ফ্রিল্যান্সিংয়ে নতুন কিন্তু সফলদের আড্ডা (অতিথিঃ মোঃ সাদিম হোসেন )

টিউন করেছেন admin | May 11, 2015 08:35 | পোস্টটি 899 বার দেখা হয়েছে

ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি আলাদা  দুর্বলতা ছিল মো: সাদিম হোসেন এর । এইচ এস সি শেষ করার পর কিছু করার চিন্তা থেকে জাতীয় যুব প্রতিষ্ঠান থেকে কিছু কাজ শিখেন। যদিও  তা কোনো কাজে আসে নি।তারপর  ২০১১ সনে গ্রাফিক্স এর কাজ শিখেন , এরপর ই  লোকাল মার্কেটে কাজ করেন এবং  ২০১২ সনে এস ই ও শিখে  পুরোপুরি ফ্রিল্যান্সিং জগতে প্রবেশ করেন সাদিম।ফ্রিল্যান্সিং করে প্রায় লাখ খানেক টাকা আয় করা এই সফল ফ্রিল্যান্সার ODesk এই কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দবোধ করলেও বর্তমানে কাজ করছেন লোকাল মার্কেট গুলোতেও ।

 frilancer

১।  ফ্রিল্যান্সিং  এ কিভাবে উদ্বুদ্ধ হইয়েছিলেন?

সাদিমঃ আসলে কবে কিভাবে ফ্রিল্যান্সিংয়ে আসলাম তা ঠিক মনে করতে পারছি না তবে ২০১১ সালে মিরপুরস্থ একটি প্রতিষ্ঠানে একদিনের একটা ওর্য়াকশপ করেছিলাম । তখন থেকেই ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে আইডিয়া পাই।তার পর তালতলা একটি প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রাফিক্স ডিজাইন শিখি, কিন্তু তাতে সফল হতে পারি নাই। কিন্তু থেমে থাকি নাই । কাজ চালিয়ে গেছি  ।২০১২ সালে উত্তরার একটি আইটি প্রতিষ্ঠান থেকে এস ই ও শিখি বর্তমানে এস ই ও নিয়ে কাজ করছি মার্কেট প্লেস ও  লোকাল মার্কেটে।

২।  কবে থেকে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করেছিলেন? সাধারণত কি কাজ করেন?

সাদিমঃ মূলত ২০১২ সাল থেকেই আমি ফ্রিল্যান্সিং করছি । আর বর্তমানে ক্রিয়েটিভ আইটি থেকে এস ই ও শিখে তা নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি। বর্তমানে  atnewsbd.com এ একজন অনলাইন মার্কেটার হিসেবে কাজ করছি।

৩। ফ্রিল্যান্সিং এ কাজ শিখেছিলেন কিভাবে?

সাদিমঃ ছোট বেলা থেকেই কম্পিউটারের প্রতি আলাদা একটি দুর্বলতা ছিল।  তখন পত্রিকার বিভিন্ন আর্টিকেলগুলো কেটে যত্ন করে রেখে দিতাম।  যখন এইচ,এস,সি শেষ করলাম তখন মাথায় ঢুকল কিছু একটি করতে হবে । তখন জাতীয় যুব পতিষ্ঠান থেকে কাজ শিখে কিছু করার চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু পারি নাই। অবশেষে ২০১১ সালে একটি প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রাফিক্স শিখি এবং অল্প কিছু আয় ও করে ছিলাম লোকাল মার্কেটে কাজ করে ,তবে শেখানে থেমে না থেকে এস ই ও শিখি উত্তরার একটি প্রতিষ্টান থেকে। সেটাই ছিল মূলত আমার ফ্রিল্যান্সিং এর হাতে খড়ি।

৪। কোন মার্কেটপ্লসেে কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দবোধ করেন? কেন?

সাদিমঃ যদিও ওডেস্ক এ কাজ করতে সবার মত আমার ও ভাল লাগে তবে ডিজিটাল ফোরাম থেকে কাজ গুলো করতেই আমি স্বাচ্ছন্দবোধ করি।কারন হিসেবে বলা যায় সেখান থেকে কাজ পাওয়া টা মোটামুটি সহজ আর রেট টা ও ভাল দেয়।

৫। ফ্রিল্যান্সিং এর  কাজে প্রথমবার কত পেমেন্ট পেয়েছিলেন? কাজ কি ছিল ? সেই টাকা দিয়ে কি করেছিলেন?

সাদিমঃ সত্যিকার অর্থে আমার প্রথম কাজের কোন পেমেন্ট পাই নাই । তারপরও আমার প্রথম কাজের পেমেন্ট ছিল ৭০ ডলার যা ডিজিটাল ফোরাম থেকে পেয়েছিলাম।
কাজ টা ছিল ফোরাম পোস্টিং ও আর্টিকেল মার্কেটিং এর কাজ । টাকাটা কিছু করি নাই। আম্মার হাতে তুলে দিয়েছি  । মনে হয় ওই টাকাটা আম্মা এখন ও যত্ন করে রেখে দিয়েছে।

৬। ফ্রিল্যান্সিং থেকে  আয় করা পেমেন্ট কিভাবে উত্তোলন করেন?

সাদিমঃ যেহেতু ওডেস্ক এর পেমেন্ট সরাসরি বাংলাদেশ এর যে কোন ব্যাংকে নিয়ে আসা যায় তাই ব্যাংকে ই নিয়ে আসি।আর অন্য সাইটের পেমেন্ট আমার এক বড় ভাই এর পেপ্যাল এ নিয়ে আসতে হয়।

৭। ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?

সাদিমঃ আপাতত কোন পরিকল্পনা নাই তবে ভবিষ্যতে একজন উদ্যোক্তা হওয়ার ইচ্ছা আছে মনের কোনে।

৮। এখন পর্যন্ত ফ্রিল্যান্সিং থেকে আনুমানিক কি পরিমান আয় করেছেন?

সাদিমঃ এই প্রশ্নের উওর টা খুব কঠিন । কত করেছি তা বলতে পারবো না তবে করেছি মনে হয় লাখ কয়েক টাকা।

৯। ফ্রিল্যান্সিং এর  কাজে আপনি দিনে কত ঘন্টা ব্যয় করেন? কোন সময়টিতে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন?

সাদিমঃ যেহেতু চাকুরী করি সেহেতু দিনে সময় দিতে পারি না । তাই রাত এ কাজ করতেই ভাল লাগে। আর রাতে বর্তমানে আমি সর্ব্বোচ্চ ৪ ঘন্টা সময় দেই আমার কাজে।

১০। ফ্রিল্যান্সিং এ কাজ করতে আগ্রহীদরে সফল হওয়ার পথে অন্তরায় কি বলে মনে করেন?

সাদিমঃ আমি যদি ভুল না বলি তাহলে একটাই কথা সেটা হচ্ছে তাদের ধৈর্য খুবই কম । অনেকেই কাজ শিখেছে কিন্তু সেটা মার্কেট প্লেসে এপ্লাই না করতে পেরে আয় করতে না পেরে কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছে তাই তারা সফল ও হতে পারছে না।তাই ফ্রিল্যান্সিংয়ে সফল হতে হলে ধৈর্র্য লাগবেই।

১১। অনলাইনে আয় করতে হলে কি কি প্রস্তুতি নিতে হবে বলে মনে করেন?

সাদিমঃ আয় করার আগে তো একটি কাজ শিখতে হবে আর সে কাজ টা কি হবে সেটা নিজের মনকে প্রশ্ন করে নিজেকে ই যেনে নিতে হবে। তবেই সে অনলাইনে কাজ করার যোগ্য হবে।কাজ শিখে তা এপ্লাই করতে হবে।

১২। বাংলাদেশের  যারা অনলাইনে আয় করতে ইচ্ছুক, তাদের জন্য আপনার পরার্মশটি জানান।

সাদিমঃ প্রথমত আমার কথা একটি সেটা হচ্ছে আপনি যে কাজটি পারেন সেটা নিয়ে এগিয়ে যান অন্যজন কি পারে সেদিকে দৃষ্টি না দিয়ে নিজের স্কিল বাড়ান । বর্তমানে অনলাইনে যে সব কাজ পাওয়া যায় তা নিয়ে একটি সার্ভে করুন তার পর ওই কাজটি শিখতে যে কোন একটি ভাল প্রতিষ্ঠানে  ভর্তি হয়ে নিজেকে একজন যোগ্য হিসেবে গড়ে তুলুন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস এর জন্য।  তাহলেই সফলতা ধরা দিবে আপনার জীবনে।

জেনেসিসব্লগসের নিয়মিত আয়োজনের উদ্দেশ্য নতুন যারা ফ্রিল্যান্সিংয়ের করছেন, তাদেরকে সবার সাথে পরিচয় করে দেওয়া। যারা ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে আগ্রহী, তারা  এ গল্পগুলো পড়ে অনুপ্রাণিত হলেই স্বার্থক হবে আমাদের এ আয়োজন। নতুন কোন ফ্রিল্যান্সার তাদের সাক্ষাৎকার প্রকাশ করতে চাইলে যোগাযোগ করার জন্য লিংকঃ  আফরোজা সুলতানা