ফ্রিল্যান্সিংয়ে নতুন কিন্তু সফলদের আড্ডা (অতিথিঃ সোহেল রানা)

টিউন করেছেন admin | December 26, 2014 01:04 | পোস্টটি 2,518 বার দেখা হয়েছে

সোহেল রানা আজ থেকে ৩বছর আগে হতে অল্পস্বল্প কাজ শুরু করলেও ভালভাবে আয় শুরু করেছেন গত ১বছর ধরে। নেটওয়ার্কিং ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের উপর পড়ালেখা শেষ করলেও বর্তমানে পুরোদস্তুর আইটি ফ্রিল্যান্সার।এখন পযন্ত আয় করেছেন ৪-৫ হাজার ডলারের মত। মূলত ওডেস্কে ইমেইল মার্কেটিং এবং অ্যাফিলিয়েশন সম্পর্কিত কাজ করেন। তার নিজের জেলা শহরে ব্রাহ্মণবাড়ীয়াতে ভবিষ্যতে একটি আইটি ফার্ম খোলার স্বপ্ন দেখেন।

sohel

১। ফ্রিল্যান্সিংয়ে কিভাবে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলেন?

সোহেল রানাঃ ফ্রিল্যান্সিংয়ে উদ্বুদ্ধ হই আজ হতে ৩ বছর আগে অনলাইন এ আমার ফ্রিল্যান্সিং আইডল ইকরাম ভাইয়ের কিছু আর্টিকেল পড়ে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলাম ।

২। কবে থেকে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করেছিলেন? সাধারণত কি কাজ করেন?

সোহেল রানাঃ নামে মাত্র ফ্রিল্যান্সিং শুরু ইকরাম ভাইয়র পোষ্ট দেখেই তবে সত্যিকারের ফ্রিল্যান্সিং এই বছরের শুরুর দিক হতে হাইটেক পার্কের অধীনে ক্রিয়েটিভ আইটির প্রশিক্ষন নিয়ে .. । মূলত আমি একজন নেটওয়ার্ক ইণ্জিনিয়ার হলেও মার্কেটপ্লেসে এবং মার্কেটপ্লেসের বাইরে ইমেইল মার্কেটিং ইমেইল সার্ভার কনফিগারেশন এবং অ্যফিলিয়েসন এর কাজ করে থাকি….

৩। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ শিখেছিলেন কিভাবে?

সোহেল রানাঃ প্রথমে গুগল আর ইউটিউব, পরবর্তীতে ক্রিয়েটিভ আইটির ইমেইল মার্কেটিংয়ের জনপ্রিয় টিউটোরিয়ালের লেখক হাবীবুর রহমান দীপু ভাইয়ের ইমেইল মার্কেটিংয়ের ক্লাস করে……

৪। কোন মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দবোধ করেন? কেন?

সোহেল রানাঃ ইল্যান্স- ওডেস্ক, তবে ওডেস্কেই কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দবোধ করি কারণ ওডেস্কে থেকেই আমার শুরু এবং এখানেই কাজ পাওয়া তুলনামূলক সহজ মনে হয় আমার কাছে।

৫। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজে প্রথমবার কত পেমেন্ট পেয়েছিলেন? কাজ কি ছিল? সেই টাকা দিয়ে কি করেছিলেন?

সোহেল রানাঃ প্রথম যে কাজটা পাই …. মনে পড়েছে ৫০ ডলারের একটা কাজ পেয়েছিলাম আর সেই টাকা এখনো রেখে দিয়েছি ।

৬। ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় করা পেমেন্ট কিভাবে উত্তোলন করেন?

সোহেল রানাঃ আমার ডাচ বাংলা ব্যাংকের একাউন্টের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করে থাকি ।

৭। ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?

সোহেল রানাঃ ভবিষ্যতে একজন সফল উদ্যোক্তা হওয়ার পরিকল্পনা আছে। ইতিমধ্যে ১০ সদস্যের একটি টিম নিয়ে কাজ করতেছি । আর একটা স্বপ্ন আছে… আমার জেলা শহর ব্রাহ্মণবাড়ীয়াতে আইটি ফার্ম স্থাপন করে আমার এলাকার তরুন ছেলে মেয়েদেরকে ফ্রিল্যান্সিং দক্ষ করে গড়ে তুলতে।

৮। এখন পযন্ত ফ্রিল্যান্সিং থেকে আনুমানিক কি পরিমাণ আয় করেছেন?

সোহেল রানাঃ এখন পযন্ত ফ্রিল্যান্সিং থেকে কি পরিমাণ আয় করেছি তা হিসাব করা বেশ কষ্টকর ব্যাপার। তবে আনুমানিক বললে তা ৪- ৫ হাজার ডলারের উপরেই হবে।

৯। আপনার আজকের এ অবস্থানের পিছনে কার কার অবদান রয়েছে বলে মনে করেন?

সোহেল রানাঃ আমার এ পথচলায় আমি প্রথমে আমার বাবা-মা, তারপরেই ক্রিয়েটিভ আইটির ম্যানেজিং ডিরেক্টর মনির হোসেন স্যার, আমার ফ্রিল্যান্সিং আইডল মোঃ ইকরাম & দিপু ভাই কে। যারা প্রতিনিয়ত আমাকে হেল্প করেন এবং গুরুত্বপূর্ন পরামর্শ দেন আর যাদের সহযোগীতায় আজ আমি একজন সফল ফ্রিল্যান্সার ।

১০। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজে আপনি দিনে কত ঘন্টা ব্যয় করেন? কোন সময়টিতে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন?

সোহেল রানাঃ দিনে তো প্রায় ১২-১৪ ঘন্টা কাজ করি.. তবে রাতেই কাজ করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করি…

১১। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ করতে আগ্রহীদের সফল হওয়ার পথে অন্তরায় কি বলে মনে করেন?

সোহেল রানাঃ সঠিক গাইডলাইন এর জন্যে কাঙ্ক্ষিত দক্ষতা অর্জন করতে না পারাই সফল হওয়ার পথে প্রধান অন্তরায়।

১২। অনলাইনে আয় করতে হলে কি কি প্রস্তুতি নিতে হবে বলে মনে করেন?

সোহেল রানাঃ সবার আগে অবশ্যই ইংরেজিতে ভালো দক্ষতা আনতে হবে। ইংরেজিতে ভালো দখল না থাকলে ফ্রিল্যান্সিংয়ে আসা উচিত না। আর যে সেক্টরে আপনি আসতে চাচ্ছেন, তা আপনার জন্য কতোটা উপযুক্ত সেটা অবশ্যই নিশ্চিত হয়ে নেবেন। যখন আপনি নিশ্চিত এবং অনেক খানি পথ পাড়ি দিয়েছেন, তখন দয়া করে কেউ পিছনে ফিরে আসবেন না। কাঙ্ক্ষিত পথের সন্ধান না পেলে প্রয়োজনে অভিজ্ঞদের সাহায্য নিন। আশা করি সফলতা একদিন হবেনই।

১৩। বাংলাদেশের যারা অনলাইনে আয় করতে ইচ্ছুক, তাদের জন্য আপনার পরামর্শটি জানান।

সোহেল রানাঃ আপনি যেই কাজ এর মাধ্যমে অনলাইনে আয় করতে চান ঐ কাজটি অনেক ভাল করে শিখুন আর কাজ শিখতে চাইলে একটা সঠিক গাইডলাইনের গুরুত্ব অপরিসীম তাই বলব একটি ভালো প্রতিষ্ঠানে ট্রেনিং নিতে পারেন.. আর ভালো প্রতিষ্ঠানের কথা বললে আমার চোখে ক্রিয়েটিভ আইটি এখন দেশ সেরা প্রতিষ্ঠান ।ক্রিয়েটিভ আইটির গাইডলাইনে আমার মতো আপনিও খুজে পেতে পারেন আপনার লাইফের সত্যিকারের দিকনির্দেশনা।