এলইডিপি কোর্সে সফলদের মুখোমুখি (অতিথিঃ রাহিমা সিদ্দিকা)

টিউন করেছেন admin | March 28, 2017 01:59 | পোস্টটি 868 বার দেখা হয়েছে

রাহিমা সিদ্দিকা চট্টগ্রামে শুরু হওয়া লার্নিং এন্ড আর্নিং প্রজেক্টের ১ম ব্যাচের স্টুডেন্ট। ২০১৬সালের ২৩নভেম্বর ওয়েব ডেভেলপমেন্টের উপর এ কোর্সটি শুরু হয়েছিল চট্টগ্রামের সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশে। সেই ব্যাচের দক্ষ প্রশিক্ষক, জেকুব নাথের প্রশিক্ষন এবং প্রশিক্ষনের বাইরেও সহযোগিতা পেয়ে রাহিমা এখন পযন্ত ৭০০ডলার ইনকাম করেছে। এলইডিপি কোর্সের মাধ্যমে সফল হওয়া এ নারীর মুখোমুখি হয়েছে জেনেসিসব্লগস টীম। তার কাছে বিভিন্ন প্রশ্নের মাধ্যমে সফলতার গল্পগুলো জেনে নিয়েছি, যা আজ পাঠকদের সাথে শেয়ার করছি। ledp_rahima

প্রশ্ন-১: আপনি কখন থেকে ফ্রিল্যান্সার হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন? কেন ফ্রিল্যান্সার হতে আগ্রহী হলেন?

রাহিমাঃ আমার ছোটবেলা থেকেই ইচ্ছে ছিল ডাক্তার হব। এস.এস.সি তে রেজাল্ট খারাপ হবার কারনে আমি চট্টগ্রাম মহিলা পলিটেকনিক এ সি.এস.ই তে ডিপ্লোমা করি। আমার ইচ্ছে ছিল পড়ালেখার পাশাপাশি কিছু একটা করব। তখন ছিল ২০১৫ সাল, আমি যখন মিডিয়াতে, টকশোতে, অনলাইনে অনেক ফ্রিল্যান্সারদের গল্প শুনতাম তখন থেকে ইচ্ছে হলো ফ্রিল্যান্সার হবার। অনলাইনে যখন আয় করা যায় শুনতে পেলাম তখন ভাবলাম আমার নিজের কিছু করতে হবে। যেহেতু ইচ্ছে হলো নিজে কিছু করব তাহলে মেয়ে হয়ে কেন বাহিরে কাজ করব সেটা ভাবলাম। আমিও ঘরে বসে ইনকাম করতে চাই। আর সেজন্যই মূলত ফ্রিল্যান্সিং করার প্রতি আগ্রহ।

প্রশ্ন-২: আপনি কোন সাবজেক্ট এ কোর্স করেছেন কেন এ সাবজেক্ট বাছাই করেছেন?

রাহিমাঃ সি.এস.ই এর ছাত্রী হিসাবে আমার আগে থেকেই ইচ্ছা ছিল কোন দিক বেছে নিবো যেটাতে আমি দক্ষভাবে কাজ শিখব এবং সেটাতে আমি দক্ষভাবে কাজ করব। আগে থেকেই ডিজাইন করতে আমার ভালো লাগত। আমি যখন অনলাইনে ঘাঁটাঘাঁটি করতাম তখন বিভিন্ন ডিজাইন করা সুন্দর সুন্দর পেইজ দেখতে পেতাম। তখন আমার মনে খুব অনুপ্রেরণার সৃষ্টি হয়। ইচ্ছে হয় আমিও এরকম পেইজের ডিজাইন করব। তাই আমি অনলাইনে ঘাঁটাঘাঁটি করতে থাকি ওয়েব ডিজাইন নিয়ে। যেহেতু আমার ডিজাইন করতে ভালো লাগে তাই আমি ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভলপমেন্ট বেছে নিয়েছি।

প্রশ্ন-৩: কোর্স চলাকালীন কত দিনের মধ্যে এবং কত টাকা ইনকাম করেছেন?

রাহিমাঃ কোর্স চলাকালীন দুই মাসের মধ্যে আমি ইনকাম করেছি এবং ৭০০ ডলার ইনকাম করেছি।

প্রশ্ন-৪: এখন পর্যন্ত কত ইনকাম হয়েছে? কোন সোর্স হতে ইনকাম গুলো হয়েছে?

রাহিমাঃ ৭০০ ডলার ইনকাম হয়েছে। ২০০ ডলার মার্কেট প্লেস এ এবং ৫০০ ডলার মার্কেট প্লেস এর বাহিরে ইনকাম হয়েছে।

প্রশ্ন-৫: লার্নিং এবং আর্নিং এ কোর্স করার আগে ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ে কতটুকু জ্ঞান ছিল?

রাহিমাঃ ২০১৫ সালে আমি আমার একজন পরিচিত মানুষের কাছে জানতে পারি অনলাইনে ঘরে বসে ইনকাম করা যায়। তখন মনে ইচ্ছে জাগল ফ্রিল্যান্সিং করার। কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে যে পরিমান দক্ষতার প্রয়োজন আমার তখন সেই দক্ষতা ছিল না। গত বছর অক্টোবরে আমার ডিপ্লোমা ফাইনাল পরীক্ষা চলাকালে আমি এল.ই.ডি.পি কোর্স সম্পর্কে জানতে পারি এবং ভাবলাম এটাই হয়তো সুযোগ আমার দক্ষতা বাড়ানোর। তাই রেজিস্ট্রেশন করে সেখানে কোর্স করা আরম্ভ করি এবং সেখান থেকে ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পারি। সেখান থেকে ফ্রিল্যান্সিং জগতে আসা।

প্রশ্ন-৬: এত অল্প সময়ে সফলতার পিছনে বিশেষ কোন কারণ থাকলে সেটি শেয়ার করুন?

রাহিমাঃ অল্প সময়ে সফলতার পিছনে কারন হলো আমার বাবার সাপোর্ট এবং আমার চেষ্টা। আমার বাবার সাপোর্টের কারনে আজ আমি এতটুকু আসতে পেরেছি। বাবা ছোট বেলা থেকেই বলতেন মেয়েকে ডাক্তারি পড়াবো। দুর্ঘটনা বশত সেটা হলো না। তাই আমার অনেক মন খারাপ থাকত। বাবা বলত মন খারাপ করো না। যা নিয়ে পড়ছ সেটাতে মন দাও, ভালো কিছু করতে পারবে। বাবার সেই কথাটা মনে রেখে কাজ করতাম।

প্রশ্ন-৭: ট্রেনিং শুরু করার আগে যা প্রত্যাশা করেছেন বাস্তবতার সাথে কতটুকু মিল খুজে পেয়েছেন?

রাহিমাঃ ট্রেনিং শুরু করার আগে ভেবেছিলাম সরকারি কোর্স তেমন কিছুই শেখাবেনা। ২-৩ দিন ক্লাসে গিয়ে দেখি কি অবস্থা তারপর আর যাব না। কিন্তু কিছুদিন ক্লাস করার পর দেখলাম নতুন কিছু শেখাচ্ছে। ভালোই লাগছিল। তাই কোর্সটা কমপ্লিট করার ইচ্ছ জাগল এবং ভাবলাম এটাই হয়ত আমার ক্যারিয়ার গঠণের সুযোগ। ট্রেনিং শুরু করার আগে যা প্রত্যাশা করেছি তার থেকে অনেক বেশি কিছু পেয়েছি।

প্রশ্ন-৮: সরকারী ট্রেনিংগুলোর ব্যাপারে সোশ্যাল মিডিয়াতে অনেক মিডিয়াতে নেতিবাচক কথা শোনা যায়, সেগুলো কতটুকু সত্য?

রাহিমাঃ আসলে যারা সরকারি কোর্সটা করেনি এবং যাদের ধারণা নেই কোর্সটা সম্পর্কে তারাই নেতিবাচক কথা বলবে। তাই আমার মতে তাদের উচিত যারা কোর্সগুলো করেছে তাদের থেকে কোর্স সম্পর্কে ধারনা নেওয়া। তাহলে হয়তো নেতিবাচক কথা শোনা যাবে না।

প্রশ্ন-৯: ট্রেনিং সম্পর্কে বিশেষ কিছু কিংবা বিশেষ কোন মুহুর্ত পাঠকদের সাথে শেয়ার করতে পারেন?

রাহিমাঃ এই ট্রেনিং এ আমি ২০০ ঘন্টা ক্লাস করি এবং এই ২০০ ঘন্টাই ছিল আমার কাছে বিশেষ মূহুর্ত। আমাদের প্রশিক্ষক আমাদেরকে প্রতিদিনই নতুন কিছু শেখাতো। আর আমি এই কোর্স এ নতুন নতুন ভাই ও বোনদের সাথে পরিচিত হই এবং তাদের থেকেও অনেক কিছু শিক্ষা লাভ করি। তাই ২০০ ঘন্টার প্রতিটি ক্লাসই ছিল বিশেষ মুহুর্ত।

প্রশ্ন-১০: আপনার সফলতার জন্য আপনি কারও প্রতি কৃতজ্ঞ থাকলে এ সাক্ষাৎকারে কৃতজ্ঞতা জানাতে পারেন?

রাহিমাঃ আমি সর্বপ্রথম মহান আল্লাহ্ তালার নিকট শুকরিয়া আদায় করছি এবং ধন্যবাদ জানাচ্ছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে । উনি যদি বিনামূল্যে এই প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা না করতেন তাহলে হয়তো ফ্রিল্যান্সিং জগতে আসা হতো না। তাছাড়া পরিবারের বাহিরে আমার পাশে এমন একজন মানুষ আছেন যিনি নি:স্বার্থভাবে সবসময় আমাকে মানসিক ভাবে সাপোর্ট দিয়ে গেছেন। আর আমি মনে করি একজন মানুষের বড় হবার পিছনে মানসিক সাপোর্ট অনেক প্রয়োজন। আমার ফ্রিল্যান্সার হবার পিছনে উনার অবদান অনেক বেশি। উনি সবসময় আমাকে ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে উৎসাহ দিতেন। আমি উনার প্রতি অনেক কৃতজ্ঞ। এছাড়া আমি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি আমার সম্মানিত প্রশিক্ষক জেকুব নাথ স্যারের কাছে।

প্রশ্ন-১১: যারা কোর্স করেছেন, তারা সবাই এখনও সফল হয়নি। যারা এখনও সফল হয়নি, তাদের প্রতি আপনার কোন উপদেশ থাকলে সেটি বলতে পারেন।

রাহিমাঃ যারা কোর্স করেছেন সফল হতে পারেন নি তাদের প্রতি আমার অনুরোধ অনেক সময় দিন এবং ধৈর্য্য ধরুন। সামনে চলতে গেলে অনেক বাধা আসবে। তাই থেমে থাকলে চলবে না। প্রথম অবস্থায় কাজ পাওয়াটা একটু কষ্ট। তাই হতাশ না হয়ে সময় দিন এবং ধৈর্য্য ধরুন। অবশ্যই সফলতা আসবে।

প্রশ্ন-১২: ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি ?

রাহিমাঃ ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা হলো আমি দক্ষ ফ্রিল্যান্সার হতে চাই এবং আমি আমার গ্রামে, আমার আশে পাশে যারা আছেন তাদের বিনা মূল্যে ফ্রিল্যান্সিং শিখিয়ে আমার দেশ ও আমার জাতিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই।

বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের লার্নিং  এন্ড আর্নিং প্রজেক্টের কোর্স করে যারা সফল হয়েছেন, তাদের গল্পগুলো জেনেসিসব্লগসের পাঠকদের জন্য এখন  থেকে নিয়মিত প্রকাশ করা হবে। সফলদের থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে অন্যরাও যাতে তাদের পরবর্তী পথকে সাজাতে পারে, সেই লক্ষ নিয়ে জেনেসিসব্লগস টীম কাজ করে যাচ্ছে।

  • Sujit Barua Arnab

    জেকুব ভাইয়ের বিকল্প নাই। উনি সবসময় সেরা একজন ভাল ট্রেইনার কিন্তু সব বাতলে দিতে পারে জেকুব ভাই তার উজ্জ্বল উদাহরন।