জানতে হবে অনেক কিছু – ২ (ভিডিও সহ)

ekram

বর্তমানে অনলাইন মার্কেটার হিসেবে কাজ করছি, ওয়েবডিজাইন এবং গ্রাফিকসটাও নিজের নেশা। আইটি প্রতিষ্ঠান, ন্যাশনাল আইটি ইন্সটিটিউট (https://www.facebook.com/nationalinst) এর সিইও । জেনেসিসব্লগসের প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডমিন ।
টিউন করেছেন ekram | February 21, 2016 03:39 | পোস্টটি 1,087 বার দেখা হয়েছে

ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ক ধারাবাহিক সিরিজ ভিডিওসহ ‍ প্রকাশ করা হবে।

“ফ্রিল্যান্সিংয়ের জন্য কি শিখব? ” এ উত্তরটি পাওয়ার জন্য ধারাবাহিকভাবে পোস্টগুলো পড়তে থাকুন।

  আজকের পর্ব: ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার হিসেবে এসইও  

এসইও কে কেন ক্যারিয়ার হিসেবে নিব, যে কয়েকটি কারনে:

free

 

১) দ্রুত ইনকামে নামা যায়: পূর্ণাংগ এসইও প্রজেক্ট নিয়ে ইনকামে নামতে সময় লাগলেও এসইওর অনেকগুলো শাখার মধ্যে যেকোনটি দিয়েই দ্রুত ইনকাম শুরু করে দেয়া যায়। যেমন: কীওয়ার্ড রিসার্চ/ আর্টিকেল রাইটার/ লিংক বিল্ডিং কিংবা যে কোনটি দিয়েই ইনকাম শুরু করে দেওয়া যায়। তবে মনে রাখতে হবে, এ ইনকাম এসইও এক্সপার্ট হিসেবে আয় না, এটা হবে এসইও টিমের একজন মেম্বার হিসেবে আয়। সুতরাং এ ইনকামটা বড় ইনকাম হবেনা। তার মানে বুঝা যাচ্ছে, পূর্ণাংগ এসইও এক্সপার্ট না হয়েও ইনকাম শুরু করে দিতে পারবেন।
২) মার্কেটপ্লেসে কাজের পরিমাণ বেশি: এসইও সম্পর্কিত কাজগুলো সকল মার্কেটপ্লেসেই অপেক্ষাকৃত অন্য কাজের চাইতে বেশি থাকে। কাজের পরিধি অনেক হওয়ার কারনে কাজের সংখ্যাটাও বেশি থাকে। তাই দক্ষতা অর্জন করলে কাজের জন্য অভাব হয়না।
৩) মার্কেটপ্লেস ছাড়াও ইনকাম: এসইওতে দক্ষ হলে ইনকামের জন্য মার্কেটপ্লেসের উপর নির্ভর করতে হয়না। নিজের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে সেটি হতেই বিভিন্ন উপায়ে (বিজ্ঞাপন, প্রোডাক্ট বিক্রি, অ্যাফিলিয়েশন ইত্যাদি) ইনকাম করা সম্ভব হয়। সুতরাং ইনকামের জন্য মার্কেটপ্লেসের বিরক্তিকর বিড করার ঝামেলা এড়ানো সম্ভব হয়।
৪) ইনকামের সেক্টর প্রচুর: অ্যাডসেন্স, অ্যাফিলিয়েশন, সিপিএ মার্কেটিং, ইকমার্স ব্যবসা, লোকাল ব্যবসার জন্যই এসইও দক্ষতা দিয়ে সফল হতে হয়। এতগুলো কাজের সেক্টরের যেকোনটি হতেই ইনকাম করতে পারবেন, তবে দক্ষতা ছাড়া সফল হবেন না, এ বিষয়টাতে নিশ্চিত থাকেন।
৫) এসইওতে টিম হিসেবে সফলতার সুযোগ: এসইও প্রজেক্টটি টিম হিসেবে কাজ করার সুযোগ থাকার কারনে অনেক কিছুতে দুর্বলতা থাকলেও টিম মেম্বার হিসেবে কাজ করেই অনলাইনে ইনকাম করার সুযোগ থাকে। অর্থাৎ ধরি, আপনি আর্টিকেল রাইটিংয়ে দুর্বল কিন্তু কীওয়ার্ড রিসার্চের কাজে দক্ষ, সেক্ষেত্রে কীওয়ার্ড রিসার্চের কাজটি এসইও টিমের মেম্বার হিসেবে করতে পারবেন।
৬) নিজের ব্যবসা গড়া সম্ভব: একজন এসইও এক্সপার্ট ব্যবসার শুরুর জন্য প্রোডাক্ট বাছাই, ব্যবসার কম্পিটিটরকে অ্যানালাইস, ব্যবসার মার্কেটিং, ব্যবসার অবস্থা অ্যানালাইস করা থেকে শুরু করে ব্যবসার প্রয়োজনীয় সকল কিছুতে দক্ষতা অর্জনের উপর ট্রেনিং প্রাপ্ত হয়। সুতরাং একজন এসইও এক্সপার্টই পারে সফল উদ্যোক্তা বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের স্বপ্ন দেখতে।
৭) সবচাইতে বড় ইনকাম: মানুষ ইউরোপে যেতে চায় যে পরিমাণ ইনকামের জন্য, দেশে বসে সে পরিমান ইনকাম করতে চাইলে এসইওতেই শুধুমাত্র সম্ভব। আনলিমিটেড ইনকাম সম্ভব। বাংলাদেশে অনেক এসইও এক্সপার্ট রয়েছে যাদের প্রতিদিনের ইনকাম হচ্ছে ৫০০ ডলার। এমনকি এরচাইতেও বেশি ইনকাম করছে এরকম অনেকেও রয়েছে। 


** বিশেষ সতর্কতা, এরকম ইনকামের লোভে পড়ে এসইও শিখার আগে মনে রাখবেন, প্রায় ৫-৬বছর একটানা পরিকল্পিত কাজ করার পরই একজনের ইনকাম মাসে ১০লাখ টাকার উপর হচ্ছে। সুতরাং শুরু করেই এ টাকার ইনকামের স্বপ্ন দেখে আমার লেখাটার বদনাম না করার জন্য অনুরোধ করা হচ্ছে।

ভিডিও লিংক: