”ফ্রেন্ডশীপ ডে” উপলক্ষ্যে ব্লগিং বা ভিডিও চ্যানেলের মাধ্যমে বছরের সেরা ইনকাম করতে পারতেন

ekram

বর্তমানে অনলাইন মার্কেটার হিসেবে কাজ করছি, ওয়েবডিজাইন এবং গ্রাফিকসটাও নিজের নেশা। আইটি প্রতিষ্ঠান, ন্যাশনাল আইটি ইন্সটিটিউট (https://www.facebook.com/nationalinst) এর সিইও । জেনেসিসব্লগসের প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডমিন ।
টিউন করেছেন ekram | August 7, 2016 00:51 | পোস্টটি 1,465 বার দেখা হয়েছে

ফ্রেন্ডশীপের আনন্দ কয়েকগুণ বেড়ে যেত, যদি নিজের ইনকাম করা পকেট ভর্তি টাকা নিয়ে বন্ধুদের সাথে আড্ডা দেওয়া যেত। শুধু ফ্রেন্ডশীপ না, যেকোন বিশেষ দিবসগুলোর আনন্দ বেড়ে যায়, যদি দিবসটি নিজের ইনকামের টাকা এবং পকেট ভর্তি টাকা নিয়ে কাছের মানুষদেরকে নিয়ে সময় কাটানো যায়। আপনি কি জানেন, এসব দিবসকে কেন্দ্র করে প্রচুর মানুষ অনলাইন হতে বিশাল পরিমাণ ইনকাম করে। বিষয়টা খুব মজার না? এসব দিবসকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন দোকান কিংবা মার্কেটগুলোতে প্রচুর ইনকাম টার্গেট করে অনেকধরনের প্রস্তুতি নেয়, সেটিতো সবাই দেখেছেন। ফ্রেন্ডশীপ ডে, ঈদ কিংবা অন্যান্য দিবসগুলোতে শপিংমলগুলোতে কেনা বেচা বেড়ে যায়। আপনার সেরকম দোকান না থাকলেও অনলাইনতো রয়েছে। এরকম দিবসকে কেন্দ্র করে আপনিও অনলাইনে স্পেশালভাবে বড় একটা ইনকাম করতে পারেন।

বিষয়টি খুব আশ্চযজনক লাগছে, তাইনা? আজকের পোস্টে, সেবিষয় নিয়ে বিস্তারিত গাইডলাইন দেওয়ার চেষ্টা করবো। এ লেখাটি ”ফ্রেন্ডশীপ ডে” তে আমার সকল বন্ধুদের জন্য বিশেষ গিফট হিসেবে উপহার দিচ্ছি।

friendship

কিভাবে ইনকাম হবে?

যেসব দিবসে মানুষের ইমোশন, আগ্রহ খুব বেশি থাকে, সেসব দিবসগুলোতেই ইনকামটা বেশি করা সম্ভব। কারণ এসব দিবসগুলো মানুষের মনের ভিতর অন্য ধরনের ক্রেজ সৃষ্টি হয়। এ ক্রেজটিকে যতটা পারেন কাজে লাগিয়ে ব্লগিং করুন কিংবা ইউটিউবে ভিডিও চ্যানেল তৈরি করুন। ব্লগ সাইটটিতে এ কেন্দ্রিক মিনিমাম ২০টি ব্লগ পোস্ট করুন। ইউটিউব চ্যানেলটিতে মাত্র ২০টি ভিডিও পোস্ট করুন। মানুষের আগ্রহ তৈরি হবে, সেরকম প্লান সাজিয়ে এ পোস্টগুলোকে মার্কেটিং করুন। এ টাইমে সবার ভিতরে একটা ক্রেজ থাকার কারনে দেখবেন ভিজিটর প্রচুর পরিমানে বেড়ে যাবে। আর ভিজিটর বাড়লেইতো ইনকাম পরিকল্পনা করা যায়। ও ভুলে গেছি একটা কথা বলতে। ব্লগ পোস্ট করা, ভিডিও তৈরি করা এবং মার্কেটিং শুরু করতে হবে দিবসটির কমপক্ষে ২মাস আগ থেকে। সেসময় থেকেই ব্লগে ভিজিটর পাবেন। ধরে রাখবেন, যেদিনটি বিশেষ দিবস, ঠিক সেদিনের ১দিন আগে থেকে ভিজিটর বেড়ে যাবে অনেক অনেক অনেক গুণ। ঠিক যেমন লোকাল ব্যবসাতে চিন্তা করে দেখেন, ঈদের ১.৫ মাস আগ হতে মার্কেটগুলো নতুন নতুন প্রোডাক্ট উঠায়, প্রচার প্রচারণাও মার্কেটগুলোতে শুরু হয়ে যায় ১.৫মাস আগ হতে। সেসময় হতে টুকটাক সেল শুরু হয়ে যায়। কিন্তু ঈদের আগে শেষ সপ্তাহে বিক্রি বেড়ে যায় অনেকগুণ, আর ঈদের আগের রাত যাকে চাঁদ রাত বলে, সেই রাতেতো বছরের শ্রেষ্ঠ ইনকাম হয় কাপড় ব্যবসায়ীদের। ঠিক একই ঘটনাও অনলাইনে ইনকামের ক্ষেত্রে ঘটে।

খুব মেজাজ খারাপ হচ্ছে মনে হয়, বক বক করছি, ইনকামটা কিভাবে হয়, সেটিই এখন পযন্ত বলছিনা।

আচ্ছা এবার বলছি, আগেই বলেছি, যখন ভিজিটর পেয়ে যাবেন প্রচুর, তখন ইনকাম পরিকল্পনাও করা যাবে প্রচুর।

দেখে নিন, কি কি উপায়ে ইনকামটা সম্ভব হবে?

১) অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে ইনকাম: ভিজিটর বাড়লেই অ্যাডসেন্সের ইনকামও বেড়ে যায় কয়েকগুণ, বিষয়টি নিয়ে নিশ্চয়ই বিস্তারিত বলার প্রয়োজন নাই।

২) অ্যাফিলিয়েশন মাধ্যমে ইনকাম: বন্ধু কেন্দ্রিক ব্লগ সাইট কিংবা ভিডিও চ্যানেলে যেহেতু প্রচুর ভিজিটর পাচ্ছেন, তাই বন্ধু দিবস কেন্দ্রিক যেসব প্রোডাক্টে অ্যাফিলিয়েশন সাইটগুলোতে বিশেষ অফার দিচ্ছেম সেগুলোর প্রমোশন আপনার চ্যানেলে কিংবা ব্লগে করে আসতে পারেন। এক্ষেত্রে বন্ধু দিবস উপলক্ষ্যে গিফট আইটেমগুলোর প্রমোশন আপনার ব্লগে কিংবা ইউটিউব চ্যানেলটিতে করতে পারেন।

৩) টি-শার্ট অ্যাফিলিয়েশন: বন্ধু দিবসের টি-শার্ট ডিজাইন করে, সেটি নিয়ে আপনার বন্ধু কেন্দ্রিক ব্লগ সাইট কিংবা ভিডিও চ্যানেলটিতে বন্ধু দিবসের ১০দিন আগ হতে টি-শার্টটির বিক্রির লিংকটির প্রমোশন করতে পারেন।

৪) সিপিএ মার্কেটিং: বন্ধু দিবসের বিশেষ  অফার সিপিএ মার্কেটপ্লেসগুলোতে দেখতে পাবেন। সেগুলো আপনার ব্লগের মধ্যে কিংবা ভিডিও চ্যানেলটিতে প্রমোশন করে বিশাল একটা ইনকাম বের করে নিয়ে আসতে পারেন এ একটি দিবসেই।

৫) লোকাল প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন: লোকাল বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধু দিবস উপলক্ষ্যে বিশেষ বিশেষ অফার দেয়। তাদের কাছ হতে আপনার ব্লগের কিংবা ভিডিও চ্যানেলটির জন্য বিজ্ঞাপন নিয়ে নিতে পারেন।  শুধু সেই সব প্রতিষ্ঠানকে বোঝানোর চেষ্টা করুন,

-    ব্লগের ভিজিটর কারা

-   পার ডে, মাসিক ভিজিটর কেমন?

-   কি টপিকসের উপর ব্লগটি কিংবা চ্যানেলটি।

৫টি ইনকাম দেখালাম। ইনকাম সেক্টরগুলো দেখানোর সময়, আমি শুধু ফ্রেন্ডশীপ ডের কথাই বলেছি, যেহেতু এ লেখাটি ফ্রেন্ডশীপ দিবসের বিশেষ লেখা। একইভাবে অন্য দিবসগুলোতেও ইনকাম করতে পারবেন।

ইনকাম রাস্তাতো দেখেছেন, এখন নিশ্চয়ই প্রশ্ন জাগছে, ব্লগে কি লিখবো কিংবা ভিডিও চ্যানেলটিতে কি ভিডিও বানাবো? এ উত্তরটি জানতে নিচের প্যারাটি পড়ে ফেলুন:

blogging-money

ফ্রেন্ড দিবস উপলক্ষ্যে ব্লগের কিংবা ইউটিউবের ভিডিওর কনটেন্ট আইডিয়া:

আমি এখানে কয়েকটি স্যাম্পল আইডিয়া দিচ্ছি, বাকিগুলো নিজের মাথা ঘামিয়ে খুজে বের করবেন।

ব্লগ পোস্টের আইডিয়া:

-   বন্ধুদের সাথে কাটানো বিভিন্ন স্মরনীয় ঘটনা সিরিজ আকারে এমনভাবে লিখেন যাতে পাঠক স্মৃতিকাতর হয়ে উঠে।

-   বিভিন্ন বিখ্যাত ব্যক্তিদের বন্ধুদের কোন মজার গল্পের সিরিজ লিখতে পারেন।

-   বিভিন্ন দেশের বন্ধুত্বের ভিন্নতা নিয়ে বিশ্লেষণধর্মী লেখা লিখা যেতে পারে।

-   প্রাণীকুলের বন্ধুত্ব নিয়ে ইন্টারেস্টিং তথ্যধর্মী লেখা ভালই লাগবে।

-   দেশে দেশে বন্ধু দিবস পালন শিরোনামে লিখা অনেক আকর্ষণীয় হবে।

প্রতিটা আর্টিকেল চেষ্টা করুন মিনিমাম ২০০০ শব্দের যাতে হয়। অবশ্যই ইউনিক এবং পাবলিক যাতে পড়তে বোরিং না হয় এমনভাবে লিখতে।

ভিডিও চ্যানেলের কনটেন্ট আইডিয়া:

-   বন্ধুদের মধ্যে অনেক পঁচানি, খুনসুটি চলে। এগুলোকে নিয়ে ৩-৪ মিনিটের নাটিকা করতে পারেন।

-   বন্ধুদের সাথে মজার বিভিন্ন ঘটনা বিভিন্ন জনপ্রিয় ব্যক্তিদের মুখ থেকে সবাই শুনতে পেলে মজার ব্যপার হবে। এরকম কিছু রেকর্ড করতে পারেন।

-   নিজের বন্ধুদের সাথে ঘটা ঘটনাগুলো মজা করে সবা্র সামনে ভিডিওতে উপস্থাপন করতে পারেন। সবাই স্মৃতিকাতর হয়ে উঠবে।

-   বিভিন্ন দেশের বন্ধুদিবসের আয়োজন নিয়ে ডকুমেন্টারী হতে পারে।

-   বন্ধু সম্পর্কিত বিভিন্ন বানীগুলো নিয়ে আকর্ষনীয় এবং প্রফেশনাল লুকের স্লাইডশো বানাতে পারেন।

এসব আইডিয়া নিয়ে নিজের মাথাকে কাজে লাগিয়ে ব্লগ অথবা ই্উটিউব চ্যানেল বানিয়ে ২মাস আগ থেকে সাইটটির মার্কেটিং শুরু করে দিন। এরপর ভিজিটর আসা শুরু করলে দিবসটির ১৫দিন আগে আপনার ইনকাম হবে এরকম লিংক সেখানে ব্যবহার শুরু করেন। কমপক্ষে ১০টি আর্টিকেল বা ১০টি ভিডিও পোস্ট করার আগ পযন্ত এবং কমপক্ষে ৩০০০ভিজিটর পার ডে আসার আগ কোন ধরনের অ্যাড লিংক ব্যবহার না করাটাই ভালো। সকল কিছুতে ভাষা অবশ্যই ইংরেজী হবে এবং বেশি ইনকামের জন্য কানাডা, আমেরিকা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া এসব দেশের মানুষদের কাছে মার্কেটিং করুন।

কোন কোন দিবসগুলোতে বেশি ইনকাম করতে পারবেন?

ভ্যালেন্টাইনস ডে, বাবা দিবস, মা দিবস, নারী দিবস, ব্লাক ফ্রাইডে, খ্রিষ্টানদের বড় দিন, বিভিন্ন জাতির নববর্ষ ইত্যাদি। কবে কোন দিবস, সেটি গুগল থেকে সার্চ দিয়ে বের করে নিন। এর বাইরেও অনেক দিবস আছে, সেগুলো টার্গেট করেও কাজ করতে পারেন, ভাল ইনকাম পাবেন। তবে সবচাইতে বেশি ইনকাম টার্গেট করে কাজ করা হয় যে দিবসগুলোতে, সেগুলোই শুধু এখানে উল্লেখ করা হলো।

ব্লগ কিংবা ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে ইনকামের ব্যপারে পূর্ণাংগ গাইডলাইন পেতে আমার এ লেখাটি পড়ে দেখুন:  ব্লগ কিংবা ইউটিউব চ্যানেলে মাধ্যমে ইনকামের গাইডলাইন

 

  • http://www.kazirhut.com/ kazirhut

    ভাল লিখেছেন। ধন্যবাদ একরাম ভাই।