ফ্রিল্যান্সিংয়ে নতুন কিন্তু সফলদের আড্ডা (অতিথিঃ মামুন হোসেন)

টিউন করেছেন admin | January 10, 2015 03:22 | পোস্টটি 1,100 বার দেখা হয়েছে

ফ্রিল্যান্সিংয়ে নতুন কিন্তু সফলদের আড্ডা (অতিথিঃ মামুন হোসেন)


মোঃ মামুন হোসেন অনলাইনে কাজের জন্য বেছে নিয়েছেন গ্রাফিক ডিজাইন সেক্টরকে। এখন পযন্ত আয় করেছেন দেড় লাখ টাকা। নিজেকে ভবিষ্যতের জন্য আরও প্রস্তুত করছেন। কারণ স্বপ্ন দেখেন মাসে ১লাখ টাকা করে আয় করার। freelancer.com এবং fiverr.com  এ দুটো মার্কেটপ্লেসে কাজ করছেন।

Mamun

১। ফ্রিল্যান্সিংয়ে কিভাবে উদুদ্ধ হয়েছিলেন?

মামুনঃ আমার এক ফ্রেন্ড, নাম হচ্ছে আশরাফ। সে আজ থেকে প্রায় ২.৫ বছর আগে ক্রিয়েটিভ আইটিতে গ্রাফিক্স ডিজাইনের ওপর কোর্স করে এবং ভালো একটা প্রতিষ্ঠানে তাদের রেফারেন্সেই চাকরী করে এবং পাশাপাশি আউসোর্সিং করে। তার থেকে দেখে এবং অনলাইনে অনেক কিছু পড়ে আমিও এটা শিখতে আগ্রহী হলাম। অতঃপর আশরাফের রেফারেন্সে ক্রিয়েটিভ আইটির ম্যানেজিং ডিরেক্টর মনির স্যারের সাথে কথা বলে ভর্তি হয়ে যাই এখানে। তার পর দীর্ঘ চার মাস কোর্স করলাম এখানে। পাশাপাশি এসইও গুরু এবং ফেসবুকে ২৪ ঘণ্টা সার্ভিস দেওয়ার টাইগার ইকরাম আমাদের ফ্রি ক্লাস নিয়ে আউটসোর্সিং এর উপর। অতঃপর তার কাছ থেকে শিখলাম কিভাবে ব্লগ তৈরি করে। আজ যে অনলাইনে কাজ করি তার অনেকাংশে রেফারেন্স হিসেব আমার ব্লগের নাম দিয়ে থাকি (আমার ব্লগের নাম- http://todayscreature.blogspot.com) অতঃপর শেষ হলো কোর্স্। শুরু করলাম ফ্রিল্যান্সার ডট কমে কাজ করা। ২ মাস পার হলো কোন উপার্জন হলো না। অতঃপর একদিন জিতলাম একটি কনটেস্টে কিন্তু জানতাম না কিভাবে তা ট্রান্সফার করে। নক করলাম ইকরাম স্যারের দরজায়। স্যার বললেন আগে মিষ্টি নিয়ে আসেন। তারপর শিখলাম কিভাবে ফাইল ট্রান্সফার করে। এভাবে একটা দুটো জিতেতে জিততে আজ কোর্স শেষ হলো ৮ মাস। এই ৮ মাসে ৩৫ টি কনটেস্টে এবং বিড করে ৪টি কাজ পেলাম।উপার্জন করলাম প্রায় ১,৫০,০০০+ টাকা। অথচ শিখতে খরচ হলো মাত্র ২০,০০০ টাকা।

২। ফ্রিল্যান্সিং শুরু করেছেন কবে থেকে এবং কোন কাজ করেন?

মামুনঃ কাজ শুরু করি আজ থেকে প্রায় ৮ মাস আগে অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি ২০১৪তে কাজ করি। আমি সাধারণত লোগো ডিজাইন, বিজনেস কাড ডিজাইন, ফ্লায়ার ডিজাইন, লেটারহেড, পিএসডি টেমপ্লেট করি।বতমানে যে আমাদের সময় ডটকম অনলাইন পত্রিকা আছে এটার টেমপ্লেটটা আমার করা যদিও তার কোডিং টা ঐ ডেভেলপার ভালো ভাবে দিতে পারেনি। ঔ টেমপ্লেটটা আমি আমর ব্লগে দিয়ে রেখেছি চাইলে দেখতে পারেন।

৩। ফ্রিল্যান্সংয়ের কাজ কিভাবে শিখেছিলেন?

মামুনঃ ঢাকার ঐহিত্যবাহী ধানমন্ডি ২৭ নম্বরে অবস্থিত ক্রিয়েটিভ আইট ইনস্টিটিউট (যদিও এখন তা সাইন্সল্যাবের নিকট ল্যাবএইড হসপিটালের বিপরীত পাশে মমতাজ প্লাজার ৪থ তলায় অবস্থিত) থেকে শিখেছি।

৪। ফ্রিল্যান্সিংয়ে ১ম কত পেমেন্ট পেয়েছেন? সে পেমেন্ট দিয়ে কি করেছেন?

মামুনঃ ফ্রিল্যান্সিংয়ে প্রথম যে পেমেন্ট পেয়েছিলাম সেটা ছিল ৩০ ডলার। কাজটি ছিল বিজনেস কাড। এবং আমি এই ডলার যখন ২৫৬ তে পৌছল তখন এক সাথে তখনকার ডলার রেট অনুযায়ি ১৯০০০+ উঠিয়েছিলাম এবং তা আমার মা-বাবা কে নিয়ে কিছু উপভোগ করেছি।

৫। ফ্রিল্যান্সিংয়ের পেমেন্ট কিভাবে উত্তোলন করেন?

মামুনঃ ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় করা পেমেন্ট আমি পেপাল দিয়ে উত্তোলন করি।

৬। ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?

মামুনঃ ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আমি আগামী পরিকল্পনা হলো প্রত্যেক মাসে অন্তত ১,০০,০০০ টাকা আয় করা।

৭। ফ্রিল্যান্সিং কাজে প্রতিদিন কত ঘন্টা ব্যয় করেন? কোন সময়টাতে কাজ করতে পছন্দ করেন?

মামুনঃ ফ্রিল্যান্সিংয়ে আমি প্রতিদিন গড়ে ১.৫ ঘণ্টা ব্যয় করি।(যেহেতু আমি দুটো জব করি তাই ওরকম কোনো টাইম পাইনা, সপ্তাহে দুই দিন করি আর অন্যান্য দিন টুকিটাকি করি)

কাজের জন্য রাত আমার কাছে বেস্ট। বিশেষ করে রাত ৯-১২ টা পযন্ত।

৮। ফ্রিল্যান্সিংয়ে সফল হওয়ার ব্যাপারে আপনার পরামর্শ হিসেবে কি বলবেন?

মামুনঃ ফ্রিল্যান্সিংয় আগ্রহীদের সফল হওয়ার অন্তরায় হিসেবে আমি বলব আত্মবিশ্বাস এবং ধৈয্য এই দুই জিনিস যার মাঝে নেই সে সফল হতে পারবে না। এর চেয়ে বড় একটা ব্যাপার হলো কাজ শিখার ভালো কোন মাধ্যম না পাওয়া। ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি কাজ শিখার জন্য ঢাকার মধ্যে আমাদের মতো ছেলে জন্যে ক্রিয়েটিভ আইটি ই বেস্ট।

৯। অনলাইনে আয় করতে হলে কি কি প্রস্তুতি নিতে হবে বলে মনে করেন?

মামুনঃ অনলাইনে আয় করতে হলে প্রথমে আপনার মানসিক প্রস্তুতি নিতে হবে।যে আপনি কতটুকু সময় দিবেন। দ্বিতীয় হচ্ছে আপনার কনসেপ্ট ক্লিয়ার রাখতে হবে। যেমন ক্লায়েন্ট আপনাকে রিকয়ারমেন্ট দিয়ে দিল ঐ রিকয়ারমেন্ট অনুযায়ী বা তার চাহিদা অনুযায়ী কতটুকু ইউনিক কাজ আপনি করতে পারলেন।

১০। বাংলাদেশের যারা অনলাইনে আয় করতে ইচ্ছুক, তাদের জন্য আপনার পরামর্শটি জানান ।

মামুনঃ বাংলাদেশে যারা অনলাইনে আয় করতে চায় আমি মনে করি বতমান বাংলাদেশে বিভিন্ন প্রশিক্ষণ সেন্টারের নামে চলছে ব্যবসা তাই এদের কাছ থেকে যেমন ভালো কিছু আশা করা যায় না ঠিক তেমনি আপনার সময় ও টাকা দুটোই ব্যয় হবে। তাই আমার জানা মতে এবং আমি এই পযন্ত অনেককে ক্রিয়েটিভ আইটিতে ভর্তি করিয়ে দিয়েছি তার এখন অনেকেই তাদের কোর্স শেষ হওয়ার আগেই ইনকাম করতে শুরু করেছে। তার মধ্যে আমার মামাতো বোনও একজন আছে। তার ফ্রিল্যান্সার ডটকমে আইডি হচ্ছ citshanta ।

  • http://soitzone.com Faowazze Nobi

    আসসালামু আলাইকুম, ভাই আপনার ব্লগ এ তো কিছু দেওয়া নাই।

    • Mamun

      Boss blog er kaj cholte se to tai akhono kicu upload dite pari nai.

  • Asad Moral Pir

    ভাল লাগল, সব সময়ই অনুপ্রানিত হই