ক্যারিয়ার বিষয়ক প্রশ্ন উত্তর নিয়ে ধারাবাহিক (পর্ব- ১)

ekram

বর্তমানে অনলাইন মার্কেটার হিসেবে কাজ করছি, ওয়েবডিজাইন এবং গ্রাফিকসটাও নিজের নেশা। লার্নিংএন্ড আর্নিং প্রজেক্টের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগেরপ্রধান সমন্বয়ক হিসেবে দায়িত্বরত। জেনেসিসব্লগসের প্রতিষ্ঠাতা অ্যাডমিন ।
টিউন করেছেন ekram | February 18, 2016 03:54 | পোস্টটি 2,574 বার দেখা হয়েছে

প্রতিদিন ফেসবুকের ইনবক্সে প্রচুর প্রশ্ন পেয়ে থাকি। সেই প্রশ্নগুলোর উত্তরগুলো নিয়ে এখন থেকে ধারাবাহিক পোস্ট লিখব। অনেকের অজানা অনেক উত্তরগুলো পেয়ে যাবেন এ ধারাবাহিকে। আশা করি, সবার জন্য অনেক কাজে লাগবে। চেষ্টা থাকে প্রতি বৃহস্পতি কিংবা শুক্রবার প্রকাশ করার।

career guide

১) এসইও শিখতে কি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট শিখা লাগে?

উত্তর: এসইও শিখার  জন্য ওয়েবডিজাইন শিখার প্রয়োজন হয়না। তবে ওয়ার্ডপ্রেসের উপর বেসিক জ্ঞান এবং html কোডিংয়ের উপর বেসিক কিছু জানা থাকলে অনেক ক্ষেত্রেই অন্যের সহযোগিতা ছাড়াই অনেক কিছু সমাধান করা সম্ভব হয়। তবে যেটুকু জানতে হবে, সেটুকু ১-২দিন সময় দিলেই জেনে নেওয়া সম্ভব। না জানা থাকলেও খুব বেশি সমস্যা হবেনা।

২) ক্লিপিং পাথ কি?

উত্তর: ইমেজ এডিট সম্পর্কিত কাজগুলোকে ক্লিপিং পাথ বলে। কোন ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড দুর করা, ছবির রং ঠিক করা, রং পরিবর্তন করাসহ ইমেজ সম্পর্কিত বহু কাজকে একভাষাতে ক্লিপিং পাথের কাজ বলে। ফটোশপ সফটওয়্যারের কয়েকটি টুলসের মাধ্যমে এ কাজগুলো করতে হয়।

৩) ফ্রিল্যান্সিংকে ফুলটাইম ক্যারিয়ার হিসেবে নেওয়া সম্ভব?

উত্তর: অবশ্যই ফুলটাইম ক্যারিয়ার হিসেবে নেওয়া সম্ভব। সেক্ষেত্রে আপনার পরিকল্পনা সেইভাবে করে আগাতে হবে। আপনি যখন চিন্তা করবেন, কোর্স করেই পরের মাস থেকে ইনকাম, তখন আপনার পতন হতে সময় লাগবেনা। যখন ক্যারিয়ার হিসেবে ভাববেন, তখন পরিকল্পনাটা বাস্তবায়নের জন্যতো কমপক্ষে ৬-১বছর সময় দিতে হবেই।

বিষয়টা নিয়ে আমার একটা আর্টিকেল লিখা আছে, পড়ে দেখতে পারেন।

http://genesisblogs.com/freelancing-2/18544

৪) অফিস অ্যাপ্লিকেশন শিখে কি ক্যারিয়ার গড়া সম্ভব?

উত্তর: দুনিয়াটা এখন প্রচুর দক্ষদের জায়গা। অনার্স, মাস্টার্স, এমবিএ করেও মানুষ বেকার থাকে। সেই যুগে এসে অফিস অ্যাপ্লিকেশনের মত ছোট একটা দক্ষতা নিয়ে সার্ভাইভ করাটা অনেক কষ্টসাধ্য। সারাদিন আড্ডার পিছনে কিংবা অন্যভাবে সময় অপচয় না করে নিজেকে দক্ষ করার পিছনে সময় ব্যয় করুন। না হলে একসময় অবশ্যই আপনাকে কাদতে হবে।

আমার দুইটা লিখা পড়ার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ রইল। জীবনকে ভাবতে পারবেন, নতুন করে।

শিরোনাম: কিছুতুচ্ছকারণযাআপনাকেস্কীলডকরতেপারেনি, ফলাফলসারাজীবনেরকান্না

http://genesisblogs.com/featured/16145

শিরোনাম: আরকতদিননিজেকেনিজেঠকাবেন?

http://genesisblogs.com/lifestyle/17002

 

৫) ফ্রিল্যান্সিং শিখার জন্য সময় বেশি দেওয়ার স্বার্থে অ্যাকাডেমিক পড়ালেখা বন্ধ রাখা ভাল হবে কিনা?

উত্তর: অ্যাকাডেমিক পড়ালেখা সম্পন্ন করতে না পারলে জীবনে অনেক পস্তাবেন। সবাইকে কমপক্ষে মাস্টার্স পযন্ত পড়ালেখা শেষ করা উচিত। না হলে পড়ালেখা বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তের জন্য একটা বয়সে গিয়ে পস্তাতে হবে। তবে পড়ালেখার পাশাপাশি নিজেকে আরো বেশি বিষয়ে দক্ষ করার জন্য সময় ব্যয় করতে হবে। পড়ালেখার পরে যে সময়টা ব্যয় করতেন আড্ডা দেওয়ার জন্য কিংবা সিনেমা দেখার জন্য, সেটিকে কমিয়ে নিজেকে দক্ষ করতে সময় দিন। মাল্টি দক্ষতার যুগ এখন। সেজন্য অ্যাকাডেমিক সার্টিফিকেট আপনার চাকুরির নিশ্চয়তা দিবেনা। মাল্টি স্কীল লোকদেরকেই বিভিন্ন অফিস বেছে নিবে।

৬) বুয়েটে ভর্তি হতে না পেরে হতাশা হতে আত্নহত্যা করতে চাচ্ছেন একজন?

উত্তর: বুয়েটে ভর্তি হতে না পারলে কি কেউ ক্যারিয়ার গড়তে পারেনা? যতদিন স্টুডেন্ট লাইফ ততদিনই শুধু গর্ব করতে পারবেন, বিশ্ব বিদ্যালয়ের নামে, সেটা হতে পারে ৫-৭ বছর মাত্র। কিন্তু বাকি জীবন সেটার চাইতে বড় পরিচয় হবে কিরকম ক্যারিয়ার গড়তে পেরেছেন সেটি। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের গর্ব করে লাভ হবেনা। সুতরাং, সেই বিশাল সময়টির জন্য প্রস্তুতি নিন। সেটার জন্য ভার্সিটি কোন বড় ফ্যাক্টর হিসেবে কাজ করবেনা, আপনার দক্ষতাই সেই ক্ষেত্রে বড় ফ্যাক্টর হিসেবে কাজ করবে।

৭) একজনের সাইটে দৈনিক ৩০০০ভিজিটর আছে। সে চাচ্ছে, ৩০,০০০ ভিজিটর প্রতিদিন।

উত্তর: আপনার মার্কেটিং পরিকল্পনা, মার্কেটিং করার ক্ষেত্রগুলো বাড়ান। আর মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে পাবলিক অ্যানগেজমেন্ট বৃদ্ধির দিকেই বেশি নজর দিন। পাবলিক অ্যানগেজমেন্ট বৃদ্ধির দিকে নজর দিতে আপনার শিক্ষার চাইতে কমনসেন্সকে বেশি কাজে লাগাতে হবে। এরকম একটি পরিকল্পনা নিয়ে এগোতে পারলে,  ১মাস পরই পুরো ফলাফলের বিশাল পরিবর্তন দেখতে পাবেন।

graphic desinnnnn

৮) ফ্রিল্যান্সিংয়ের জন্য কোন কাজটি প্রথমে শিখবেন?

উত্তর: ফ্রিল্যান্সিংয়ের কোন ক্যারিয়ার ছোট না। সুতরাং যেটা শিখবেন, সেটাতেই ভাল দক্ষতা অর্জনের চেষ্টা করেন। একেকটা বিষয়ে দক্ষ হতে হলে ১-২বছর লেগে যায়। আর দক্ষ হলে যে কোন কিছু হতেই মাসে ১লাখ টাকার উপর ইনকাম করা সম্ভব হয়। সুতরাং প্রথমে একটা শিখবেন, পরে অন্যটা শিখবেন, এরকম পরিকল্পনা বাদ দিন।

আর কি শিখবেন, সেটি নিজেই সিদ্ধান্ত নিবেন। কারও ইনকাম দেখে লোভ না করে, নিজের ভাল লাগাটাকেই সর্বোচ্চ গুরুত্বদিন।

নিজের সিদ্ধান্ত নিজেই নিতে সাহায্য করার জন্য আমি একটা আর্টিকেল লিখেছিলাম।

লিংক:http://genesisblogs.com/freelancing-2/16366

৯) দ্রুত ইনকাম সম্ভব কোন কোর্সটি করলে?

উত্তর: কোন কোর্সেই দ্রুত ইনকাম সম্ভব না, আবার সবগুলোতেই দ্রুত ইনকাম সম্ভব। দ্রুত ইনকাম যখন সম্ভব হয়, তখন বুঝতে হবে, কোন একটি কোর্সের সামান্য একটি দক্ষতা কাজে লাগিয়ে সে ইনকাম করছে।

যেমন: গ্রাফিক ডিজাইন কোর্স চলাকালীন অবস্থাতে অনেকে ইনকাম করে। সেটা হয়ত, শুধুমাত্র বিজনেস কার্ড দিয়ে। কিন্তু তার ইনকাম খুব বেশি হবেনা, কিংবা হলেও নিয়মিত হবেনা। এসইও কোর্স চলাকালীন অবস্থাতেও অনেকেই শুধুমাত্র কীওয়ার্ড রিসার্চ সম্পন্ন করেই ইনকাম শুরু করে দেন। সে তখন এসইওর একটা অংশে দক্ষতা অর্জন করেছে। এটা তার নিয়মিত ইনকাম কিংবা বড় ইনকামের নিশ্চয়তা দিবেনা।

বড় ইনকাম এবং নিয়মিত ইনকামের জন্য যে কোন কিছু শিখতে সময় দিন কমপক্ষে ৩মাস. দক্ষতা অর্জন করতে সময় দিন, আরো ৩মাস। তাহলেই শুধুমাত্র ভাল ইনকাম করতে পারবেন।