ক্রিয়েটিভ আইটির ইতিবাচক উদ্যোগ “১০০ নারীর স্কলারশিপ” এবং আমি……………

টিউন করেছেন Afroza Yasmin | December 24, 2014 03:16 | পোস্টটি 771 বার দেখা হয়েছে

আমরা যতই উচ্চস্বরে চিৎকার করে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই যে , বর্তমানে নারি স্বাধীনতার স্বর্ণযুগ চলছে……কিন্তু আসলেই কি সেই সময় এসেছে? এসেছে প্রকৃত স্বাধীনতা ? বদলেছে আমাদের ধ্যান ধারনা নারিদের সম্পর্কে ? আমি যদি বলি “না” তবে অনেক তর্কের শুরু হবে। যারা তর্কের সূচনা করবেন তারা সহ আমরা সবাই জানি ওই সনাতন মানসিকতা বদলায়নি এক রত্তি। তবে হ্যাঁ পাল্টেছে বলার ধরন এবং জীবনের পরিস্থিতি। ঘরের বাইরে যেয়ে কাজ করবে মেয়েরা,তা জেন মানাই যায়না। তারপরও মেয়েরা নিজের কারিয়ার তৈরিকরে হতে চায় প্রতিষ্ঠিত। এই প্রস্থিতিতে ঘরে বসেই কিভাবে মেয়েরা হতে পারে প্রতিষ্ঠিত সেই সোনালি দিক উন্মোচন করেছে ক্রিয়েটিভ আইটি।

ক্রিয়েটিভ আইটি যে সুযোগ গুলো দিচ্ছে………

  • প্রতিটি বাক্তির স্বাবলম্বী হওয়ার সুযোগ।
  • সফল হওয়ার সঠিক দিকনির্দেশনা।
  • ক্লাস শেষেও আজীবন সহযোগিতা পাওয়ার বিশাল সুযোগ।
  • নারীদের ঘরে বসে আয় করার বাড়তি সুযোগ।
  • যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরির ব্যবস্থা।

 নারীর স্কলারশিপঃ

আইটি প্রফেশনের বৈপ্লবিক পদযাত্রায় মেয়েদের সুযোগ করে দিয়েছে ক্রিয়েটিভ আইটির ১০০ নারীর স্কলারশিপের মাধ্যমে। পত্রিকার একটা বিজ্ঞাপন পাল্টে দিয়েছে আমার জীবনের চিত্র। ১০০ নারীর স্কলারশিপের বিজ্ঞাপনটি হাতে পেলাম খালেদা আপার মাধ্যমে। আপা বললেন চলো দুজনেই অ্যাপ্লাই করি। অনলাইনে ফরম পূরনের মাধ্যমে অ্যাপ্লাই করলাম। উত্তীর্ণ হলাম পরীক্ষার দিয়ে।

শাহবাগ যাদুঘর অডিটোরিয়ামে স্কলারশিপ প্রদানের বিশাল আয়োজনঃ

অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে ভীষণ অবাক হলাম ক্রিয়েটিভ আইটির আয়োজন দেখে। মেইন গেইট থেকে শুরু করে অডিটোরিয়ামের গেইট পর্যন্ত জায়গায় জায়গায় হাসি মুখে দাড়িয়ে আছে প্রনবন্ত সবুজ তরুন তরুনিরা। কোন পথে যেয়ে অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহন করতে হবে তার দিক নির্দেশনা দিচ্ছিল তারা। চারিদিকে ছিল উৎসব মুখর পরিবেশ।

 স্কলারশিপ পাওয়ার সেই অনুভূতিঃ

প্রতিটি মানুষ জীবনের বিভিন্ন পর্যায়ে কিছু মূল্যবান স্মৃতি নিয়ে বেঁচে থাকে। সেই স্মৃতির সংখ্যা খুব বেশি হয়না, হয় কম কিন্তু অনভূতির গভীরতা থাকে অনেক বেশী। আমি এম এসসি তে শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করেছি সেই স্মৃতি আমার অনেক গৌরবের । সবচাইতে প্রিয় স্মৃতি হল কেয়ার হসপিটালের ওটিতে আমার ছেলের চেহারাটা যখন প্রথম দেখলাম।আমার জীবনের আলোকিত স্মৃতি হচ্চে সেই মুহূর্তটা ঠিক যে মুহূর্তে শাহবাগ অডিটোরিয়ামে গ্রাফিক্সেরস্কলারশিপের জন্য আমার নামটা ডাকা হলো। ভীষণ ভালো লাগার সেই মুহূর্ত। হেঁটে হেঁটে যখন আমি স্কলারশিপের কার্ডটা নেয়ার জন্য মঞ্চের দিকে যাচ্ছিলাম মনে হচ্ছিলো আমি আলোর দিকে যাচ্ছি , সম্ভবনা আর সমৃদ্ধির দিকে যাচ্ছি।

মনির স্যার হচ্চেন আলোর পথের দিশারিঃ

m copy

স্কলারশিপের কার্ডটা আমি পেয়েছিলাম মণির স্যারের হাত থেকে, তখন মনে হয়েছিলো আসল মানুষের হাত থেকেই কার্ডটা পেলাম। পরবর্তীতে ক্লাশ করার সময় শুধু একটা কথাই মনে হতো বাচ্চাদের যেমন হাত ধরে হাটা শিখানো হয় মণির স্যারও ঠিক তেমনিভাবে আলোর পথে হাটা শিখাচ্ছেন। তাঁর দক্ষ দিক নির্দেশনায় ক্রিয়েটিভ আইটি পরিচালিত হচ্ছে । মনির স্যারকে আল্লাহ্‌ পাক একটা হাসি দিয়েছেন… আল্লাহ্‌ পাকই জানেনে সেই হাসি আল্লাহ্‌ কি দিয়ে বানিয়েছেন। সেই হাসি দেখলে আনন্দও লাগে আবার ভয়ও লাগে…………অথচ একই মানুষের একই হাসি। একেক সময় মনে হয় মনির স্যারের হাসিতে আল্লাহ্‌ পাক চাঁদের আলোর সাথে একাটু আগুনের আলো মিশিয়ে দিয়েছেন নইলে একই হাসি এমন ঠাণ্ডা-গরম হয় কিভাবে?

ম্যাজিক ম্যান ইকরাম ভাইঃ

ekram vai

ছোটবেলায় গল্পের বইতে আমরা সবাই জাদুর কাঠির কথা পড়েছি । সেই জাদুর কাঠির ছোঁয়ায় সব অসম্ভব কে সম্ভব করা যেত। ঠিক তেমনি সব অসম্ভব কে সম্ভব করার প্যাকেজ হচ্চেন ইকরাম ভাই। ইকরাম ভাই হচ্চেন এমন একজন মানুষ যার কাছে অসম্ভব বলে কিছু নেই। যে কোন সমস্যা ইকরাম ভাই সমাধান করেন ম্যাজিক ম্যানেরমত । বাংলাদেশে চাকরির এই দুরাবস্থায় একরাম ভাই যার যার মেধা ও দক্ষতা অনুযায়ী চাকরির বাবস্থা করে দিচ্ছেন। ক্রিয়েটিভ আইটির সম্ভবনাময় নতুন নতুন অফারগুলো আমরা ইকরাম ভাইয়ের মাধ্যমেই জানতেপারি। ফেইসবুকে ইকরাম ভাই যে লেখাগুলো পোস্ট করেন তা প্রফেশনাল লাইফে অনেক বেশী মূল্যবান । তাঁর লেখায়থাকে নতুন নতুন তথ্য ও সুযোগের কথা।

ক্রিয়েটিভ আইটির অত্যাধুনিক ল্যাব এবং ক্লাশরুমঃ

ক্রিয়েটিভ আইটির লাবগুলোতে সব ধরনের আধুনিক সুবিধাগুলো রয়েছে। ক্লাশ করার সময় কখনই কোন অসুবিধায় পরতে হয়নি। ক্লাশ রুমে বসার বাবস্থাও অনেক ভালো।

শিক্ষকদের সহযোগী মনভাবঃ

teachers cit copy

ক্রিয়েটিভ আইটির শিক্ষকদের সহযোগী মনভাব অতুলনিয়। আমি মনির স্যার, আজাদ স্যার, উজ্জ্বল স্যার আর ইকরাম স্যারের ক্লাশ করার সুযোগ পেয়েছি। ক্লাশ ছাড়াও যে কোন সময়ে যে কোন সমস্যা নিয়ে হাজির হলে শিক্ষকরা সবসময়ই সহযোগিতা করেন। আরেকটা কথা না বল্লেই নয় যে ক্রিয়েটিভ আইটির সবার সহযোগী মনভাব এতো বেশী যে মাঝে মাঝে বেশ অবাক লাগে।

অগনিত ফ্রি ক্লাশঃ

সববাণিজ্যিকপ্রতিষ্ঠানগুলোভর্তিকরারআগে১/২টাফ্রিক্লাশদিয়েস্টুডেন্টভর্তিকরারপররেগুলারক্লাশেইঠিকমতসহযোগিতাকরাহয়নাআরফ্রিক্লাশতোঅনেকদূরেরকথা।ক্রিয়েটিভআইটিইহচ্ছেএকমাত্রপ্রতিষ্ঠানযেখানে ভর্তির আগে ও পরে প্রচুর ফ্রি ক্লাশ স্টুডেন্টদের দেয়া হয়।

স্কলারশিপের কোর্স শেষে সার্টিফিকেট প্রদান অনুষ্ঠানঃ

pic final copy

গ্রাফিক্স ও ওয়েব ডিজাইনে যারা স্কলারশিপ পেয়ছিলেন তাদের কোর্স শেষে, ১৩ই ডিসেম্বর ২০১৪ তারিখে সার্টিফিকেট প্রদান করা হয় শাহবাগ যাদুঘর অডিটোরিয়ামে। বিশাল এই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, তথ্য ও প্রযুক্তি সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার, বাংলাদেশ হাইটেক পার্কের প্রকল্প পরিচালক হোসনে আরা বেগম, ইল্যান্স- ওডেস্ক বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সাইদুর মামুন, নারি উদ্যোক্তা ইমরেজিনা খান এবং আরও গন্য মান্য ব্যাক্তি।

ক্রিয়েটিভ আইটির লক্ষ্যঃ

ক্রিয়েটিভআইটির মূল লক্ষ্য হল একটা মানুষকে স্বাবলম্বী হিসেবে তৈরি করা। আর এরজন্য যার যেমন সাহায্য দরকার তাকে ঠিক সেইভাবে সাহায্য দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া । আবার এমন অনেকে আছেন যে জীবনে সফল হতে চায় কিন্তু জানে না কোন পথে সে আগে বাড়বে এমন ব্যাক্তিদের ক্রিয়েটিভ আইটি দেয় সঠিক পথের দিক নির্দেশনা। আমি মনে করি ক্রিয়েটিভআইটি বাংলাদেশের জন্য আশীর্বাদ।

ক্রিয়েটিভআইটির মাধ্যমে শিখিত বেকারদের চাকরির ব্যবস্থা হচ্ছে যা সত্যিই প্রশংসার যোগ্য।

  • Asaduzzaman Aktel

    আমি নিঃসন্দেহে বলতে পারি যদি আইটিতে ক্যারিয়ার গড়তে চান তাহলে ক্রিয়েটিভ আইটিই হোক আপনার একমাত্র প্ল্যাটফর্ম

  • Salma Begum

    আফরোজা তোমাকে অনেক ধন্যবাদ এমন একটা লেখা জন্য। আমি যা বলতে চেয়েসিলাম সব যেন তুমি সুন্দর করে গুসিয়ে বলে দিলে । তোমার জন্য শুভ কামনা রইল।

  • Mas Shalik

    নিজের বুধধিমত্তা আর একটি প্রতিষঠান যৌথভাবে কিকরে একটি জীবনে সফলতা এনে দিেত পারে, লিখাটায় তাই বুঝা যায়। অেনক সুনদর হয়েছে।। অেনক অভিননদন !! আগামী দিনের জন্য রইল শুভেচছা!!!!

  • Nuzhat Yeasmin

    নারীদের উন্নতিকল্পে অনেকেই সদিচ্ছা পোষণ করেন ঠিক ই! কিন্তু সেই সদিচ্ছার বাস্তবরুপ দিয়েছে “ক্রিয়েটিভ আইটি”। ক্রিয়েটিভ আইটি কে তাই জানাচ্ছি অশেষ ধন্যবাদ। আর এই সহজ লেখনিটি পড়লে ক্রিয়েটিভ আইটি সম্পর্কে পাওয়া যায় একটি স্বচ্ছ ধারণা। তাই আফরোজা আপু তোমাকেও অনেক ধন্যবাদ এমন একটি সহজ-সুন্দর লেখার জন্য। :)

  • rafiul hasan

    বর্তমান সময়ে আপনার লিখা হাজারো নারী মনে বেঁচে থাকার সাহস সঞ্চার করবে । আপনার লিখনিতে স্পষ্ট বুঝা যায় যে, বুদ্ধিমত্তা আর একটি ভালো প্রতিষ্ঠান কি করে একটি জীবনে সফলতা এনে দিেত পারে ।

    এই রকম আরো লিখা আপনার কাছ থেকে পাবো বলে আমি আশা করি ।