ফ্রিল্যান্সিংয়ে নতুন কিন্তু সফলদের আড্ডা (অতিথিঃ মো: সোয়েব মাহমুদ)

টিউন করেছেন admin | December 21, 2014 11:36 | পোস্টটি 968 বার দেখা হয়েছে

খুলনাতে বসেই অনলাইন হতে নিজে নিজে কাজ শিখে এখন মাসে আয় করছেন ৪০,০০০টাকা হতে ৫০,০০০টাকার মত। আজকের গল্পটা সোয়েব মাহমুদের।  নেভী অফিসার হওয়ার স্বপ্ন ব্যর্থ হওয়ার পর সংসারের হাল ধরার চিন্তা থেকেই অনলাইন হতে আয়ের ঝোক তৈরি হয়। এসইও সম্পর্কিত কাজ করেন খুলনাতে বসেই। ফ্রিল্যান্সিংকেই পেশা হিসেবে গ্রহণ করার পরিকল্পনা রয়েছে। তার সাথে আড্ডাতে উঠে এসেছে অনেক তথ্য।

shoaib_mahmud

১।  ফ্রিল্যান্সিংয়ে কিভাবে উদ্বুদ্ধ হয়েছিলেন?

সোয়েবঃ ছোটকাল থেকে ইচ্ছা ছিল নেভী অফিসার ক্যাডেট হওয়ার । ৩ বার চেষ্টা ও করেছি। একেবারে শেষ পর্যন্ত ও টিকেসিলাম। কিন্তু ভাগ্যে ছিল না। এদিকে আমার আব্বু ও নেভী থেকে রিটায়ার্ড করেছে। বাড়ির বড় ছেলে হওয়ার কারনে আমার উপর সংসারের দায়িত্ব বেড়ে গেলো। তখন মাথায় আসলো কিছু একটা করতে হবে। বেকারত্বের বেড়াজালে নিজের মুক্তি থুজে নেওয়ার চেষ্টা করলাম। তখন কিছু বন্ধুর দেখাদেখি ফ্রিল্যান্সিং শুরু করি।

২।  কবে থেকে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করেছিলেন? সাধারণত কি কাজ করেন?

সোয়েবঃ আমি ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করি। শুরুর দিকে ডাটা এন্ট্রি শুরু করি। এর পর Social Media Marketing করেছি। এখন বর্তমানে SEO করি। Blogging Start করেছি। ভবিষ্যতে Web Development করার ইচ্ছা আছে। WordPress আগেই করা আছে।

৩। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ শিখেছিলেন কিভাবে?

সোয়েবঃ ফ্রিল্যান্সিং এ কাজ শিখেছি নিজে নিজেই কিন্তু কিছু বন্ধুর উপকারের কথা অস্বীকার করছি না। SEO শিখেছি বিপ্লব স্যার এর কাছ থেকে এবং WordPress শিখেছি বন্ধু নাহিয়ান এর কাছ থেকে।

৪। কোন মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দবোধ করেন? কেন?

সোয়েবঃ প্রথম দিকে ১ বছর oDesk এ কাজ করি। তারপর Elance এ প্রবেশ করি। ৩নং Apply এ কাজ পেয়ে যাই। এর পর থেকে Elance এ কাজ করা শুরু। আমি Elance এ কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি। কারন Elance এ লং টার্ম প্রোজেক্ট এর কাজ পাওয়া যায় বেশি। এবং Elance এ কাজ করলে নিজের মধ্যে Professional ভাব আসে (এটা just আমার ব্যক্তিগত মতামত )।

৫। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজে প্রথমবার কত পেমেন্ট পেয়েছিলেন? কাজ কি ছিল? সেই টাকা দিয়ে কি করেছিলেন?

সোয়েবঃ ফ্রিল্যান্সিং এ প্রথমবার একটি ছোট ডাটা এন্ট্রির কাজ করেছিলাম যার রেট ছিল only 1$ । এই Dollar তো আর withdraw দেওয়া যায় না। পরবর্তীতে আর একটি ডাটা এন্ট্রির কাজ করে ২৩$ জমা করে withdraw দি। ওই টাকা দিয়ে নেট বিল দি এবং বাসার জন্য মিষ্টি কিনে নিয়ে আসি। সেই ইনকাম এ যত মজা পেয়েসি এখন ৫০০-৮০০$ monthly ইনকাম এ ও সেই মজা পাইনা।

৬। ফ্রিল্যান্সিং থেকে আয় করা পেমেন্ট কিভাবে উত্তোলন করেন?

সোয়েবঃবর্তমানে Skrill দিয়েই ডলার উত্তোলন করি। এটাই আমি prefer করি।

৭। ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?

সোয়েবঃ ফ্রিল্যান্সিং কে আমি মূল পেশা হিসেবে নিতে চাই। তার জন্য অনলাইনের  সব সেক্টরকে নিজের আয়ত্তে আনার চেষ্টা করছি। ভবিষ্যতে IT Farm দেওয়ার চিন্তা ভাবনা আছে।

৮। এখন পযন্ত ফ্রিল্যান্সিং থেকে আনুমানিক কি পরিমাণ আয় করেছেন?

সোয়েবঃ এ পর্যন্ত আমি odesk এবং Elance এ ১২,৫০০$ + ইনকাম করেছি। যার মানে আমি প্রায় ৯ লাখ ৩৮ হাজার + টাকা ইনকাম করেছি। যার জন্য মহান আল্লাহ এর কাছে শুক্রিয়া আদায় করছি।

৯। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজে আপনি দিনে কত ঘন্টা ব্যয় করেন? কোন সময়টিতে কাজ করতে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন?

সোয়েবঃ ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজে আমি দিনে ৮-১২ ঘন্টা সময় ব্যয় করি। বিশেষ করে রাত এ কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দবোধ করি। তখন ঠাণ্ডা মাথায় কাজ করতে পারি।

১০। ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ করতে আগ্রহীদের সফল হওয়ার পথে অন্তরায় কি বলে মনে করেন?

সোয়েবঃ ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ করতে আগ্রহীদের সফল হওয়ার পথে অন্তরায় হচ্ছে হতাশা। কখন ও হতাশ হবেন না। সব সময় মাথায় রাখবেন মানুষের জীবনে প্রতিনিয়তই পরিবর্তন ঘটে। আজ যে কাজ পারছেন না তা কাল নিশ্চয়ই পারবেন যদি আপনি মন থেকে দৃঢ় সংকল্প করেন। আপনি যদি অনেক অ্যাপ্লাই করেও কাজ না পান তাহলে ভেঙ্গে পরবেন না। খুজে বের করুন আপনার আপ্ল্যিকেশন এ কোথায় সমস্যা। ওই সমস্যা খুজে বের করে সমাধান করুন। সফলতা আসবেই।

১১। অনলাইনে আয় করতে হলে কি কি প্রস্তুতি নিতে হবে বলে মনে করেন?

সোয়েবঃ অনলাইনে আয় করতে হলে প্রথমে আপনার গোল নির্ধারণ করতে হবে যে আপনি অনলাইন এ Professional কাজ করবেন, পার্ট টাইম না। আর আপনার ইংলিশ লেভেল মোটামুটি ভাল হতে হবে যাতে আপনি বায়ার এর কথা সহজে বুঝতে পারেন। তারপর আপনাকে ধৈর্্য  ধরার মানুসিকতা নিজের মধ্যে তৈরি করতে হবে। ধৈর্্যস ছাড়া আপনি অনলাইন এ কাজ করতে পারবেন না। আপনার অনলাইন রিসার্স করার যোগ্যতা তৈরি করতে হবে। সবসময় নতুন কিছু শিখার জন্য উদ্গ্রিব থাকতে হবে।

১২। বাংলাদেশের যারা অনলাইনে আয় করতে ইচ্ছুক, তাদের জন্য আপনার পরামর্শটি জানান।

সোয়েবঃ যারা অনলাইনে আয় করতে ইচ্ছুক তাদের জন্য আমার প্রথম পরামর্শ , অনলাইন সম্পর্কে ভালভাবে জ্ঞান না নিয়ে অনলাইনে আয় করার কথা চিন্তা করবেন না। কম্পিউটার সম্পর্কে আপনার কমপক্ষে ৩ মাস এর অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। না থাকলে আপনি কোন বন্ধু অথবা কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টার থেকে শিখে নিন। আর আপনি যে ক্যাটেগরির কাজ করবেন তা ভাল করে শিখে নিন যাতে আপনি মার্কেট প্লেস এ ভাল ভাল কাজ করতে পারেন।

জেনেসিসব্লগসের নিয়মিত আয়োজনের উদ্দেশ্য নতুন যারা ফ্রিল্যান্সিংয়ের করছেন, তাদেরকে সবার সাথে পরিচয় করে দেওয়া। যারা ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে আগ্রহী, তারা  এ গল্পগুলো পড়ে অনুপ্রাণিত হলেই স্বার্থক হবে আমাদের এ আয়োজন। নতুন কোন ফ্রিল্যান্সার তাদের সাক্ষাৎকার প্রকাশ করতে চাইলে যোগাযোগ করার জন্য লিংক : মোঃ ইকরাম

  • ziaur

    nice

  • Shoaib Mahmud

    Thx @Ekram vai :-)

  • samar das

    He is very honest. When I fell problem He help me. God bless you.