বিজনেস কেন করবেন? বা কেন উদ্যোক্তা হবেন ? তা নিয়ে আসেন আলোচনা করি।

Palas Rahman

আমি একজন উদ্যোক্তা
উদ্যোক্তাদের নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি ৫ বছর হয়ে গেল প্রায়।
এছাড়া ভালো লাগে নতুন নতুন উদ্যোক্তা তৈরিতে সাহায্য করা।
ফেজবুকে কাজ করে যাচ্ছি (বেকার থেকে উদ্যোক্তা ( আমরা চাকরিপ্রার্থী নই, আমরা চাকরিদাতা) গ্রুপের মাধ্যমে।
টিউন করেছেন Palas Rahman | August 19, 2015 13:44 | পোস্টটি 3,269 বার দেখা হয়েছে

বিজনেস কেন করবেন? বা কেন উদ্যোক্তা হবেন ? তা নিয়ে আসেন আলোচনা করি।

আসেন পয়েন্ট করে নেই, তাহলে আমাদের সুবিধা হবে।

১। কেন বিজনেস করবেন ?

২। কীভাবে বিজনেস করবেন ?

৩। কি নিয়ে বিজনেস করবেন ?

৪। বিজনেস করলে কি কি সুবিধা পাওয়া যায় লাইফে ?

৫। বিজনেস করলে কি কি অসুবিধা হয় ?

৬। বিজনেস কারা করবেন ?

৭। কত টাকা হলে বিজনেস করা যায় ?

৮। বিজনেস এর জন্য কোথায় ট্রেনিং বা কার পরামর্শ নিয়ে শুরু করবেন ?

৯। বিজনেস এ কি শুধু লাভ বা শুধু লস হয় কিনা?

১০। বিজনেস করবেন অথচ প্ল্যান নাই, তাই বিজনেস শুরু করবেন কিনা ?

১১। বিজনেস শুরু করার আগে কি কি বিষয়ে অভিজ্ঞ হতে হবে?

১২। বিজনেস শুরু করি কিন্তু কোন উন্নতি হয় না কেন ?

১৩। বিজনেস করেই যাচ্ছি, কিন্তু লস আর লস হচ্ছে কেন ?

১৪। বিজনেস করে সব হারিয়েছি কেন ?

১৫। অনেক বিজনেস প্ল্যান নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি কিন্তু টাকা নাই তাই শুরু করতে পারচ্ছিনা কেন?

১৬। আমি বিজনেস এর সব কিছু জানি কিন্তু কেউ আমাকে সুযোগ দিচ্ছে না কেন ?

১৭। অনেক বড় অফিস নিয়ে শুরু করেছি বিজনেস, কিন্তু সফল হতে পারছি না কেন ?

১৮। আমি ঢাকার বাহিরে থাকি, কীভাবে বিজনেস শুরু করবো?

১৯। আমার বন্ধু অনেক বড় বিজনেস করে, কিন্তু আমি কেন তারমত বিজনেস করতে পারছি না ?

২০। আমি ছোট আকারে কেন বিজনেস আগে শুরু করবো?

২১। বিজনেস করবো কিন্তু কোন কোন বেক্তিকে আইডল হিসাবে আমি গুরুত্ব দিবো ?

২২। আমি জব করি আমি কি জবের পাশাপাশি বিজনেস করতে পারবো ?

২৩। আমি ছোট বিজনেস করি, কিন্তু ব্যাংক আমাকে লোণ দেয় না কেন ?

এই রকম প্রশ্নের একটিই উত্তর, আর তা হলঃ

বিজনেসে কোন আবেগ এর জায়গা নাই, এখানে আবেগকে নিয়েই বিজনেস করতে হয়।
বিজনেসে আপনি আগেভকে নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন, আপনি তত বড় বিজনেসম্যান হতে পারবেন।

এখন আসেন আপনি কেন বিজনেস করবেন তার উত্তর জেনে নেই।

তার আগে আপনাকে একটা গল্প বলি শুনেন, ২০০২ সালে ২ বন্ধু মিলে একটি গবেষণা করে তাদের ইউনিভার্সিটির জন্য। তাদের এই গবেষণা পত্র যখন জমা দেওয়া হয় তখন তাদের ইউনিভার্সিটির এক শিক্ষক Yahoo কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করে তাদের গবেসনার ব্যাপারে। এক সময় Yahoo এর ওয়েবসাইটে তাদের সেই গবেষণার বিষয়টি অ্যাড করা হয় এবং সেখান থেকে আসতে আসতে জন্ম হয় Google নামে একটি প্রতিষ্ঠান।

আর এখন সেই প্রতিষ্ঠান এখন সারা পৃথিবী চালাচ্ছে।

এখন আপনি বলেন আপনি যে বিজনেস করবেন আপনি কি নিয়ে গবেষণা করেছেন ?

আপনি বলতে পারেন যে গবেষণা বা প্ল্যান ছাড়া কি বিজনেস হয় না?

আমি বলবো প্ল্যান ছাড়া কোন বিজনেস হয় না, আপনি বিজনেস করবেন আর প্ল্যান করবেন না তাহলে হবে না।

আপনাকে বিজনেস করতে হলে অবশ্যই যে সূত্রটি মেনে চলতে হবে তা হলোঃ

‪#‎প্ল্যান_করা‬ + ‪#‎কঠোর_পরিশ্রম_করা‬ + ‪#‎ধর্য্য_ধারন_করা‬ = ‪#‎সফল_হওয়া‬

আমাদের দেশে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা কেন বেশি দূর এগিয়ে যেতে পারেনা, তার কারন হলো, আমাদের মাঝে এমন একটা ধারনা হয়ে গিয়েছে যে আমরা বিজনেস শুরু করলেই টাকা আসবে, বিজনেসে যে লস বলে একটা কথা আছে, সেটা আমরা মানতে চাই না। বিজনেস করবেন কিন্তু আপনি প্রফিট এর চিন্তা করবেন শুধু কিন্তু লস যে হয় বিজনেসে সেটা মানবেন না সেটা হয় না। আপনি বিজনেস করবেন এখানে ২ টা বিষয়ই মাথায় রেখে আপনাকে সামনে এগিয়ে যেতে হবে।

যেমন ধরুন ফেজবুক এর কথাই বলি, এরা প্রথম ৩ বছর শুধু লস আর লস দিয়েছে এবং সেই সাথে প্ল্যান করে বিজনেস করে গিয়েছে আর এখন তারা আইটি দুনিয়া নিয়ন্ত্রণ করে যাচ্ছে।

ঠিক তেমনি আপনি যখন বিজনেস প্ল্যান করবেন তখন অবশ্যই আপনাকে যে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে তা হলো অবশ্যই দীর্ঘ মেয়াদী প্ল্যান এবং স্বল্প মেয়াদী প্ল্যান নিয়ে কাজ করতে হবে ।

আপনি যখন বিজনেস করবেন আর সেটা যদি হয় আপনার কাছে একদমই নতুন তাহলে অবশ্যই আপনি সেই বিজনেস এর বাজার যাচাই করে নিবেন। তাহলে এতে বিজনেস রিক্স কম থাকে। যেমন বড় বড় কোম্পানি গুলো করে থাকে। তার একটা উদাহরণ দেই আপনাদের সামনে।

আপনারা সবাই হয়তো ইকমার্স সাইট আমাজান এর নাম শুনেছেন। তারা এই বাংলাদেশে বিজনেস শুরু করবে তা আরও ২ বছর আগে প্ল্যান করেছে, এর মাঝে তারা তাদের সম্ভাব্য বাজার নিয়ে সার্ভে করে নিয়েছে, যা কিনা তাদের বিজনেস প্ল্যান এরই একটি অংশ। এছাড়া তাদের সার্ভে এখনো চলছে। এখন এটা তারা কেন করছে ? আপনার কি মনে হয় ?

এটা তারা এর জন্যই করছে যে তারা যখন এই দেশে তাদের বিজনেস ওপেন করবে তখন যেন তাদের কোন ধরনের সমস্যা না হয়, সেই সাথে তারা যে সেক্টর নিয়ে বিজনেস করবে সেই সেক্টরে তাদের সম্ভাব্য প্রতিযোগীরা কি কি বিষয় নিয়ে কাজ করছে, সেই বিষয়গুলো মাথায় নিয়ে সে কীভাবে এগিয়ে যাবে তার বিজনেস শুরু করবে তার প্ল্যান করার জন্যই এই সার্ভে।

এখন কথা হলো আমরা কি আমাদের বিজনেস শুরু করার আগে ছোট করে হোক বড় করে হোক আমরা কি এই বিষয়গুলো নিয়ে চিন্তা করি?

আমরা অনেক অংশেই তা করি না, যার জন্য আমাদের বিজনেসকে বেশি দূর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি না।

আমাদের একটাই সমস্যা হলো অন্য একজন করছে সেটাকেই আমরা কপি করে যাচ্ছি। যেটা কিনা কোন বিজনেস হতে পারেনা। যেমন ধরেন ই-কমার্স এর কথাই ধরা যাক। এখন এমন অবস্থা হচ্ছে যে আমার বন্ধু একটি ই-কমার্স সাইট করে এগিয়ে যাচ্ছে, তাই আমিও শুরু করে দেই। কিন্তু এই বিষয়ে কোন অভিজ্ঞতা আছে কিনা বা এই বিষয়ে কোন ধরনের মার্কেট সার্ভে আছে কিনা সে বিষয়ে কোন ধরনের চিন্তাই করি না। যার জন্য আমাদের দেশে এখন প্রতিদিন অনেক ই-কমার্স সাইট হচ্ছে আবার অনেক সাইট বন্ধ হয়েও যাচ্ছে।

এখন কথা হলো আপনি কীভাবে বিজনেস করবেন ?

বিজনেস আগে বুজতে হবে , তার জন্য ছোট আকারে হলেও আগে শুরু করতে হবে, সেটা সম্ভব না হলে অন্নের কাছে বা অন্য প্রতিষ্ঠানে জব নিয়ে কাজ করে সেই বিষয়ে জানতে হবে। তারপরে সেই বিষয়গুলো নিয়ে আপনাকে প্ল্যান করতে হবে। তারপর আপনি ইচ্ছা করলে বিজনেস শুরু করতে পারেন ।

তারপরে আসুন আপনি কেন ৫ বছর বিজনেস করেও ব্যাংক লোণ পাচ্ছেন না, সেই বিষয়ে জেনে নেই।

আমরা হয়তো অনেক দিন ধরে বিজনেস করে যাচ্ছি, কিন্তু এর জন্য যে একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট এর দরকার হয় সেটা আমরা করি না, এর জন্য যে একটি ট্রেড লাইসেন্স করলে ব্যাংক লোণ পাওয়াতে কাজে দেয় সেই বিষয় আমরা ভেবে দেখি না।

এখন আপনি যখন বিজনেস শুরু করবেন প্রথম কাজ হবে একটি ট্রেড লাইসেন্স করা এবং একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট করা আপনার প্রতিষ্ঠানে নামে।আর যাই লেন্দেন করবেন সেটা অবশ্যই আপনার প্রতিষ্ঠানের অ্যাকাউন্ট ব্যাবহার করে করবেন। এতে ব্যাংক লোণ পাওয়াতে সহজ হয়।

আজ এই পর্যন্ত, আগামিতে আরও কিছু নিয়ে আসবো ইনশাআল্লাহ্‌

সবাইকে ধন্যবাদ

Lost Password?

সামাজিক লিঙ্কে

পোস্ট নির্বাচন করুন