের জন্য রেখে দেয় কিন্তু ফ্রিলেন্সিংয়ে কোন কাজ আগামি কালের জন্য রেখে দেওয়ার সুযোগ নেই ।বায়ার রা তাদের কাজ  সঠিক সময়ে না পেলে ভবিষাৎতে আপনাকে ‍দিয়েতো কাজ করাবে না সেই সাথে আপনার দেশের কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান দিয়ে কাজ করা তে চাইবে না।এ জন্য আপনার আউটর্সোন্সিংয়ে আসা উচিত হবে না কারণ আপনিতো অন্যের ক্ষতি করতে পারেন না।

অন্যের উপর নির্ভরশীল:

অন্যের উপর বেশি নির্ভরশীলতা সর্বদা ভাল কিছু অর্জনের অন্তরায় । বিশেষ প্রয়োজনে আপনি অন্যের সাহায্য নিতে পারেন কিন্তু তার উপর নির্ভরশীল হওয়া যাবে না।কিন্তু এমন প্রকৃতির মানুষ আছে যারা নিজে চেষ্টা না করে অন্যকে ‍দিয়ে কাজ করাতে ভালবাসেন বা কোন ছোট সমস্যায় পড়লে ও ‍নিজে সামান্য তম চেষ্টা না করে বস বা সিনিয়র কে দিয়ে কাজটি করাতে সচেষ্ট হন।এই প্রকৃতির মানুষের দ্বারা আউটর্সোসিংকরা সম্ভব নয়।এরা শুধু কিছু সময়ের জন্য অন্য ব্যক্তির বিরক্তের কারণ হয়ে দাড়ায় পরবর্তীতে ঝড়ে পড়ে।তাই শুরুতেই এদের আউটর্সোন্সিংয়ে আসা উচিত নয়।

পত্রিকা বা গল্প শুনে:

IT Professional Network

বর্তমানে বাংলাদেশের দৈনিক ও অন্যান্য ম্যাগাজিন পত্রিকার হট নিউজ হচ্ছে আউটর্সোন্সিং বা ফ্রিলেন্সিং বিষয়ে বিভিন্ন প্রতিবেদন।যার অধিকাংশ থাকে সফলতার কাহিনী বিষয়ক।আর এই প্রতিবেদন পড়ে কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের দরিদ্র‌্যও বেকার যুবকরা কোন প্রকার কাজের ধারনা ছাড়াই বেশি পরিমান টাকা ইনকাম করার উদ্দেশ্যে আউটর্সোন্সিং পেশায় নিজেকে নিয়োজিত করে।কিন্তু কাজের কোন দক্ষতা না থাকায় তারা কোন ধরনের সফলতা তো দুরে থাক বিভিন্ন ভাবে প্রতারিত হয়ে নিজেরা সর্বশান্ত হয়।তাই শুধু মাত্র প্রত্রিকা বা গল্প শুনে আউটর্সোন্সিং শুরু করা উচিত নয়।

অত্যন্ত ব্যস্ত ব্যক্তি:

busy-man-752x483

বর্তমানে আউটর্সোন্সিংকে অনেকে সেকেন্ডারি কাজ হিসাবে বিবেচনা করে থাকেন তারপর ও এ কাজে আপনাকে সফল হতে হলে অবশ্যিই নির্দিষ্ট একটা সময় আপনাকে ব্যয় করতে হবে এবং সেটা অবশ্যই রুটিন অনুযায়ী করতে হবে । কোন ভাবে একেক দিন একেক সময় করা যাবে না।তাই যারা সর্বদা ব্যস্ত তাদের আউটর্সোন্সিং মোটে ও উপযোগি নয়।

মার্কেট প্লেস সর্ম্পকে ধারনা নেই এমন:

Start-on-oDesk

কোথায় কিভাবে কাজ পাওয়া যায় সে সর্ম্পকে সুস্পষ্ট ধারনা থাকা একান্ত জরুরি । এ জন্য  oDesk.com,  Elance.com,  Freelancer.com  প্রভৃতি মার্কেট প্লেসে কিভাবে এ্যাকাউন্ট খোলা ও প্রফাইল তৈরী করতে হয় এবং কাজের জন্য বিড করা, কাজ রিসিভ করা ও কাজ জমা দেওয়া প্রভৃতি  বিষয়ে ভাল ভাবে জানতে হবে।যারা এই মার্কেট প্লেস সর্ম্পকে জানেন না তাদের ফ্রিলেন্সিং কাজে অগ্রসর হওয়া উচিত নয়।

অতি আত্মবিশ্বাসী:

Competition

আত্ম বিশ্বাস ছাড়া সফলতা অর্জন অত্যন্ত কঠিন কিন্তু অতি আত্মবিশ্বাস মানুষ নিজের অজান্তে তার সর্বনাশ ডেকে আনে।অতি আত্মবিশ্বাসী মানুষ প্রায়ই বাস্তবতাকে এড়িয়ে সফল হওয়ার চেষ্টা করে যা অনেক সময় সম্ভব না ও হতে পারে।অনলাইন মার্কেটে অতিআত্মবিশ্বাসীরা কাজ শুরু করেন আর ভাবেন তারা অতি সহজে কাজ করতে সক্ষম হবেন কিন্তু বাস্তবে তারা হতাশ হয়ে ফিরে যান।তাই অতি আত্মবিশ্বাসীদের আউটর্সোন্সিংয়ে সম্পৃক্ত হওয়া উচিত নয়।

ধৈর্য্হীন:

ধৈর্য্ সফলতার মূলমন্ত্র।আউটর্সোন্সিং বা ফ্রিলেন্সিংয়ে সফল হওয়ার এক মাত্র উপায় হচ্ছে ধৈর্য্ ধরে চেষ্টা করে যাওয়া।আউটর্সোন্সিং বা ফ্রিলেন্সিংয়ে সফল হওয়ার জন্য আপনাকে হয়তো এক সপ্তাহ থেকে এক বছর পর্য্ন্ত ধৈর্য্ ধরে চেষ্টা করা লাগতে পারে।এ ক্ষেত্রে ধৈর্য্  হীন ব্যক্তি ব্যর্থ হবে কারণ তারা দীর্ঘ সময় ধৈর্য্ ধরতে পারবে না। তাই এ ধরনের মানুষের আউটর্সোন্সিং বা ফ্রিলেন্সিংয়ে আসা উচিত নয়।

ফেসবুকেআমি, আপনারকোনমতামতপাঠাতে Click Here